‘রঙ্গবতী’ গানে নেচে মঞ্চ কাঁপালেন দেবশ্রী, ‘কলকাতার রসগোল্লা’র ম্যাজিকে মন্ত্রমুগ্ধ দর্শকরা

Deboshree Roy Dancing on Rangoboti VIral on Social Media

দীর্ঘ প্রায় ১০ বছরের বিরতির পর পর্দায় ফের ধামাকাদার এন্ট্রি নিয়েছেন দেবশ্রী রায় (Debashree Roy)। ‘সর্বজয়া’ (Sarbojaya) ধারাবাহিকের প্রোমো দেখে নাক সিঁটকেছিলেন যারা, তাদের উপযুক্ত জবাব দিয়েছেন ‘কলকাতার রসগোল্লা’। এইতো সবে দু’সপ্তাহ হলো টেলিভিশনের পর্দায় সর্বজয়ার টেলিকাস্ট শুরু হয়েছে। এরইমধ্যে টিআরপি দখল করে নিয়েছে জয়া। স্টার জলসা, জি বাংলার তাবড় তাবড় ধারাবাহিককে পেছনে ফেলে দিয়ে এখন তৃতীয় স্থানে সর্বজয়া। সবটাই সম্ভব হয়েছে দেবশ্রীর কারণে।

দেবশ্রী রায় মানেই ৯০ এর দশকের সেই অভিনেত্রী যার রূপে, নাচে-গানে-অভিনয়ে বুঁদ হয়ে থাকতেন দর্শক। সর্বজয়া ধারাবাহিকেও দেবশ্রীর নাচ ধারাবাহিকের প্রধান ইউএসপি হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে। জয়া নিজে একজন নৃত্যশিল্পী। তবে সংসারে চাপে পড়ে নাচটা তার একপ্রকার বন্ধই হয়ে গিয়েছিল। মেয়ের কলেজের নাচের কম্পিটিশনে অংশগ্রহণ করার সুযোগ পেয়ে তা হাতছাড়া করেনি জয়া। এই প্রতিযোগিতায় মেয়ে সারার সঙ্গে একই মঞ্চে নাচবে জয়া।

সম্প্রতি সেই বহুপ্রতীক্ষিত এপিসোড দেখলেন দর্শক। মঞ্চে জয়া এবং সারার নাচ দেখে রীতিমতো মন্ত্রমুগ্ধ হয়েছেন তারা। বিশেষত বহুদিন বাদে দেবশ্রীর নাচ দেখে তারা আপ্লুত। অভিনেত্রী সংঘমিত্রা তালুকদার এই ধারাবাহিকে দেবশ্রীর মেয়ের ভূমিকায় অভিনয় করছেন। ধারাবাহিকের ওই বিশেষ এপিসোড সম্প্রচার হওয়ার পূর্বে তিনি নিজের ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলে দেবশ্রীর সঙ্গে নাচের মুহূর্তের কিছু ছবি শেয়ার করেছিলেন।

সেখানেই দেখা গিয়েছিল মা-মেয়ে জুটি ওড়িশার আঞ্চলিক সাজে সেজে নাচছেন। ধারাবাহিকের ওই বিশেষ এপিসোড নিয়ে সংঘমিত্রা নিজেও বেশ উৎসাহিত ছিলেন। পোস্টের ক্যাপশনে তিনি লিখেছিলেন, ‘কামিং সুন’। তারপর থেকেই কার্যত দর্শকের মনে আগ্রহের পারদ চড়ছিল। লাল শাড়িতে দেবশ্রী এবং সাদা শাড়িতে সংঘমিত্রার কনট্রাস্ট লুক ক্যামেরার সামনে আলাদা এক মাত্রা সংযোগ করেছে।

মা-মেয়ের নাচ দেখে সকলে এতটাই মুগ্ধ হয়ে গিয়েছিলেন যে নাচ শেষ হয়ে যাওয়ার পরেও হাততালি দিতে ভুলে গিয়েছিলেন তারা। নাচ শেষে সর্বজয়া স্বামী উঠে দাঁড়িয়ে প্রথম হাততালি দেন। তারপরেই ওই অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকল দর্শক হাততালি দিতে শুরু করেন। এই নাচের দেবশ্রীর সঙ্গে সমান তালে পারফরম্যান্স দিয়েছেন সংঘমিত্রা। তবে দর্শকের নজর তো ছিল কেবল ‘কলকাতা রসগোল্লা’র উপরেই!

উল্লেখ্য, বহু বছর ইন্ডাস্ট্রি থেকে দূরে থাকার পর দেবশ্রী যখন কামব্যাক করতে চাইলেন তখন তার পক্ষে পরিস্থিতি ততটাও অনুকূল ছিল না। বিশেষত বয়সজনিত কারণে তার চেহারার ভাঁজ ক্যামেরার সামনে ফুটে ওঠা নিয়ে অনেকেই তাকে কটুক্তি করতে শুরু করেন। তবে সে সবে কান না দিয়ে দেবশ্রী শুধু নিজের কাজই করে গিয়েছেন। যার ফলাফল টিআরপি তালিকাতেই স্পষ্ট। এই ধারাবাহিকের পরিচালক এবং প্রযোজক স্নেহাশিস চক্রবর্তী বলেছিলেন তার জহুরীর চোখ রত্ন চিনে নিতে ভুল করে না! সে কথা সত্য প্রমাণ করেছেন দেবশ্রী।