মাস্ক পরে কানে হবে না ব্যথা, বর্ধমানের ক্ষুদে বিজ্ঞানীর নতুন আবিষ্কার

দীর্ঘক্ষণ মাস্ক পরে থাকার ফলে কানে ব্যথা হয় সবার। এই ব্যথা থেকে মুক্তি দিতে একটি টুল আবিষ্কার করে তাক লাগিয়ে দিলেন বর্ধমানে এক ক্ষুদে বিজ্ঞানী। তার জন্য এবার জাতীয় পুরস্কার পাচ্ছে সে।

ছোট থেকেই নানারকম আবিষ্কারে মগ্ন থাকে পূর্ব বর্ধমানের মেমারি দিগন্তিকা বসু (Digantika Bose)। তার নানান আবিষ্কার ইতিমধ্যেই প্রশংসা কুড়িয়েছে বৈজ্ঞানিক মহলে। এবার মাস্ক (Mask) ব্যবহারের নয়া পন্থা আবিষ্কার করেছে সে। এর জন্য পুরস্কৃত হয়েছে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক স্তরে।

করোনা আবহে আমাদের সবাইকে দীর্ঘক্ষন ধরে মাস্ক পরে থাকতে হয়। যার ফলে কানের উপর ক্রমাগত চাপ পরে এবং কানে একটি ব্যাথা অনুভূত হয়।

Digantika Bose

এই সমস্যার সমাধান হিসেবেই দিগান্তিকা প্লাস্টিকের বোর্ড দিয়ে টুল তৈরি করে। দিগন্তিকা এর এই আবিষ্কারের নাম “Air Pressure Reduction Tool Due to the Use of Mask” ।

মাস্ক (Mask) ব্যাবহারের সময় এই টুল মাথার পেছনে আটকে থাকবে। এর ফলে মাস্ক দীর্ঘক্ষণ ব্যবহারের ফলেও কানে কোনরকম ব্যাথা হবেনা। এখন তার আবিষ্কারের সংখ্যা ১১।

"<yoastmark

এর আগেও সুন্দরবনে মধু সংগ্রহ করতে যাওয়ার নিরাপদ চশমা তৈরি করে সংবাদের শিরোনামে আসে দিগন্তিকা। দিগন্তিকা (Digantika Bose) ১৫ অক্টোবর “ডাঃ এপিজে আবদুল কালাম ইগনাইটেড মাইন্ড চিলড্রেন ক্রিয়েটিভিটি এ্যণ্ড  ইনোভেশন অ্যাওয়ার্ড” পেয়েছে।

আরও পড়ুন : বর্ধমানের মেমারির এই ক্ষুদে বিজ্ঞানী আজ সারা ভারতের গর্ব

ভারত সরকারের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রকের বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা কাউন্সিল এই পুরস্কার দিয়েছে তাকে। চলতি বছরে ২২টি রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল থেকে মোট ৯ ‌জন খুদে বিজ্ঞানী এই পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত হয়েছিল।