মানুষের মুখ নিয়ে জন্মাল ছাগল ছানা, ঈশ্বরের কৃপা ভেবে ঘটা করে চলছে পুজো

1489

সোসওয়াল মিডিয়ার দৌলতে আমরা প্রতিদিন দেশের নানান বিচিত্র সব ঘটনার কথা জানতে পারি যেগুলো আমাদের রীতিমতো চমকে দেয়। এই যেমন ধরুন কোনও ছাগলের মুখ যদি হয় মানুষের মত তাহলে চমকে যাওয়াটাই স্বাভাবিক। ঠিক এই ঘটনাটি ঘটছে গুজরাটে। মানুষের মুখ নিয়ে জন্মাল ছাগল ছানা। আর ওই ছাগল ছানাকে দেখে জোর জল্পনা ছড়িয়েছে। সম্প্রতি সোশ্যাল সাইটে এমনই ছবি ভাইরাল হয়েছে।

জানা যাচ্ছে, অদ্ভূত দর্শন ওই ছাগল ছানার মুখে যেমন রয়েছে মানুষের ঠোঁট। এমনকি ওই ছাগল ছানার মুখের ভঙ্গিও অনেকটাই মানুষের মত। শুধু তাই নয়, ওই ছাগল ছানার শরীরের অর্ধেক অংশই নাকি মানুষের মত। অবিশ্বাস্য ঘটনা দেখে হ’তবাক হয়ে গেছে এলাকার মানুষ থেকে সোশ্যাল মিডিয়া।

গুজরাটের সেলটিপাড়া এলাকার এক চাষী অজয় বাসবের বাড়িতে কিছুদিন আগে একটি ছাগলের জন্ম হয়। ছাগলটির মুখ ছাগলের মত নয়। মানুষের মত। এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই বিভিন্ন এলাকা থেকে মানুষ ভিড় জমান ছাগলটিকে দেখার জন্য। কিভাবে এমন অদ্ভুত ঘটনা ঘটলো সেই প্রশ্ন তাদের ঘিরে ধরে। অনেকে আবার ঈশ্বরের কৃপা বলে পূজা অর্চনা শুরু করেন।

ঘটনার পর সেই দৃশ্য আবার সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ার পর সোশ্যাল নাগরিকরা এমন ছবি দেখেও বিস্মিত হন। জন্মানো ওই অদ্ভুত ছাগলটির শরীর অন্যান্য ছাগলের মতই। কিন্তু মুখের মধ্যে রয়েছে মানুষের ভাব। তবে এমন ঘটনা ঘটার কারণ কি?

এ বিষয়ে আমরা ভেটেনারি চিকিৎসা ডাঃ সুমন বেপারীর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, “এই ঘটনা সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক। হয়তো ছাগলটি যখন গর্ভবতী ছিল তখন ধাক্কাতে ভেতরের ফিটাসটি নষ্ট হয়েছে অথবা বিজ্ঞানের ভাষায় যেটিকে বলে জায়গনস্টিক ফিটাস। অর্থাৎ ফিটাসটি বড় হয়ে যাবে, স্বাভাবিকের মত আকার আকৃতি কিছু থাকবে না।” অর্থাৎ মিউটেন্টের কারণে এমনটা ঘটতে পারে। কোনও ভাবে ছাগলে রূপটি বিকৃত হয়েছে।