পুলিশের চাকরি ছেড়ে রাজনীতিতে পা দিলেন দেশের মাটির অভিমুন্য

পুলিশের চাকরি ছেড়ে রাজনীতিতে পা দিলেন দেশের মাটির অভিমুন্য ওরফে ডিআইজি প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়

টেলিভিশনের পর্দার একজন দুঁদে পুলিশ কর্তা তিনি। সিনে পরিচালক লীনা গঙ্গোপাধ্যায়ের দেশের মাটি (Desher Mati) ধারাবাহিকের পুলিশ কর্তা অভিমুন্যের চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি। পুলিশ কর্তার চরিত্রে তিনি যথাযথ। আর হবে নাই বা কেন? বাস্তবেও তো তিনি একজন পুলিশ কর্তাই! তাই ক্যামেরার সামনে হয়তো বা খুব বেশি অভিনয় করতেও হয়না তাকে। তিনি বারাসাতের ডিআইজি প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায় (Prasun Bandopadhyay)।

তবে এবার আর পুলিশকর্তার ভূমিকায় দেখা যাবে না প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়কে। পুলিশের চাকরি ছেড়ে রাজনীতিতে পা রাখতে চলেছেন তিনি। বাস্তবে না হলেও, রিল দুনিয়ার সৌজন্যে এমনটাই ঘটতে চলেছে। দেশের মাটির নতুন মোড় অনুসারে অভিমুন্য তার চাকরি ছেড়ে স্বরূপনগরের রাজনীতিতে প্রবেশ করবেন। তার চরিত্রে এবার লাগতে চলেছে নতুন রং। চরিত্রের এই উত্তরণ সম্পর্কে কী ভাবছেন খোদ অভিমুন্য ওরফে প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়?

অভিনেতা তথা পুলিশকর্তা আনন্দবাজার অনলাইনের কাছে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে জানালেন, “বাস্তবে পুলিশ, পর্দাতেও পুলিশ— তাতে এক রকম ভাবে অভিনয় করতাম। কিন্তু রাজনীতিকের চরিত্র একেবারে আলাদা স্বাদের, আড়ে-বহরে-বৈশিষ্ট্যেও অন্য রকম। তাতে অভিনয়ের ধরন বা সুযোগও অনেকটাই অন্য রকম, চ্যালেঞ্জও অনেকখানি। গল্পের প্রয়োজনে যদি সত্যিই অভিমন্যু পুলিশের পেশা ছেড়ে রাজনীতিতে আসে, সেই বদলে যাওয়া চরিত্রে অভিনয় করাটা নিশ্চিত ভাবেই খুব উপভোগ করব।”

বাস্তবে পুলিশকর্তাদের রাজনীতিতে প্রবেশের ঘটনা কিন্তু কিছু নতুন নয়। সত্যি সত্যিই বাস্তবে কোনদিনও রাজনীতিতে প্রবেশ করুন বা না করুন, ধারাবাহিকের দৌলতে রাজনীতি করার একটা সুযোগ কিন্তু পেয়ে গিয়েছেন প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়। পুলিশ কর্তার দায়দায়িত্ব সামলে এবার পর্দার রাজনীতিক হিসেবে স্বরূপনগরের দায়-দায়িত্ব সামলাবেন প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়।

ধারাবাহিকে এসিপি অভিমন্যু একসময় জলপাইগুড়ি এবং মালদহে ডিআইজি ছিলেন। এরপর তিনি বদলি হয়ে আসেন বারাসাতে। সঙ্গে কলকাতা পুলিশের ট্রাফিক প্রশিক্ষণের দায়িত্বও সামলেছেন প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রশাসনের দায়-দায়িত্ব সামলানো তার পেশা, তবে তার নেশা বা শখ হলো অভিনয়। তার নিজস্ব নাটকের দল আছে। ধারাবাহিকের বাইরেও তিনি সময়-সুযোগ পেলেই নাটকে অভিনয় করেন।

মাত্র ছয় বছর বয়সে অভিনয়ের সঙ্গে তার যোগসুত্র স্থাপিত হয়। বহু তথ্যচিত্রে তিনি অভিনয় করেছেন। অভিনয়ের পাশাপাশি ছোট গল্প লিখতে, তথ্যচিত্র বানাতেও সিদ্ধহস্ত প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়। তার বানানো তথ্যচিত্র ‘নোটিফিকেশন’ তো দেশ-বিদেশে প্রচুর প্রশংসা পেয়েছে।