সেলিব্রেটি হয়েও ভোলেননি বাঙালি সংস্কৃতি, হাত থেকে শাঁখা-পলা কখনও খোলেন না মধুবনী

সেলিব্রিটি হলেও নেই কোনও অহংকার, হাত থেকে শাঁখা-পলা কখনও খোলেন না মধুবনী

Audience Praised Madhubani Goswami For Wearing Sankha Pola

বাংলা টেলিভিশনের (Bengali Telivision) দৌলতে রাজা-মধুবনী (Raja Goswami and Madhubani Goswami) জুটিকে আজ কে না চেনে? ভালোবাসা ডট কম ধারাবাহিকের ওম-তোড়ার জুটি বাস্তবেও গাঁট ছড়া বেঁধেছেন। এখন এক সন্তানের বাবা-মা তারা। বিয়ের পর পুরোদস্তুর সংসারী হয়ে উঠেছেন মধুবনী। তার সঙ্গে এই জুটি ধরে রেখেছেন ভরপুর বাঙালিয়ানা।

সম্প্রতি রাজা গোস্বামী এবং মধুবনী গোস্বামীকে স্টার জলসার ‘ইস্মার্ট জোড়ি’ রিয়েলিটি শো’তে দেখা যাচ্ছে। তাদের জুটিকে বরাবর পছন্দ করেন দর্শকরা। তবে মধুবনী এবার সম্পূর্ণ আলাদাই এক কারণে দর্শকদের প্রশংসা পেলেন। ইস্মার্ট জোড়িতে প্রথম দিন থেকেই মধুবনীর হাতে শাঁখা এবং পলা দেখা গিয়েছে।

Audience Praised Madhubani Goswami For Wearing Sankha Pola

আসলে এই সময় আধুনিকতার পেছনে ছুটতে গিয়ে বিবাহিতা তারকা থেকে শুরু করে সাধারণ মহিলারা পর্যন্ত বাঙালিয়ানা ভুলে শাঁখা, পলা, সিঁদুর পরাকে ওল্ড ফ্যাশন বলে মনে করেন। সেই জায়গায় মধুবনী সম্পূর্ণ আলাদা। শুধু ইস্মার্ট জোড়ির মঞ্চ বলেই নয়, মধুবনী কখনও তার হাত থেকে শাঁখা-পলা খোলেননি। ইস্মার্ট জোড়ির মত বড় মঞ্চেও হাতে শাঁখা-পলা রেখে মধুবনী প্রমাণ করেছেন বাঙালির সাবেকি এই গয়না ওল্ড ফ্যাশন নয় মোটেই।

বরং হাতে শাঁখা-পলা রেখেও ফ্যাশনে ট্রেন্ড ইন থাকা যায়। মধুবনীর এই গুণের প্রশংসায় পঞ্চমুখ সকলে। দর্শকরা তাকে প্রশংসায় ভরিয়ে দিচ্ছেন। উল্লেখ্য, ভালোবাসা ডট কম ধারাবাহিকে প্রথম আলাপের পর দীর্ঘ বেশ কয়েক বছর চুটিয়ে প্রেম করেন রাজা-মধুবনী। ২০১৭ সালে তাদের বিয়ে হয়। বিয়ের পর ২০২০ সালে তাদের কোল আলো করে আসে ছোট্ট পুত্র সন্তান কেশব।