লকডাউনে কী কী বন্ধ থাকছে আর কী কী খোলা, রইলো সম্পূর্ণ তালিকা

আগামীকাল রবিবার থেকে ১৫ দিনের জন্য অর্থাৎ ৩০ শে মে পর্যন্ত রাজ্যে কার্যত লকডাউন জারি করা হলো রাজ্য সরকারের তরফ থেকে। জরুরী পরিষেবার সাথে যুক্ত ছাড়া বাকি সবই বন্ধ রাখার ঘোষণা করলো রাজ্য সরকার।

বন্ধ থাকবে জরুরি পরিষেবার সাথে যুক্ত অফিস কাছারি, দোকানপাট এবং যানবাহন ছাড়া সমস্ত কিছু। পাশাপাশি রাত্রি ৯টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত সাধারণ মানুষের যাতায়াত বন্ধ।

কার্যত লকডাউনে যা যা বন্ধ থাকছে

রাজ্যের সমস্ত সরকারি এবং বেসরকারি অফিস, স্কুল কলেজ বন্ধ থাকবে। পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী শপিংমল, রেস্টুরেন্ট, বার, সুইমিংপুল, জিম, সিনেমা হল, থিয়েটার বন্ধ থাকবে। লোকাল ট্রেন, বাস, মেট্রো, অটো, ট্যাক্সি এবং ফেরি পরিষেবা সম্পূর্ণ বন্ধ থাকবে।

বন্ধ থাকবে সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানও। বন্ধ, শপিং, রেস্টুরেন্ট, সুইমিং পুল, বিউটি পার্লার বন্ধ। সৎকারের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ২০ জনেরও বেশি জমায়েত করা যাবে না। বিয়ে বাড়িতে ৫০ জনের বেশি জমায়েত করা যাবে না।

বিধিনিষেধ পরিবহনেও। লোকাল ট্রেন, মেট্রো, বাস, লঞ্চ পরিষেবা বন্ধ। বন্ধ পার্ক, চিড়িয়াখানাও। রাজ্যের অন্দরে খাদ্যসামগ্রীর ট্রাক ছাড়া অন্যান্য ট্রাক চলাচল বন্ধ। রাত ৯টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত বাইরে বেরোনো যাবে না।

লকডাউনে যা যা খোলা থাকছে

সমস্ত রকম গণপরিবহন বন্ধ থাকবে আগামী ১৫ দিন। অর্থাৎ বাস, ট্রাম, ট্রেন, প্রাইভেট কার, অটো সহ অন্যান্য যানবাহন আপাতত বন্ধ। স্বাস্থ্য, বিদ্যুৎ, পানীয় জল, সংবাদমাধ্যম, সাফাই কর্ম, পেট্রোল পাম্প, গাড়ির যন্ত্রাংশের জরুরী পরিষেবার দোকান খোলা থাকবে।

বাজার ঘাট, মুদিখানার দোকান খোলা থাকবে সকাল ৭টা থেকে সকাল ১০টা পর্যন্ত। বাকি অন্যান্য সমস্ত দোকান বন্ধ থাকবে। মিষ্টির দোকান খোলা থাকবে সকাল ১০ টা থেকে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত।

মুদিখানা এবং বাজার খোলা থাকবে সকাল ৭টা থেকে ১০টা পর্যন্ত। হোটেল, রেস্তরাঁ আগের মতোই বন্ধ থাকবে। তবে খাবার এবং পণ্য বাড়িতে সরবরাহ করা যাবে। সমস্ত ধর্মীয় এবং রাজনৈতিক সমাবেশ বন্ধ থাকবে।