বলিউডের নোংরামির শিকার, রাগে অভিনয় ছেড়ে অক্ষয় কুমারের নায়িকা এখন বৌদ্ধ ভিক্ষুক

যোগ্যতা থাকলেও জুটেছে লাঞ্ছনা, এক বুক হতাশা নিয়ে বলিউড ছাড়লেন এই মডেল অভিনেত্রী

বলিউডে (Bollywood) এমন অনেক তারকার আগমন হয়েছিল যারা একটি বা দুটি ছবিতে দারুন জনপ্রিয়তা পেলেও পরে আর কোনও ছবিতে অভিনয় করার সুযোগ পাননি। এমনই একজন অভিনেত্রী ছিলেন বরখা মদন (Barkha Madan)। অক্ষয় কুমার, অজয় দেবগনদের ছবির অভিনেত্রী হওয়া সত্ত্বেও বলিউডে সেভাবে জায়গা পেলেন না বরখা। একটা সময় পর তিনি বলিউড থেকে হারিয়েই গেলেন।

বরখার কেরিয়ার শুরু হয়েছিল মডেলিং দিয়ে। ১৯৯৪ সালে সুস্মিতা সেন, ঐশ্বর্যা রাইরা যে সৌন্দর্য প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হয়েছিলেন, বরখা ছিলেন সেই প্রতিযোগিতার রানার আপ। পরে তিনি আরও অনেক সৌন্দর্য প্রতিযোগিতায় অংশ নেন। সেখান থেকেই পরে বলিউডে সুযোগ পেয়ে যান তিনি। কিন্তু তারপর কোথায় হারিয়ে গেলেন বরখা?

১৯৯৬ সালে অক্ষয় কুমার, রেখা, রবীনা ট্যান্ডন অভিনীত ছবি ‘খিলাড়িও কা খিলাড়ি’ মুক্তি পেয়েছিল। ছবিটি বক্স অফিসে তুমুল সাফল্য পায়। এই ছবিতেই প্রথমবার অভিনয়ের সুযোগ পেয়েছিলেন বরখা। তবে ছবিটি অনেক জনপ্রিয়তা পেলেও বরখার উপর প্রচারের আলো এসে পড়েনি। ওই বছরই ‘ড্রাইভিং মিস পালমেন’ নামের একটি ইন্দোডাচ ছবিতে অভিনয় করেছিলেন বরখা।

এরপরেও ঠিক সেভাবে জনপ্রিয়তা আসছিল না তার ঝুলিতে। তবে ২০০৩ সালে রাম গোপাল ভার্মার নজরে পড়তেই তার ভাগ্য ঘুরে যায়। অজয় দেবগন, উর্মিলা মাতন্ডকরের সঙ্গে ‘ভূত’ ছবিতে তিনি অভিনয় করেন। ছবিতে ভূতের চরিত্রে অভিনয় করে তিনি তাক লাগিয়ে দেন। এরপর বলিউডে তার অনেক সুখ্যাতি হয়েছিল। কিন্তু তাতেও তার ভাগ্য ফিরলো না।

আসলে অভিনেত্রী বুঝতে পেরেছিলেন যে বলিউডে টিকে থাকতে হলে উপর মহলের সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে হবে। ‘ভূত’ ছবির পর অবশ্য আরও কয়েকটি হিন্দি ছবিতে অভিনয় করার সুযোগ এসেছিল তার হাতে। তবে সেই ছবিগুলো ততটা সফল ছিল না। বলিউডে সফলতা না পেয়ে তিনি হিন্দি ধারাবাহিকে অভিনয় করতে শুরু করেন। হিন্দি ধারাবাহিক থেকে তিনি তুমুল জনপ্রিয়তা পান।

কিন্তু এখানেও বেশি দিন সুখ সইলো না তার কপালে। প্রথম প্রথম কাজ পেলেও পরে হিন্দি টেলিভিশনের দুনিয়াও তার থেকে মুখ ফিরিয়ে নেয়। এই সময় কাজের অভাবে মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছিলেন বরখা। তিনি নিজেই একটি প্রযোজনা সংস্থা চালু করে ‘সোচ লো’, ‘সুরখাব’ নামের দুটি হিন্দি ছবি প্রযোজনা করেন। তবে তাতেও বিশেষ সফলতা জোটেনি।

এই সময় কাজের ফাঁকে ফাঁকে তিনি অনেক বৌদ্ধ মঠ পরিদর্শন করতে থাকেন। বৌদ্ধ ধর্ম, মঠের পরিবেশের প্রতি তার আকর্ষণ বাড়তে থাকে। বৌদ্ধ ধর্মের দিকেই এরপর ঝুঁকতে শুরু করেন অভিনেত্রী। এখন তার জীবনযাত্রা পুরোপুরি বদলে গিয়েছে। বিলাসিতা ছেড়ে তিনি একজন বৌদ্ধ ভিক্ষু হয়ে দিন কাটাচ্ছেন। বলিউডের সঙ্গে আর তার কোনও সম্পর্ক নেই। এমনকি নিজের নামটাও বদলে ফেলেছেন অভিনেত্রী। এখন তার নাম গ্যালটেন স্যামটেন। তিনি তার নতুন জীবনেই সুখী।