চুইংগাম কি দিয়ে তৈরি হয় জানেন? জানলে জীবনেও আর খাবেন না

পরেরবার মুখে দেওয়ার আগে জানুন, কোন প্রাণীর অংশ দিয়ে তৈরি হয় চুইংগাম?

ভীষণ টেনশনে বা মানসিক চাপ থাকলে অনেক সময় আমরা চুইংগাম (Chewing Gum) চিবিয়ে নিই। এটি শুধুমাত্র আমাদের মানসিক চাপ নিয়ন্ত্রণ (Stress Regulator) -এ আনতে সাহায্য করে তা নয়, আমাদের ক্ষুধা নিবারণেও সাহায্য করে। এই চুইংগাম শিশুরা সব থেকে বেশি ব্যবহার করে, তবে বড়রাও যে ব্যবহার করে না সেটাও নয়। অনেকে আবার অভ্যাসগতভাবে প্রতিনিয়ত চুইংগাম চিবিয়েই থাকেন। জানেন কোন প্রাণীর শরীরের অংশ থেকে তৈরি হয় এই চুইংগাম? প্রতিদিনের এই অভ্যাসে আপনার শরীরে কি কি উপকারিতা বা অপকারিতা হচ্ছে জানেন? জেনে নিন।

চুইংগাম খাওয়ার উপকারিতা

চুইংগামে থাকে অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টি ফাঙ্গাল, যা মুখে দুর্গন্ধ দূর করতে ভীষণ সাহায্য করে। চুইংগাম যদি মিন্ট ফ্লেভারের হয়, সেক্ষেত্রে কগনিটিভ বুস্টার হিসাবেও কাজ করে সেটি। এছাড়া চুইংগাম স্নায়ুর কর্ম ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে এবং মস্তিষ্ককে রাখে রিলাক্স। চুইংগাম জি আই ফাংশন উন্নত করে, ফলে কোন কাজে যদি মন না বসে তাহলে চুইংগাম খেলেই আপনি সেই কাজ অনায়াসে করতে পারবেন।

Chewing Gum

চুইংগামের অপকারিতা

বেশ কিছু উপকারিতার পাশাপাশি চুইংগাম খেলে কিছু অপকারিতারও সম্মুখীন হতে হবে আপনাকে। চুইংগাম অতিরিক্ত মুখে রাখলে দাঁতের ক্ষতি হতে পারে। চুইংগামে থাকা অম্ল জাতীয় উপাদান এবং প্রিজারভেটিভ দাঁতের ক্ষয় করে। চুইংগাম অনেকক্ষণ ধরে চেবালে চোয়ালের অতিরিক্ত নড়াচড়ায় মাথায় চাপ সৃষ্টি করতে পারে।

চুইংগাম চেবানোর সময় মুখ বেশি খোলা রাখলে বাতাসে থাকা ধুলো ময়লা আপনার পেটে চলে যাবে এবং পেটব্যথা হবে। দীর্ঘক্ষন চুইংগাম মুখে রাখলে তা ফাস্টফুড এবং চিপস খাওয়ার আগ্রহ বাড়িয়ে দেয় ফলে আপনার ওজন বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। সব থেকে বড় কথা, চুইংগামে থাকা সিনথেটিক উপাদান আপনার ভ্রুনের ওপর প্রভাব ফেলে।

CHEWING GUM

আরও পড়ুন : কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে সর্দিকাশি, নিমেষে মিলবে মুক্তি! রোজ খান এই একটি জিনিস

চুইংগাম কি দিয়ে তৈরি

ভালো হোক বা খারাপ, চুইংগাম আসলে চুইং বা চিবানোর জন্য। খাওয়ার জন্য না। এটি তৈরি হয় গাম বেস, চিনি, ফ্লেভার আর রং দিয়ে। অনেক বছর আগে চুইংগাম তৈরিতে স্টিয়ারিক অ্যাসিড ব্যবহৃত হতো, যা শূকরের পেটের চর্বি থেকে পাওয়া যায়। তবে এখন এটি সিন্থেটিক রাবার এবং অ-শোষণযোগ্য শর্করা দিয়ে তৈরি করা হয়।

আরও পড়ুন : আপনার ব্লাড গ্রুপ অনুসারে কি চিকেন-মাটন খাওয়া ভালো? কারা কোনটি খাবেন না জানুন

CHEWING GUM

আরও পড়ুন : চায়ে এই একটি উপাদান মেশালে ৬টি রোগ থেকে মিলবে মুক্তি

চুইংগাম গিলে ফেললে কি হয়

সবশেষে বলি, যে চুইংগাম আপনি খান সেটা গিলে ফেললেও কিন্তু কোন সমস্যা হবে না। চুইংগাম যেহেতু চিনি এবং কালার দিয়ে তৈরি করা হয়, তাই সেটি আস্তে আস্তে পরিপাকতন্ত্রের বিভিন্ন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে পরিপাক হয়ে যায়। আর গাম অর্থাৎ যে আঠালো পদার্থটি থাকে, সেটি ধীরে ধীরে খাদ্যনালী থেকে পাকস্থলী, ক্ষুদ্রান্ত থেকে বৃহদন্ত্রতে প্রবেশ করে অবশেষে মলত্যাগের সঙ্গে বেরিয়ে যায়।

আরও পড়ুন : রোজ ৫০ ধাপ সিঁড়ি চড়লে শরীরে কী কী উপকার হয়? জানলে লিফটে ওঠা ছেড়ে দেবেন