বিয়ে করলেন বরুণ ধবন, দেখুন বিয়ের নানা মুহূর্তের Exclusive ছবি

ছোটবেলার প্রেম অবশেষে পরিণতি পেল। সাতপাকে বাঁধা পড়লেন বরুণ ধাওয়ান (Varun Dhawan) এবং নাতাশা দালাল (Natasha Dalal)। মুম্বাই থেকে ১২০ কিলোমিটার দক্ষিনে মালিবাগের শাসওয়ানে “দা ম্যানসন হাউস” রিসোর্টে বসেছিল বিয়ের আয়োজন।

বৃহস্পতিবার নাতাশার বাড়িতে চুন্নি অনুষ্ঠান হয় এবং শুক্রবার সপরিবারে এই রিসোর্টের পৌঁছে যান বরুণ এবং নাতাশা।আপনারা জানেন নাতাশা একজন ফ্যাশন ডিজাইনার। তাই নিজের বিয়েতে নিজের পছন্দমত লেহেঙ্গা ডিজাইন করেছেন তিনি। বরুণের পোশাকের দায়িত্ব নিয়েছিলেন ডিজাইনার মনীশ মালহোত্রা।

তাদের বিয়ের জন্য বিশেষ ভাবে সাজানো হয় এই রিসর্টকে।বিশ্রামের জন্য বিলাসবহুল ঘর থেকে খোলা আকাশের নিচে বিশেষ তাবু কি নেই এই রিসর্টে!গোলাপ থেকে অর্কিড বিভিন্ন তাজা ফুলের সেজে উঠছিল সম্পূর্ণ রেসর্ট।

করোনা পরিস্থিতিতে বিয়েতে ৪০ থেকে ৫০ জনের বেশি লোক ছিলনা আমন্ত্রিতের তালিকায়। তবে ২৭সে জানুয়ারি মুম্বাইতে একটি পার্টি দেওয়ার কথা ভাবছেন তারা যেখানেই আমন্ত্রিত থাকবে বলিউডের বিশিষ্টরা। বিয়েতে অবশ্য কারণ জোহার, আলিয়া ভাট, রণবীর কাপুর, সালমান খান সহ বেশকিছু জন বন্ধু বান্ধব নিমন্ত্রিত ছিলেন।

২২ জানুয়ারি থেকেই জমকালো বিয়ের প্রস্তুতি শুরু হয়ে গিয়েছিল এখানে। অতিথি আপ্যায়নেও কোনও ত্রুটি রাখেনি ধাওয়ান পরিবার। মেনুতে ইন্ডিয়ার খাবারের পাশাপাশি লেবানিজ ও মেক্সিকান ফুডও রাখা হয়েছিল।

কিছুদিন আগে একটি চ্যাট শোয়ে করিনা কপূরের সঙ্গে কথোপকথনের সময় নাতাশার সঙ্গে তাঁর সম্পর্কের বিষয়ে খোলামেলাভাবে নানা কথা জানান বরুণ। তিনি বলেন, ‘আমি যখন ক্লাস সিক্সে পড়তাম, তখন প্রথম নাতাশাকে দেখি। আমাদের সম্পর্ক অবশ্য অনেক পড়ে শুরু হয়। আমরা ক্লাস ইলেভেন পর্যন্ত শুধু বন্ধুই ছিলাম।

তবে ওকে প্রথমদিন দেখার কথা এখনও মনে আছে। আমরা তখন বাস্কেটবল কোর্টে ছিলাম। মধ্যাহ্নভোজের বিরতির সময় আমাদের খাবার খেতে দেওয়া হত। নাতাশা হেঁটে আসছিল। তখনই আমি ওকে দেখি।’

বরুণ আরও জানিয়েছেন, ‘নাতাশাকে দেখার পরেই আমি ওকে ভালবেসে ফেলি। কিন্তু আমি ওকে সে কথা জানানোর পর তিন-চারবার প্রত্যাখ্যাত হতে হয়। তবে আমি হাল ছাড়িনি।’

বরুণকে সম্প্রতি পর্দায় দেখা গিয়েছে ‘কুলি নম্বর ওয়ান’ ছবিতে। সেই ছবিতে তাঁর বিপরীতে অভিনয় করেন সারা আলি খান। এরপর কিয়ারা আডবাণীর বিপরীতে ‘যুগ যুগ জিও’ ছবিতে অভিনয় করতে দেখা যাবে বরুণকে।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by namratasoni (@namratasoni)