বন্ধ হয়ে যাচ্ছে ‘জি বাংলা’, কী হবে মিঠাই, গৌরী, লক্ষ্মী কাকিমাদের ভবিষ্যৎ

এক বছরের মধ্যেই বন্ধ হয়ে যাবে জি বাংলা, কি হবে চ্যানেলের সমস্ত সিরিয়ালের ভবিষ্যৎ

বিগত প্রায় ১০ বছরেরও বেশি সময় ধরে জি বাংলা (Zee Bangla), স্টার জলসাই বাংলার মানুষের কাছে বিনোদনের অন্যতম প্রধান মাধ্যম হয়ে উঠেছে। দূরদর্শনের পর বাংলা টেলিভিশনে আরও অন্যান্য অনেক বেসরকারি চ্যানেলের আবির্ভাব হয়েছিল। এর মধ্যে বেশ কিছু চ্যানেল বন্ধ হয়ে গিয়েছে। তবে স্টার জলসা, জি বাংলা এপর্যন্ত রমরমিয়েই চলেছে। কিন্তু এবার বন্ধ হওয়ার মুখে জি বাংলা।

হ্যাঁ, ঠিকই পড়ছেন। খুব শীঘ্রই বন্ধ হতে চলেছে বাংলার অন্যতম প্রথম সারির চ্যানেল জি বাংলা। ইতিমধ্যেই এই সংক্রান্ত প্রস্তুতি শুরু হয়ে গিয়েছে। পুজোর আগেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়ে গিয়েছে। জি কোম্পানি এবার সোনি কোম্পানির সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে। পুজোর আগেই চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেছে এই দুই কোম্পানি নিয়ে। এর ফলে বড়সড় চিন্তার মুখে পড়তে চলেছেন জি বাংলার সিরিয়ালের নির্মাতারা।

 

জি বাংলা এবং সোনি এখন একত্রে মিলিত হয়ে গেল। সোনি আটে এখন ছোটদের জন্য কার্টুন সিরিজের সম্প্রচার হয়। দুই চ্যানেলের মিলনের ফলে এবার একটি নতুন চ্যানেল তৈরি করা হবে। নব নির্মিত এই চ্যানেলেই জি বাংলার সমস্ত ধারাবাহিক এবং সোনি আটের সমস্ত কার্টুন সিরিজ শিফট করা হবে বলে জানা যাচ্ছে।

এই খবর আসতেই উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন দর্শকরা। সোশ্যাল মিডিয়াতে ইতিমধ্যেই ছড়িয়ে পড়েছে এই খবর। উল্লেখ্য এর আগেও স্টার ইন্ডিয়া ডিজনি কোম্পানির সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়ে এরকমই এক সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। যার ফলে হটস্টারের নাম বদলে নতুন নাম হয়েছিল ডিজনি প্লাস হটস্টার। এক্ষেত্রেও কি তেমনটাই কিছু হবে নাকি আরও কিছু বড় পরিবর্তন হবে? প্রশ্ন জাগছে দর্শকদের মনে।

যদিও দর্শকদের একাংশ দাবী করছেন এই পরিবর্তনের ফলে জি বাংলার নাম বদলাবে না। খুব বেশি কিছু হলে হয়তো জি বাংলার লোগো পরিবর্তিত হতে পারে। প্রধানত ব্যবসার উপর জোর দিয়েই ধরনের পরিবর্তন আনা হচ্ছে। এর ফলে ব্যবসা থেকে যতটুকু লাভ হবে তার মধ্যে ৫৫% সোনি নেটওয়ার্ক এবং ৪৫% জি নেটওয়ার্ক নিজেদের মধ্যে ভাগাভাগি করে নেবে।

অতএব মিঠাই, গৌরী, জগধাত্রী বা জি বাংলার অন্যান্য সিরিয়ালের ভক্তদের এখনই আতঙ্কিত হওয়ার কোনও কারণ নেই। ধারাবাহিকের সম্প্রচার যেমন চলছিল তেমনই চলবে। আর কিছু পরিবর্তন হবে কিনা সেটা জানা যাবে আগামী ২০২৪ সালে। কারণ ২০২৪ সালেই নতুন নাম নিয়ে একত্রে যাত্রা শুরু করবে জি এবং সোনি কর্তৃপক্ষ।