বদলে গেল টাকা তোলার নিয়ম, দেশবাসীর জন্য কেন্দ্রের ৫টি বড় ঘোষণা

করোনাভাইরাস বিশ্বে মহামারীর আকার ধারন করেছে। বর্তমানে গোটা বিশ্বের আর্থিক ব্যবস্থা তলানিতে এসে থেকেছে সেই সঙ্গে ভারতেরও। শুধু সাধারণ মানুষ নয়, গোটা দেশের শিল্প, বাণিজ্য, উৎপাদন , যোগাযোগ মাধ্যম, ছোট ব্যবসা বর্তমানে সংকটের মুখে দাঁড়িয়ে। এই পরিস্থিতি কিছুটা সামাল দিতে মঙ্গলবার কেন্দ্র বেশ কিছু ঘোষণা করে দেখে নিন সেগুলো কি কি..

করোনার মোকাবিলায় বিশাল পরিমাণ অর্থ বরাদ্দ করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। জাতির উদ্দেশে ভাষণে মঙ্গলবার নমোর ঘোষণা, করোনা আক্রান্তদের চিকিত্সায় ১৫ হাজার কোটি টাকা খরচের অনুমোদন দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। ওই টাকা খরচ হবে স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে। ওই টাকায় আইসোলেশন ওয়ার্ড, কিট, ভেন্টিলেটরের সংখ্যা দ্রুত বাড়ানো হবে।  শুরু হবে মেডিক্যাল ও প্যারামেডিক্যাল ট্রেনিংয়ের কাজ।

স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া ‘কোভিড-১৯ এমারজেন্সি ক্রেডিট লাইন’ নামে একটি নতুন ঋণ ইতিমধ্যেই চালু করেছে। ইতিমধ্যেই এসবিআই তার সমস্ত শাখায় এই মর্মে নির্দেশ পাঠিয়ে দিয়েছে। দেশের বৃহত্তম ব্যাঙ্ক ৭.২৫ শতাংশ হারে ফিক্সড সুদের ভিত্তিতে ঋণ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই ঋণ প্রকল্প চলবে ৩০ জুন পর্যন্ত। ব্যাঙ্কের সমস্ত স্ট্যান্ডার্ড অ্যাকাউন্ট হোল্ডার এই ঋণের সুবিধা নিতে পারবেন। সর্বাধিক ২০০ কোটি টাকা ঋণ পাওয়া যাবে। স্টেট ব্যাঙ্কের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, করোনাভাইরাস সংক্রমণের জেরে দেশের বিমান ব্যবস্থা, পর্যটন, পরিবহণ-সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে ব্যবসায়ীরা ক্ষতির মুখ দেখছেন। তাদের পাশে দাঁড়াতেই এই জরুরি ভিত্তিক ঋণ প্রকল্পটি আনা হল।

এবার আপনি যেকোনো এটিএম থেকে যেকোনও ব্যাঙ্কের এটিএম কার্ড থেকে যতখুশি টাকা তুলতে পারবেন এবং এর জন্য আপনাকে কোনও বাড়তি টাকা দিতে হবে না। হোম ব্যাংক এটিএম এর সীমারেখা আগামী তিন মাসের জন্য তুলে দেওয়া হল। সাথে ডেবিট কার্ডের গ্রাহকেরা যে কোনোও ব্যাঙ্ক থেকে আগামী ৯০ দিন টাকা তুলতে পারবেন।

আরও পড়ুন :- কোথায় কোথায় লকডাউন, কি কি বন্ধ থাকবে, কি কি খোলা থাকবে

অর্থমন্ত্রী জানিয়েছেন, ডেবিট কার্ডের গ্রাহকেরা যে কোনও ব্যাঙ্ক থেকে আগামী ৯০ দিন বিনা চার্জে যতখুশি টাকা তুলতে পারবেন। এর আগে হোম ব্যাঙ্কের বাইরে অন্য ব্যাঙ্কের এটিএম থেকে তিন বারের বেশি টাকা তুললে, চার্জ দিতে হত। হোম ব্যাঙ্ক এটিএম-এর সর্বোচ্চ সীমা ছিল ৫। সেই সীমারেখা আগামী তিন মাসের জন্য তুলে দেওয়া হল। আগামী তিন মাসের জন্য কোনও ব্যাঙ্কেই মিনিমাম ব্যালান্স রাখা বাধ্যতামূলক হচ্ছে না।

আধার কার্ডের সাথে প্যান কার্ডের লিঙ্ক করার শেষ সময়সীমা ছিল ৩১ মার্চ। সেটি বাড়িয়ে ৩০ জুন করা হল। ২০১৮-১৯ আর্থিক বছরের আয়কর জমা দেওয়ার সময়সীমা ছিল ৩১ মার্চ। কেন্দ্র তা বাড়িয়ে করল ৩০ জুন। আগে দেরিতে আয়কর জমা দেওয়ার সুদ ছিল ১২% যা এখন কমে হল ৯% অর্থাৎ ৩% কমানো হলো।

আরও পড়ুন :- করোনার পর চিনে এল নতুন ভাইরাস, হান্টাভাইরাস কি, কীভাবে ছড়ায়

যেকোনো পণ্য পরিষেবার ট্যাক্স রিটার্ন করার সময়সীমা বাড়ানো হলো। নতুন সময় সীমা ৩০ জুন পর্যন্ত। এছাড়াও যাদের বার্ষিক আয় ৫ কোটির নীচে এমন মাঝারি ও ক্ষুদ্র শিল্পের জিএসটি দাখিলে ছাড় দেওয়া হবে। নির্ধারিত সময়সীমার পর সেই সংস্থাগুলো জিএসটি দাখিল করলে জরিমানা খাতে অতিরিক্ত সুদ দিতে হবে না। এর ফলে ক্ষুদ্র-অতি ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পে কিছু সুরাহা মিলবে। ৫ কোটির উপরে যাদের বার্ষিক আয় তাদের লেট ফি হিসেবে ৯% সুদ হিসেবে জরিমানা ধার্য হবে। মার্চ-মে, ত্রৈমাসিকে জিএসটি পরিশোধের সময় ৩০ জুন পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।