৩৬ পেরিয়েও বাড়ছে গ্ল্যামার! বয়স ধরে রাখতে ১০ মিনিটের এই ছোট্ট কাজটি রোজ করেন দীপিকা

৩৬ পেরিয়েও এত সুন্দরী দীপিকা! বিউটি সিক্রেটস সকলের সঙ্গে শেয়ার করে নিলেন অভিনেত্রী

Deepika Padukone shared her beauty secrets skin care and hair care tips

এই মুহূর্তে সারা পৃথিবীর সুন্দরী মহিলাদের মধ্যে দীপিকা পাড়ুকোন (Deepika Padukone) রয়েছেন সেরা দশের তালিকায়। এমনকি ঐশ্বর্য রাই, করিনা কাপুর খানদের পেছনে ফেলে দিয়ে ভারতের তো বটেই, গোটা পৃথিবীর সুন্দরীদের দৌড়ে তিনি রয়েছেন এগিয়ে। অথচ বয়সের বিচারে দীপিকা দেখতে দেখতে ৩৫ পেরিয়ে ৩৬ শে পা দিয়েছেন। তবে আজও তাকে দেখলে তার বয়স আন্দাজ করা মুশকিল।

বলিউডের ভেতরে বাইরের যে কোনও অনুষ্ঠানে দীপিকা পাড়ুকোনের স্টাইল স্টেটমেন্ট, ফ্যাশন সেন্স থেকে তার চেহারার গ্ল্যামার ঝলসে দেয় চোখ। এই বয়সেও তার এত সৌন্দর্যের নেপথ্যে রয়েছে প্রতিদিনের রূপচর্চার কিছু সিক্রেটস (Deepika Padukone’s Beauty Secrets)। রোজের রূপচর্চার তালিকাতে খুব সাধারণ কিছু রুটিন মেনে চলেন দীপিকা। সম্প্রতি একটি ম্যাগাজিনের সাক্ষাৎকারে তিনি তার বিউটি সিক্রেট ফাঁস করেছেন।

দীপিকা জানিয়েছেন সারাদিন চরম ব্যস্ততার মধ্যে কাটালেও রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে তিনি অবশ্যই মুখের মেকআপ তুলে ত্বক পরিষ্কার করে তবে ঘুমোতে যান। ঘুমানোর আগে মেকআপ না তুললে সেগুলো ত্বকের সূক্ষ্ম ছিদ্রগুলোর মুখ বন্ধ করে দেয়। যার ফলে ত্বকে রিঙ্কেলস, ফাইন লাইনস, ব্রণ, ব্রেক আউটের সমস্যা বেড়ে যায়।

এছাড়া তার স্কিন কেয়ার রুটিনের মধ্যে থাকে এক্সফোলিয়েটিং, ক্লিনজিং এবং রিপ্লিশিং। বাইরে বেরোনোর আগে অবশ্যই সানস্ক্রিন ব্যবহার করেন তিনি। সেই সঙ্গে ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখতে প্রতিদিন নাইট ক্রিমের ব্যবহার করেন দীপিকা। ত্বক ডিটক্স করার প্রয়োজন হলে বাইরে প্রোডাক্টের চেয়ে ঘরোয়া ক্লে ফেস মাস্কই তার ব্যবহারের তালিকায় থাকে। মাত্র ১০ মিনিটের মধ্যেই এই ক্লে ফেস মাস্ক তার ত্বককে হাইড্রেট এবং রিফ্রেশ করে তোলে।

সেই সঙ্গে দিনের একটা সময় ওয়ার্ক আউট করাটাও ভীষণ জরুরি বলে জানিয়েছেন দীপিকা। সারাদিনের রুটিনের মধ্যে ওয়ার্ক আউটকে আলাদাভাবে গুরুত্ব দেন তিনি। ওয়ার্ক আউটের পর দ্রুত স্পা কিংবা স্টিম নিয়ে নেন দীপিকা। এতে নিজেকে ভেতর থেকে সুন্দর করে তোলা যায়। এক্সারসাইজের পর দ্রুত স্প্যা নিলে আরামও হয়, সেই সঙ্গে অন্তরের সৌন্দর্যকেও উপলব্ধি করা যায়।

ওয়ার্ক আউট এবং স্পা বা স্টিম রক্তপ্রবাহ বাড়ায়, যার ফলে ত্বক উজ্জ্বল এবং সতেজ থাকে। ত্বকের নানা সমস্যা দূর করে দেয় এই অভ্যাসগুলো। চুল এবং ঠোঁটের যত্নে তিনি বরাবর নারকেল তেলের উপর ভরসা রেখেছেন। চুলের জন্য হেয়ার মাস্ক হোক বা ঠোঁটের লিপবাম, বা ত্বকের মেকআপ রিমুভার হিসেবে তিনি ব্যবহার করেন নারকেল তেল।