লাগবে ফোন নম্বর, মাস্ক মাস্ট, খুলছে সিনেমা হল, কেন্দ্রের নতুন নির্দেশিকা

পঞ্চম দফার আনলকে ১৫ অক্টোবর থেকে খুলে যাচ্ছে সিনেমা হল( Cinema Hall) কিন্তু কোরোনা আবহে নতুন অনেকগুলিই নির্দেশিকা জারি করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। প্রথমত হলের মোট সিটের অর্ধ্বেক সংখ্যক টিকিট বিক্রি করা যাবে এবং সেক্ষেত্রেও দর্শকদের মাস্ক পড়া হবে বাধ্যতামূলক। এছাড়াও আরও বেশ কিছু নির্দেশিকা জারি করা হলো কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রকের তরফ থেকে।

কোরোনা পরিস্থিতিতে হলের মধ্যে কোনো খাবার বিলি করা চলবেনা, পাওয়া যাবে কেবলমাত্র প্যাক করা খবর। দর্শকদের হলে ঢোকার জন্য থার্মাল স্ক্রিনিং (Thermal Screening) মাস্ট। জ্বর গায়ে কেউ হলে প্রবেশ করতে পারবেন না। দর্শকদের মাস্ক পড়ে থাকতে হবে।

শো টাইম আগের থেকে কম করতে হবে। হলে ঢোকার বা টিকিট বুক করার সময়ই আগে দর্শকদের নিজের ফোন নম্বর কর্মীদের কাছে জমা করতে হবে যাতে কোনো প্রয়োজনে তাদের সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়। হলের ওয়েটিং জোনে কমপক্ষে ৬ ফুটের সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা বাধ্যতামূলক।

হলে ঢোকার ও বেরোনোর সময় হাত স্যানিটাইজ করতে হবে। টিকিট কাটা, পেমেন্ট, ক্যাশব্যাক, টিকিট চেক – এই গোটা প্রক্রিয়াটি অনলাইন করার ব্যবস্থা করে হবে যাতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা সম্ভব হয়। হলে খাবার বা পানীয় জলের ক্ষেত্রেও অনলাইন পরিষেবার ব্যবস্থা করা যাবে।

হাঁচি বা কাশির সময় মুখ ঢেকে রাখা বাধ্যতামূলক। কোনো ব্যাক্তি কোনরকম অসুস্থ্যতা অনুভব করলে রাজ্য ও জেলা হেল্পলাইন নম্বরে সত্ত্বর যোগাযোগ করতে হবে। হল বা হল প্রাঙ্গণে থুথু ফেলা চলবেনা।

হলে প্রবেশ করতে গেলে ফোনে আরোগ্য সেতু (Aragya Setu) অ্যাপ থাকা বাধ্যতামূলক। সিংগেল স্ক্রিনের ক্ষেত্রে দুবার ছবির সময়ের মধ্যে যথেষ্ট ব্যবধান রাখতে হবে। দর্শকদের সিটের মধ্যে যেন যথেষ্ট ব্যবধান থাকে তার ব্যবস্থা করতে হবে হল কতৃপক্ষকে।টিকিট বুক করার সময় ফাঁকা সিটগুলো চিহ্নিত করে দিতে হবে।

হলের কর্মীদের জন্য মাস্ক, গ্লাভস, বুট, পিপিই কিট ইত্যাদি জিনিসের যথেষ্ট ব্যবস্থা থাকা বাধ্যতামূলক। ছবি শুরুর আগে, ইন্টারভেলের সময় ও শেষ হওয়ার পরে কোরোনা সংক্রান্ত সাবধানতা মূলক ঘোষণা করবে হল কতৃপক্ষ। সিনেমা হলে এসি থাকলে তার তাপমাত্রা ২৪ থেকে ৩০ ডিগ্রির মধ্যে রাখতে হবে।

প্রাথমিকভাবে এই নির্দেশিকাগুলি দেওয়া হয়েছে কেন্দ্রের তরফ থেকে, তবে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক এও বলেছে যে প্রয়োজন বুঝে রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলি আরও কিছু নির্দেশিকা যোগ করতে পারে। এর সাথে এও বলা হয়েছে অতি সংক্রমিত অঞ্চলে (Contentment Zone) সিনেমা হল খোলা যাবেনা।