নদীতে স্নান করতে গিয়ে স্ত্রীর সঙ্গে অশ্লীলতা, শুঁটিয়ে লাল করে দিল প্রত্যক্ষদর্শীরা

নদীতে প্রকাশ্যে স্ত্রীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা, পাবলিকের হাতে উত্তম মধ্যম পেলেন যুবক

আধুনিকতার সঙ্গে ঐতিহ্য-সংস্কৃতির মিলমিশেই ভারতবর্ষ। পশ্চিমা সভ্যতা থেকে ভারতীয়রা অনেক কিছুই গ্রহণ করেছেন, তবে কিছু কিছু বিষয়ে আজও ভারত তার পুরাতন সংস্কৃতির ধারণা থেকে নড়তে নারাজ। পশ্চিমা দেশগুলোতে নারী পুরুষের ঘনিষ্ঠতা অস্বাভাবিক কিছু নয়, কিন্তু ভারতে তেমন কিছু ঘটতে দেখলেই রে রে করে ওঠে জনতা। তা সে স্বামী-স্ত্রীই হোন না কেন।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল (Viral Video On Internet) একটি ভিডিও নিয়ে কার্যত শোরগোল পড়ে গিয়েছে সর্বস্তরে। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে অযোধ্যার সরযূ নদীতে স্নানরত অবস্থায় রয়েছেন এক যুগল। স্নান করার সময় স্বামী স্ত্রীকে চুম্বন করেন। এটা দেখেই কার্যত আশেপাশে উপস্থিত জনতা তাদের লক্ষ্য করে ছুটে আসে।

শুধু তাই নয় একেবারে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করে ওই যুবককে রীতিমতো মারধর করতে শুরু করে তারা। ভাইরাল ওই ভিডিওতে রীতিমতো হুমকির সুরে তাদের বলতে শোনা যায়, ‘এটা অযোধ্যা এখানে এসব চলবে না।’ এরপরই তাকে মারধর করা হতে থাকে।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে তার স্ত্রী স্বামীকে বাঁচানোর জন্য ক্ষিপ্ত জনতাকে আটকানোর চেষ্টা করছেন। কিন্তু এতগুলো মানুষের সঙ্গে তারা কিছুতেই পেরে উঠছেন না।। ওই যুবককে রীতিমতো টেনে হিঁচড়ে জল থেকে ডাঙায় তুলে এনেও তার উপর অত্যাচার চালানো হয়।

এই ভিডিও জনৈক ব্যক্তি মোবাইলে রেকর্ড করে সোশ্যাল মিডিয়াতে ছড়িয়ে দেন যা ভাইরাল হয়ে যায়। নামিদামি সেলিব্রিটিরা ভিডিওটি দেখে ওই স্থানে উপস্থিত জনতার সমালোচনা করতে শুরু করেছেন। স্ত্রীকে চুম্বন করা ভারতের সভ্যতা হতে পারে না, অথচ এর জন্য স্বামীকে গণধোলাই দেওয়াটা কি সভ্যতার মধ্যে পড়ে? প্রশ্ন তুলছেন নেটিজেনরা।