অভিষেকের বাড়িতে CBI, জিজ্ঞাসাবাদের মুখে স্ত্রী-শ্যালিকা, চাঞ্চল্যকর তথ্য CBI-এর হাতে

এবার সিবিআইয়ের নিশানায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Abhishek Banerjee) স্ত্রী রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায় (Rujira Bannerjee)। সূত্র থেকে জানা যাচ্ছে একাধিক দেশে একাধিক ব্যাংক অ্যাকাউন্ট রয়েছে তার। এছাড়াও সিবিআই সূত্রের খবর রুজিরার অ্যাকাউন্ট থেকে তার বোন মনিকার একাউন্টে পাঠানো হতো টাকা। রুজিরার সাথে তার বোন মনিকার গম্ভীরের আনন্দপুর এর বাড়িতেও পাঠানো হয়েছে নোটিশ। জানা যাচ্ছে রবিবারই হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল রুজিরাকে।সোমবার দ্বিতীয়বার নোটিশ দেওয়া হবে বলে জানা যাচ্ছে সিবিআই সূত্রে।

সিবিআই সূত্রে খবর প্রত্যেক মাসে রুজিরার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা পাঠানো হতো মনিকার একাউন্টে।তাকেও জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায় সিবিআই গোয়েন্দারা।সোমবার তার বাড়ি যাওয়ার কথা সিবিআই আধিকারিকদের। তবে শুধু অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় স্ত্রীই নন, কয়লা কাণ্ডে যুব তৃনমূলের অন্যতম পদাধিকারী বিনয় মিশ্রও যুক্ত আছেন। সিবিআই সূত্রের দাবি এ ঘটনায় মধ্যস্থকারী ছিলেন শ্রীরামপুরের চার্টার্ড একাউন্টেন্ট নীরজ সিং।এই কাণ্ডে নাম উঠে এসেছে অনুপ মাঝিরও।

সিবিআই সূত্রে দাবি করা হচ্ছে রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাইরের দেশে আছে ৪টি অ্যাকাউন্ট যার মধ্যে দুটি আছে থাইল্যান্ডে এবং ইংল্যান্ডে।এছাড়া আরও দুটি অ্যাকাউন্টে ভারতের অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা যেত বেআইনি ভাবে। তবে সিবিআই এর এই নোটিশ নিয়ে মুখ্য বিরোধী দল বিজেপিকে আক্রমন করেছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি টুইট করে তার স্ত্রীর নামে আসা নোটিশের কথা স্বীকার করলেও স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, এই বিষয় নিয়ে তাকে অযথা ভয় দেখানো যাবেনা। আইনের ওপর তার পূর্ন বিশ্বাস আছে বলেও জানিয়েছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

সিবিআই-য়ের নোটিসের আজ জবাব দিয়েছেন রুজিয়া নারুলা। মঙ্গলবার সকাল ১১টা থেকে ৩টে পর্যন্ত রুজিরা নারুলা সময় দিয়েছেন বলে সিবিআই সূত্রে খবর। জানা গিয়েছে, তদন্তকারী অফিসার উমেশ কুমারকে উদ্দেশ্য করে রুজিরা লিখেছেন, কেন তাঁকে নোটিস দেওয়া হল তা তাঁর জানা নেই। তবে, সকাল ১১ থেকে ৩টের মধ্যে বাড়িতে এসে বয়ান রেকর্ড করা যেতে পারে।

প্রসঙ্গত, রবিবার দুপুরে কালীঘাটে তৃণমূল যুব সভাপতির বাসভবন শান্তিনিকেতন রেসিডেন্সিতে পৌঁছে যান কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার পাঁচ আধিকারিক। তবে সেই সময় রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায় নারুলা বাড়িতে ছিলেন না বলেই জানতে পারেন তাঁরা। এরপর তদন্তকারী অফিসারের মোবাইল নম্বর দিয়ে আসেন সিবিআই আধিকারিকরা। জানা গিয়েছে, অভিষেকের স্ত্রীকে এই মামলায় বাড়িতেই জিজ্ঞাসাবাদ করতে আগ্রহী সিবিআই। সিবিআই সূত্রে জানা যাচ্ছে, এই মামলায় ফৌজদারী আইনের ১৬০ ধারায় সাক্ষী হিসাবে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চান গোয়েন্দারা।