বাড়িতে বসেই হবে উপসর্গহীন করোনা রোগীদের চিকিৎসা, সেভ রাখুন হেল্পলাইন নম্বর

ঘরে থেকেই টেলিমেডিসিনে চলুক চিকিৎসা, উপসর্গহীন করোনা রোগীদের জন্য বিশেষ ঘোষণা স্বরাষ্ট্রসচিবের

রাজ্যে করোনা সংক্রমনের সংখ্যা দিনকে দিন বাড়ছে। রাজ্যে গড়ে দুই হাজারেরও বেশি মানুষের মধ্যে করোনাতে সংক্রমিত হচ্ছেন। বিগত ২৪ ঘন্টায় ‌৩৬ জন মানুষ করোনাতে সংক্রমিত হয়ে মারা গেছেন। আতঙ্কের এই পরিস্থিতির মধ্যে কিছুদিন আগেই রাজ্যের মুখ্যসচিব একটি বিবৃতি দিয়ে রাজ্যের মানুষকে আশ্বস্ত করার চেষ্টা করেছিলেন। একটি বৈঠকে রাজ্যের মুখ্যসচিব বলেন যে- পরিস্থিতি এখনো হাতের বাইরে চলে যায় নি।কোভিডের থেকে দ্রুত হারে এগোচ্ছে এই রাজ্যের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা।

তবু দিনকে দিন রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে কোভিডের বেডের অভাব, চিকিৎসার অভাব জানিয়ে উঠে আসা অভিযোগ মানুষকে কিছুটা হলেও আতঙ্কিত করে তুলছে।পরিস্থিতি সামাল দিতে আজ বিকেলে সাংবাদিক বৈঠকে রাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের মানুষের উদ্দেশ্যে কতগুলি সিদ্ধান্তের ঘোষণা করেন।

আজকের সাংবাদিক বৈঠকে তিনি জানান – রাজ্যে কোভিড হাসপাতাল ও সেফ হোমের সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছে‌। উপসর্গহীন রোগীদের ক্ষেত্রে বলবো তারা আইসোলেশন থাকুন ও সেফ হোমে থাকুন।প্রয়োজনে টেলিমেডিসিনের সুবিধা নিতে পারেন‌। তিনি জানান কলকাতায় টেলিমেডিসিন সংক্রান্ত তথ্য জানার জন্য একটি নাম্বার দেওয়া হয়েছে।এই নাম্বারে ফোন করে আপনারা যাবতীয় তথ্য পেতে পারেন নাম্বারটি হল-০৩৩২৩৫৭৬০০১।

এর পাশাপাশি আলাপন বাবু বলেন-রাজ্য সরকারি অ্যাম্বুলেন্স এর সংখ্যা বাড়ানো হচ্ছে ‌ কলকাতা এম্বুলেন্স সার্ভিস পেতে চাইলে ০৩৩৪০৯০২৯২৯ নম্বরে যোগাযোগ করতে পারেন। এছাড়া রাজ্যের মানুষের জন্য স্বাস্থ্য ভবন থেকে দুটি হেল্পলাইন নাম্বার চালু করা হয়েছে। নাম্বার দুটি হলো-১৮০০৩১৩৪৪৪২২২ ও ০৩৩২৩৪১২৬০০।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য গত বৃহস্পতিবার এ সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন-আগামী কয়েকদিনের সংক্রমণের হার আরও বাড়বে তবে পরিস্থিতি সামাল দিতে আমরা বেডের সংখ্যাও বাড়াচ্ছি। সেই সঙ্গে বেশ কিছু হাসপাতালকে নতুন করে কোভিড চিকিৎসার জন্য ই গ্রহণ করার কথা ভাবছি।

গত বৃহস্পতিবার এর মুখ্যমন্ত্রী সেই কথার কিছুটা অংশ ই যেন আজ স্বরাষ্ট্রসচিবের কথাই উঠে এলো। টেলিমেডিসিন এর সাহায্যে চিকিৎসা ব্যবস্থার কথা বলে স্বরাষ্ট্রসচিব বুঝিয়ে দিলেন আমাদের রাজ্যে সংক্রমণ কি হারে বাড়ছে! এই পরিস্থিতিতেও রাজ্যের মানুষ যদি সতর্ক না হোন, পরিস্থিতির গুরুত্ব না বুঝে মানুষ যদি পিকনিক, পার্টি,গেট টুগেদার করতে থাকেন,তাহলে পরিস্থিতি যে আগামীতে আরো অবনতির দিকে যাবে সে কথা বলাই বাহুল্য।

আরও পড়ুন :- প্রতি সপ্তাহে ২দিন থাকবে কড়া লকডাউন, বড় ঘোষণা রাজ্য সরকারের

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য ভারতের করোনা ভ্যাক্সিন ‘কোভ্যাক্সিনের’হিউমান ট্রায়াল শুরু হয়ে গেছে আজ থেকে।দিল্লির এইমসে এই ট্রায়াল হতে চলেছে আজ থেকে। প্রথম পর্যায়ে ৩৭৫ জনের হিউম্যান ট্রায়াল হবে তার মধ্যে ১০০ জনের হিউম্যান ট্রায়াল হবে দিল্লির এইমসে। দেশের সকল মানুষ এখন সেই দিকেই তাকিয়ে আছেন।