পেঁয়াজ-রসুন ছাড়া নিরামিষ কাঁকরোল রেসিপি! যে খাবে একবার সে চাইবে বারবার

Pur Vora Kankrol Recipe : খেতে মজা বানাতেও সোজা, কাঁকরোলের এই রেসিপি দিয়েই একথালা গরম ভাত উঠে যাবে

Sweet bitter Gourd Recipe : মৌসুমের সবজিগুলোর মধ্যে কাঁকরোল (Kankrol) অন্যতম। কাঁকরোল খেতে অনেকেই পছন্দ করেন না। কিন্তু ভালভাবে রান্না করলে গরম ভাত দিয়ে পুরোটাই সাবড়ে দিতে পারেন অধিকাংশ। কাঁকরোলের কোনও গন্ধ নেই। তাই যেভাবে বানাবেন, তাতেই হবে স্বাদ। নিরামিষ খান (Veg Recipe) যারা, তাদের জন্য নিয়ে এসেছি এক নতুন কাঁকরোল রেসিপি (Kankrol Recipe)। আজ আমরা জেনে নেব পুর ভরা কাঁকরোল (Pur Vora Kankrol Recipe) ভাজা রেসিপি।

তবে রেসিপির আগে আপনাদের জানিয়ে রাখি।কাঁকরোল কিন্তু স্বাস্থ্যের জন্য দারুণ উপকারী। বিভিন্ন রোগ নিয়ন্ত্রণের জন্য কাঁকরোলকে আয়ুর্বেদিক টোটকা হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন। সারা গায়ে কাঁটাযুক্ত এ সবজির বিস্ময়কর পুষ্টি গুণাগুণ রয়েছে। কাঁকরোল ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। কম ক্যালরির ও ফাইবার সমৃদ্ধ খাবার, তাই এটি রক্তের গ্লুকোজের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে। ডায়াবেটিস কমাতে কচি কাঁকরোল জুস করেও খেতে পারেন। এতে করে রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা স্বাভাবিক থাকবে।

Pur Vora Kankrol Recipe

পুর ভরা কাঁকরোল ভাজা বানানোর উপকরণ : চারটি কাঁকরোল, ২ চা চামচ সর্ষে, কাঁচালঙ্কা-২টি, নারকেল কোরা- ৪ চা চামচ, সর্ষের তেল (ভাজার জন্য)-২০০ গ্রাম, লবণ-স্বাদ অনুসারে, হলুদ-এক চতুর্থাংশ চা চামচ, কালো জিরে-আধ চা চামচ, পোস্তদানা- এক চা চামচের চার ভাগের এক ভাগ,চিনি-আধ চা চামচ, বেসন-৫০গ্রাম, চালের গুঁড়ো-৫০ গ্রাম।

পুর ভরা কাঁকরোল ভাজা বানানোর পদ্ধতি : প্রথমে কাঁকরোল গুলো কেটে নিতে হবে। তার জন্য প্রথমে বোঁটার দিক এবং মাথার দিক অল্প কেটে বাদ দিয়ে দু’ ফালি করে কেটে নিতে হবে। এবার কাটা হয়ে গেলে সেগুলো ধুয়ে নিয়ে অল্প নুন দিয়ে ভাপিয়ে নিন। তারপর একটা ছুরি বা কাঁটা চামচ বিঁধিয়ে দেখে নিন সঠিক সেদ্ধ হয়েছে কি না। সেদ্ধ হয়ে গেলে জল ঝরিয়ে রাখুন।

Pur Vora Kankrol Recipe

এরপর সেটি ঠান্ডা হলে চামচ দিয়ে কুরে শাঁস বের করে নিন। এ বার একটি পাত্রে চামচ দিয়ে শাঁসটি ভাল করে চটকে নিন। বীজ পছন্দ না করলে বেছে আলাদা বাদ দিন। দুটো কাঁচালঙ্কা দিয়ে সর্ষেটা বেটে রাখুন। ওই সর্ষে বাটা, নারকেল কোরা, ২ চা চামচ সর্ষের তেল, সামান্য চিনি, লবণ, অল্প কালো জিরে মিশিয়ে ভাল করে সবটা চামচ দিয়ে মিশিয়ে নিন। এ বার ফালি করা চারটে কাঁকরোলের মধ্যে ওই পুর ভরে নিন।

আরও পড়ুন : একঘেয়ে আলুভাতে খেয়ে বিরক্ত, ট্রাই করুন এই নতুন রেসিপি, ভালো না লাগলে পয়সা ফেরত

Pur Vora Kankrol Recipe

আরও পড়ুন : পাকা কলা দিয়ে ৩টি সুস্বাদু মিষ্টির রেসিপি, যে খাবে একবার সে চাইবে বারবার

এরপর একটা পাত্রে বেসন, চালের গুঁড়ো, কালো জিরে, পোস্তদানা, হলুদ, সামান্য চিনি দিয়ে ভাল করে ফেটিয়ে ঘন করে একটি মিশ্রণ তৈরী করুন। একটা কড়াই কিংবা ফ্রাইং প্যানে সর্ষের তেল গরম করতে দিন। তেল গরম হলে ওই পুর ভরা কাঁকরোল মিশ্রণে চুবিয়ে আস্তে করে তেলে ছাড়ুন। গ্যাসে আঁচ কমিয়ে দিন। ঢিমে আঁচে ভাজুন। এক পিঠ হয়ে গেলে উল্টে অন্য পিঠ ভেজে নিতে হবে। কাঁকরোলের গায়ে লালচে-বাদামী রং ধরলে উঠিয়ে টিস্যু পেপারের উপর রাখুন। এতে বাড়তি তেল শুষে নেবে। গরম ভাতের সঙ্গে খেতে চমৎকার লাগবে।