মেয়ে দেখলেই ছুকছুকে স্বভাব, ফুলশয্যার রাতে তিথি-রুদ্রিকের হুলুস্থূল কান্ড, রইলো ভিডিও

এইতো মাত্র ক’দিন হলো স্টার জলসার (Stat Jalsha) পর্দায় শুরু হয়েছে নতুন ধারাবাহিক বরণ (Boron)। আর মাত্র কয়েক মাসের মধ্যেই নতুন ধারাবাহিককে বরণ করে নিলেন দর্শকেরা। অপদার্থ রুদ্রিককে ধীরে ধীরে মানুষ করে তুলছে তিথি। তিথির এই সফরে সঙ্গী হয়েছেন দর্শকও। রুদ্রিক -তিথির (Rudrik-Tithi) মিষ্টি প্রেমের কাহিনীতে মন মজেছে দর্শকের। ধারাবাহিকের টিআরপিও তাই তরতরিয়ে বাড়ছে।

ধারাবাহিকে নায়রা-রুদ্রিকের বিয়ের পর্ব থেকেই চলছে একের পর এক টুইস্ট। বিয়েতে সিঁদুরদানের সময় নায়রার পরিবর্তে তিথির সিঁথিতে সিঁদুর তুলে দেয় রুদ্রিক। রুদ্রিকের এই কাজে বেজায় চটে যায় তিথি। এই বিয়েতে সম্পূর্ণ ঘটনাটাই যে পূর্বপরিকল্পিত ছিল তা মোটেও টের পায়নি সে। শেষমেষ বাড়ি ছেড়েই চলে যেতে চাইছিল তিথি। কিন্তু পরিবারের সকলের বোঝানোতে কিছুটা নরম হয়েছে সে। কিন্তু রুদ্রিকের প্রতি তার রাগ কমেনি।

ঠাম্মির কথায় তিথি একপ্রকার মেনে নিতে বাধ্য হয় যে সে রুদ্রিকের বউ। এই সম্পর্ককে সে অস্বীকার করতে পারবে না। তিথি এবং রুদ্রিকের মধ্যে কথা কাটাকাটি হতে হতে বিষয়টা এখন রীতিমতো মারামারির পর্যায়ে পৌঁছে গিয়েছে। তবে নবদম্পতির এমন খুনসুটি দেখে দর্শকের চোখ জুড়িয়েছে। তবে দর্শকের জন্য চমকের এখনও কিছু বাকি আছে। কারণ তিথি এবং রুদ্রিকের জমজমাট ফুলশয্যা পর্ব এখনো বাকি।

সম্প্রতি প্রকাশ্যে এসেছে ধারাবাহিকের নতুন প্রোমো। সেই প্রোমোতে দেখা যাচ্ছে বিয়ের থেকেও বড় হুলস্থুল কাণ্ড ঘটতে চলেছে তিথি এবং রুদ্রিকের ফুলশয্যায়। কারণ ফুলশয্যার ঘরেও বাকবিতণ্ডায় জড়িয়েছে দুটিতে। প্রোমোতে দেখা যাচ্ছে তিথিকে কোলে তুলে নিয়েছে রুদ্রিক। আর রুদ্রিকের কোলে চেপে আরও বেশি রেগে গিয়েছে তিথি। সে রুদ্রিককে বলছে মেয়ে দেখলেই ছুকছুকানি বাতিক আছে রুদ্রিকের! সে নাকি মেয়ে দেখলেই তাদের ‘টাচ’ করতে চায়!

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Star Jalsha (@starjalsha)

 উল্লেখ্য, বিয়ের পর রুদ্রিককে তিথি শর্ত দেয় সে তার বউ হিসেবে থাকবে, কিন্তু তাকে ‘টাচ’ করতে পারবে না। এদিকে ফুলশয্যার রাতেও তিথির বকুনি খেয়ে তাকে খাটের উপরেই ছুঁড়ে ফেলে দেয় রুদ্রিক। এরপর তিথি রাগে গজগজ করতে করতে ঘর ছেড়ে বেরিয়ে যায়। সে বলতে থাকে, “ওর মতো একটা চরিত্রহীন লম্পটের সাথে আমি ঘর করতে পারবো না।” নতুন প্রোমো দেখে দর্শকরা বেশ মজা পাচ্ছেন। তারা এই ভেবে স্বস্তি পাচ্ছেন যে ফুলশয্যার রাতে ক্ষণিকের জন্য হলেও তিথিকে ‘টাচ’ তো করবেই রুদ্রিক।