সবার দুটো বিয়ে দিতেই হবে, সংসার ভাঙতে শেখাচ্ছে শ্রীময়ী, অবিলম্বে বন্ধ হোক ধারাবাহিক

সমাজে কুপ্রভাব ফেলছে শ্রীময়ী, অবিলম্বে বন্ধ হোক ধারাবাহিক, দাবি ক্ষুব্ধ দর্শকের

একসময়ের অত্যন্ত জনপ্রিয় ধারাবাহিক ছিল স্টার জলসার (Star Jalsha) শ্রীময়ী (Sreemoyee)। কলেজ পড়ুয়া প্রেমিক-প্রেমিকার ন্যাকা ন্যাকা প্রেম নয়, মাঝবয়সী একজন গৃহবধূর সংসার সংগ্রামের কাহিনীই ছিল ধারাবাহিকের প্রধান উপজীব্য। কিন্ত ক্রমে শ্রীময়ীর জীবনে পরিবর্তন আসে। অসুখী দাম্পত্যের অবসান ঘটিয়ে সেও নতুন করে বাঁচার অধিকার খুঁজে পায়। রোহিত সেনের মধ্যে উপযুক্ত জীবনসঙ্গীর দেখা পায়। কিন্তু গল্পের ট্র্যাক বদলাতেই দর্শকের সমালোচনার বিষয়বস্তু হতে হয় শ্রীময়ীকে। একসময় যারা ছিলেন শ্রীময়ীর সমর্থক, তারাই এখন সমাজের স্বার্থে ধারাবাহিক বন্ধ করার দাবি তুলছেন!

প্রথমদিকে এই ধারাবাহিক টিআরপি লিস্টে ১ থেকে ৫ এর তালিকায় থাকতো। কিন্তু এখন সেসব দিন গিয়েছে। এখন খুব কষ্ট করেই এক থেকে দশের তালিকায় টিকে থাকে শ্রীময়ী। কিন্তু হঠাৎ দর্শকের এই ধারাবাহিকের প্রতি এত বিতৃষ্ণা কেন জন্মালো? তার কারণ এই ধারাবাহিকের সম্পর্কের জটিলতা। ধারাবাহিকে অনিন্দ্য থেকে জুন, ডিংকা থেকে অর্না, সকলেরই দুটো বিয়ে দিয়ে দিয়েছেন চিত্রনাট্যকার লীনা গঙ্গোপাধ্যায়। শেষমেষ রোহিত সেনের সঙ্গে শ্রীময়ীর আরেকবার বিয়ে দিয়ে এই তালিকাটা যেন সম্পূর্ণ করলেন গল্পের লেখিকা!

আর এতেই কার্যত আপত্তি তুলছেন দর্শকের একাংশ। এই ভাবে এই গল্পের ট্র্যাক কার্যত সমাজের উপর খারাপ প্রভাব ফেলছে বলে দাবি করছেন দর্শক। যুব সমাজের মনেও এতে কু-প্রভাব পড়ছে বলেই মত তাদের। সবথেকে বেশি সমালোচনা হচ্ছে গল্পের লেখিকা লীনা গঙ্গোপাধ্যায়কে নিয়ে। দর্শকেরা তো স্পষ্ট বলছেন, লীনা গঙ্গোপাধ্যায় তার ধারাবাহিকের চরিত্রদের দুটো করে বিয়ে দিতেই অভ্যস্ত হয়ে পড়েছেন!

শুধু রোহিত এবং শ্রীময়ীর বিয়ে নিয়েই নয়, বিয়ের পর তাদের প্রেম পর্ব নিয়েও শুরু হয়েছে জোরদার কটাক্ষ। রোহিত-শ্রীময়ীর প্রেম এখন দর্শকের নজরে ‘ন্যাকামি’ বলেই মনে হচ্ছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই নিয়ে সমালোচনার ঝড় বইছে। কেউ মন্তব্য করছেন, “বাড়িতে আর সিরিয়াল দেখা যাবে না”। আবার কেউ লিখছেন, “শ্রীময়ী ধারাবাহিক বন্ধ হোক, সমাজে কুপ্রভাব ফেলছে এই ধারাবাহিক”।

Leena Gangopadhyay

আরও পড়ুন : ছেলেবেলায় শ্রীময়ী ধারাহিকের চরিত্ররা দেখতে কেমন ছিল, রইলো ফটো গ্যালারি

যদিও দর্শকের সমালোচনা নিয়ে বিশেষ মাথা ঘামাচ্ছেন না খোদ শ্রীময়ী অর্থাৎ ইন্দ্রানী হালদার। তিনি এখনো আশাবাদী ধারাবাহিক নিয়ে। তার বক্তব্য, “বাংলা ধারাবাহিকে এক জন মহিলা এইরকম পদক্ষেপ নিতে পারে তাতে আমি খুশি, এই ধারাবাহিক সমাজকে একটা পথ দেখাবে”। এছাড়াও এখনো এই ধারাবাহিকের যে গুটিকতক সমর্থক রয়েছেন, তারা কিন্তু ধারাবাহিকের প্রশংসাই করছেন।