পরিবারের কেউ করোনা আক্রান্ত হলে বাকিদেরও কি করোনা হতে পারে?

প্রতিনিয়ত বেড়েই চলেছে করোনা সংক্রমণের সংখ্যা। এর মধ্যে অনেক ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে প্রথমে বাড়ির একজন সদস্যের মধ্যে সংক্রমণ দেখা যাচ্ছে এবং তারপর বাড়ির বাকিরাও আক্রান্ত হচ্ছেন। তবে কিছু ক্ষেত্রে আবার এর ব্যতিক্রমও চোখে পড়ছে। স্বাভাবিক ভাবেই মানুষের মনে প্রশ্ন উঠছে যে তাহলে কি বাড়ির একজন সদস্যের সংক্রমণ হওয়া মানেই সবারই সংক্রমণ হবে?

চিকিৎসকদের মতে এই বিষয় নিশ্চিত করে কোনো কিছু বলা যায়না। অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে আক্রান্ত ব্যাক্তির সাথে এক বাড়িতে থেকেও বাকি সদস্যরা আক্রান্ত হননি। সম্প্রতি ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ গান্ধিনগরের জনস্বাস্থ্য দফতরের পক্ষ থেকে একটি সংবাদপত্রে প্রকাশিত তথ্য থেকে জানা যাচ্ছে একই বাড়িতে থেকেও সংক্রমণ ছড়ায়নি এমন ঘটনাই ঘটছে বেশি (৮০-৯০%)।

অনেকেই অবশ্য মনে করেন যে পরিবারের একজনের সংক্রমণ হলে বাকি সদস্যদের সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি থাকে ১০০%। প্রথমদিকে সেরকমই ধারণা করেছিলেন প্রায় সবাই, কিন্তু সেই সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হচ্ছে যে করোনা আক্রান্ত হয়ে একজন সদস্যের মৃত্যু হয়েছে কিন্তু বাকিদের মধ্যে সংক্রমণ ঘটেনি এরকম পরিবারও আছে।

আরও পড়ুন :- ফ্রীজের মাধ্যমে কি করোনা ভাইরাস ছড়ায়? কি বলছেন বিশেষজ্ঞরা

সংস্থার ডিরেক্টর দিলীপ মাভালঙ্কার জানান যে তারা এই সমীক্ষা করেছেন পুরো বিশ্বের ১৩ টি গবেষণাপত্রের ওপর নির্ভর করে। গবেষণায় দেখা যাচ্ছে ৮০%-৯০% ক্ষেত্রেই একই পরিবারে একজন সদস্য করোনা আক্রান্ত হলেও বাকিরা সুস্থ থাকছেন। তার মতে এক্ষেত্রে দুটি কারন হতে পারে, প্রথমত পরিবারের বাকি সদস্যদের শরীরে কোনরকম রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হচ্ছে বা দ্বিতীয়ত, তারা ভাইরাসের সামনে বিশেষ উন্মুক্ত নন।

আরও পড়ুন :- আপনি করোনা আক্রান্ত হয়েছেন কিনা বুঝবেন কীভাবে

এই সমীক্ষাটি যে ১৩ টি গবেষণা নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে তার মধ্যে একটি পেপারের নাম Secondary Attack Rate of COVID-19। যেখানে জানানো হয়েছে পরিবারের মধ্যে একজন আক্রান্ত সদস্যের থেকে অন্যজনের আক্রান্ত হওয়ার পরিসংখ্যান ১০% থেকে ১৫% পর্যন্ত। বাকি যে পেপার গুলি ছিল সেগুলো একসাথে মেলালেও দেখা যাচ্ছে সেই পরিসংখ্যান সর্বোচ্চ ৩০ শতাংশ হচ্ছে।

আরও পড়ুন :- কীভাবে করোনা টেস্ট করা হয়, করোনা টেস্ট কত রকমের ও কি কি

স্বামী স্ত্রীর মধ্যে করোনা সংক্রমণ নিয়ে সমীক্ষা করার পরে দেখা গেছে একই বিছানায় শুয়েছেন, এমন স্বামী স্ত্রীর মধ্যেও করোনা সংক্রমণ ১০০% না বরং তা ৪৫% – ৬৫%। সুতরাং এক বাড়িতে থাকলেই সংক্রমণ ঘটবে এই চিন্তাটা থেকে কিছুটা রেহাই পেতেই পারেন মানুষ।