একথালা ভাত নিমিষে হবে ফাঁকা, পাতে যদি থাকে শুধু মসুর ডালের এই রেসিপি একা

শুধু মসুর ডাল দিয়ে তৈরি এই রেসিপি দিয়েই উঠে যায় একথালা ভাত, স্বাদের কাছে মাছ-মাংসও ফেল

রোজদিন মাছ-মাংস কিংবা শাকসবজি খেতে খেতে বিরক্তি এসে গেলে মাঝেমধ্যে একটু অন্য ধরনের স্বাদও পেতে চায় বাঙালির জিভ। বাঙালির পাতে হরেক রকমের পদের পাশাপাশি ডাল তো থাকেই। আজ এই প্রতিবেদনে মসুর ডালের এমন একটি রেসিপির হদিশ রইল যেটা দিয়ে একথালা ভাত নিমেষেই উঠে যাবে। জেনে নিন কিভাবে অল্প কিছু উপকরণে খুব সহজেই বানিয়ে ফেলতে পারবেন মসুর ডালের ভর্তা (Masoor Daler Vorta)।

মসুর ডালের ভর্তা বানানোর জন্য প্রয়োজনীয় উপকরণ : বাড়িতে শাকসবজি কিছুই না থাকলে স্রেফ মসুর ডালের ভর্তা দিয়েই দুপুরের লাঞ্চ কিংবা রাতের ডিনার জমে যাবে। এই রান্নার জন্য প্রয়োজন হবে মুসুরির ডাল, তেল, শুকনো লঙ্কা, রসুন, টমেটো, নুন, হলুদ গুঁড়ো, জল, পেঁয়াজ কুচি, ধনেপাতা কুচি, সর্ষের তেল।

মসুর ডালের ভর্তা বানানোর পদ্ধতি : প্রথমে একটি পাত্রে ১/২ কাপ মসুরির ডাল নিয়ে ২-৩ বার জল দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে। এবার জল ঝরিয়ে ভেজানো মসুর ডাল একটি পাত্রের মধ্যে তুলে রেখে দিতে হবে। এবার কড়াইতে তেল গরম করে শুকনো লঙ্কা ভেজে নিতে হবে। লঙ্কা ভেজে তুলে নেওয়ার পর অল্প থেঁতো করে নিয়ে চার থেকে পাঁচ কোয়া রসুন এবং সেই সঙ্গে ১টি মাঝারি সাইজের টমেটো কুচিয়ে ১-২ মিনিট কড়াইতে ভেজে নিতে হবে।

রান্নার পরের ধাপে জল ঝরিয়ে রাখা মুসুরির ডাল কড়াইতে দিয়ে স্বাদ অনুযায়ী নুন এবং ১/২ চামচ হলুদ গুঁড়ো ও পরিমাণ অনুযায়ী জল দিয়ে সমস্ত উপকরণ ভাল করে মিশিয়ে ঢাকা দিয়ে ডাল সেদ্ধ হওয়া পর্যন্ত রান্না হতে দিতে হবে। এবার অন্য একটি পাত্রে বেঁধে রাখা শুকনো লঙ্কার মধ্যে সামান্য নুন যোগ করে ভেঙে গুঁড়িয়ে নিতে হবে। সেই সঙ্গে একটা বড় সাইজের পেঁয়াজ কুচিয়ে মেখে নিতে হবে এর সঙ্গে।

ডাল সেদ্ধ হয়ে এলে কড়াইয়ের ঢাকা সরিয়ে আঁচ বাড়িয়ে কিছুক্ষণ নেড়েচেড়ে ডালের জল শুকিয়ে নিন। তারপর গ্যাস বন্ধ করে কিছুক্ষণ ঠান্ডা হতে দেওয়ার জন্য অপেক্ষা করুন। ডাল ঠান্ডা হয়ে এলে আগে থেকে মেখে রাখা শুকনো লঙ্কা এবং পেঁয়াজ কুচির মধ্যে সেদ্ধ ডাল মিশিয়ে আবার খুব ভাল করে মেখে নিতে হবে। তার জন্য কিছু পরিমাণ ধনেপাতা কুচি এবং দুই টেবিল চামচ সরষের তেল যোগ করুন।

সমস্ত উপকরণ এবার হাতের সাহায্যে ভাল করে মেখে নিলেই রেডি মসুর ডালের ভর্তা। ভাতের সঙ্গে তো এই রেসিপি খেতে দুর্দান্ত লাগেই সেই সঙ্গে রুটি, পরোটা কিংবা লুচির সঙ্গেও খেতে দারুণ লাগে এই মসুর ডালের ভর্তা। খুব সহজে মাত্র ১০ মিনিটের মধ্যেই চট করে হয়ে যায় রান্নাটা। এইভাবে বানালে ৮ থেকে ৮০ সবাই খুশি মনে আঙ্গুল চেটে খাবে।