ভিডিও এডিটিং করায় তুলোধনা ইমরানকে! সমালোচনার ঝড় সোশ্যাল মিডিয়ায়

936

অভিনন্দনকে ভারতের হাতে তুলে দিয়ে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান নিজেদেরকে শান্তির দূত হিসাবে প্রমাণ করতে মরিয়া ছিলেন। কিন্তু শেষ মুহূর্তে সেই অভিপ্রায় ধুলোয় মিশে গেল। উইং কমান্ডার অভিনন্দনকে ভারতের হাতে তুলে দেওয়ার পরে পাকিস্তানের মিডিয়া একটি ভিডিও প্রকাশ করে। প্রকাশ করা সেই ভিডিওটিতেই দেখেই বোঝা যাচ্ছে পাকিস্তানের পরিকল্পনার কথা। ভিডিও অনুযায়ী অভিনন্দন পাক সেনার গুণগান করছেন। শুধু গুণগানই নয়, পাশাপাশি ভারতীয় মিডিয়ার নিন্দা করছেন এই বলে যে, ভারতীয় মিডিয়ায় নাকি সবকিছু ফুলিয়ে-ফাঁপিয়ে দেখায়। কিন্তু এই ভিডিওর সত্যতা কতটা! সেটা ধরা পড়ে যায় তাদের ভিডিও এডিটিং-এ।

ভিডিওটি পাকিস্তানি মিডিয়ায় আপলোড করার পর ভাইরাল হয়ে যায় একথা সত্য। ভাইরাল হওয়ার পরই ভারতীয়দের মধ্যে প্রশ্ন ওঠে ভিডিও বলা অভিনন্দনের বলা কথাগুলির সত্যতা নিয়ে। কারন ভিডিওটি পোস্ট করার আগে ভালো করে এডিট করা হয়েছিল। ভালো করে এডিট করা বললে ভুল হবে, কারণ যেভাবে ভিডিওটি বা যে সফটওয়্যারের মাধ্যমে ভিডিওটি তৈরি করা হয়েছে, ভিডিওটি দেখে স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে ভিডিওটি কম করে ২০ বার কাটছাঁট করা হয়েছে। আর তারপরই ভারতীয় ট্রলের মুখে পাকিস্তান।

মস্করা করে ট্যুইটারে পাকিস্তানকে ভালো এডিটিং সফটওয়ার কেনার পরামর্শ দিয়েছেন তারা৷ তাই এই ভিডিও শেয়ার না করার আবেদনে অনেকে ট্যুইট করেন৷

যে ভিডিওটি প্রকাশ করা হয়েছে সেটি দেখা যাচ্ছে, অভিনন্দন বলছে, ‘আমার নাম অভিনন্দন ভর্তমান। আমার বিমানটিকে নামানো হয়েছিল গুলি করে৷ তারপর প্যারাশুটে করে আমি নিচে নেমে আসি৷ স্থানীয় উত্তেজিত জনতা আমাকে লক্ষ্য করে আমার দিকে ছুটে আসে৷ তাদেরকে থামাতে আত্মরক্ষার জন্য আমি আমার নিজের সার্ভিস রিভলবার ছুঁড়ে ফেলে দিই৷ এরপর উত্তেজিত জনতা আমাকে ঘিরে ধরে, আমার উপর চড়াও হয়৷ পাকিস্তানের দুইজন সেনা অফিসার সেসময় ওই জায়গায় এসে সেখান থেকে আমাকে উদ্ধার করে৷ পাকিস্তানের সেনা পেশাদার সেনা৷ আমি পাক সেনাদের হেফাজতে শান্তিতেই ছিলাম৷’

Read More : অভিনন্দন কে হস্তান্তরে দেরি! জোর করে স্বীকারোক্তি ভিডিও তৈরি করল পাকিস্তান

এই কথাগুলি বলার পরই উইং কমান্ডার অভিনন্দনকে বলতে শোনা যায়, ভারতীয় মিডিয়া সমস্ত কিছু কে ফুলিয়ে-ফাঁপিয়ে দেখায়। পুরো ভিডিও টির মধ্যে ২০টি জায়গা কেটে ফেলা হয়েছে।

সূত্রের খবর আরো যে, এরকম ভিডিও বানিয়ে ধাপে ধাপে ছাড়া হবে ভিডিও পাকিস্তানের তরফ থেকে। এ প্রসঙ্গে আরো বলে রাখা ভালো, জেনেভা চুক্তি অনুসারে বারবার অভিনন্দনকে দিয়ে ভিডিও শ্যুট করানোয় চুক্তির ১৩ নম্বর ধারা লঙ্ঘন করেছে পাকিস্তান।