কেবিসিতে অমিতাভের বডিগার্ডের মেয়ে! চিনতে পারলেন না বিগ বি

0
Amitabh Bachchan`s Personal Bodyguard`s Daughter Rashmi Kadam is on KBC

দীর্ঘ প্রায় এক দশকেরও বেশি সময় ধরে কৌন বনেগা ক্রোড়পতির (Kaun Banega Crorepati) সঞ্চালনা করে আসছেন অমিতাভ বচ্চন (Amitabh Bachchan)। তার হাত থেকে ক্রোড়পতি হয়েছে বেরিয়েছেন বহু প্রতিযোগী। এই মঞ্চের সঞ্চালনার দায়িত্ব নিয়ে দর্শক এবং প্রতিযোগীদের বেজায় উৎসাহিত করেছেন বিগ বি। এবার সেই মঞ্চ তার জন্য এনে দিলো অনেক বড় এক চমক।

চলতি দফায় অমিতাভ বচ্চনের সঞ্চালনায় পুনরায় শুরু হয়েছে ‘কৌন বনেগা ক্রোড়পতি’। সাম্প্রতিকতম এপিসোডে অমিতাভ বচ্চনের উল্টোদিকের হটসিটে বসেছিলেন যিনি, তিনি অমিতাভেরই প্রাক্তন বডিগার্ডের মেয়ে। প্রায় ৩০ বছর আগে সেই প্রতিযোগীর বাবা অমিতাভের দেহরক্ষী ছিলেন। একথা শুনেই নস্টালজিক হয়ে পড়লেন অমিতাভ।

কেবিসির নতুন এই এপিসোডে প্রতিযোগী রশমি কদম সঙ্গে করে নিয়ে এসেছিলেন তার বাবাকে। তার বাবা তথা অমিতাভ বচ্চনের প্রাক্তন দেহরক্ষী ছিলেন সেই এপিসোডের বিশেষ অতিথি। এপিসোডের ওই বিশেষ দৃশ্যে দেখা যাচ্ছে রশমির সঙ্গে পরিচয় পর্ব শেষ করে তার বাবার সঙ্গে কথা বলেন অমিতাভ। তার সম্পর্কে জানার জন্য প্রশ্ন করেন তিনি।

অমিতাভ তাকে জিজ্ঞেস করেন তিনি পুলিশে কাজ করেন কিনা। কারণ তার কাছে তেমনটাই বলা হয়েছিল। প্রশ্নের জবাবে রশমির বাবা জানান, ‘স্যার আমার নাম রাজেন্দ্র কদম, পুণে মহারাষ্ট্র থেকে এসেছি’। তিনি আরও বলেন, স্যার আমি আপনার PSO (পার্সোনাল সিকিউরিটি অফিসার) ছিলাম ১৯৯২ সালে। সুতরাং, আমি আপনার বডিগার্ড হিসেবে কাজ করেছি। একথা শুনে রীতিমত অবাক হয়ে যান অমিতাভ।

রাজেন্দ্র অমিতাভকে এতদিন পর সামনাসামনি দেখতে পেয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে বলেন, “আমার বরাবরের শখ ছিল আপনার সঙ্গে ফোটো তোলার। কিন্তু তখন মোবাইলে তো ক্যামেরা থাকত না। তাই তা পূরণ হয়নি। কিন্তু আজ আমার মেয়ের জন্য আমি এখানে আসতে পেরেছি। আজ আমি খুব খুশি”। একথা শুনে অমিতাভ উত্তর দেন, “সত্যি আমাদের দুনিয়াটা কত ছোট! আমিও খুব খুশি হব আপনার সঙ্গে ফোটো তুলতে পারলে”।

 

রশমি কদম পেশায় একজন সাইকোলজিস্ট। খেলার ফাঁকে অমিতাভ রশমির বাবাকে অনুরোধ করেন তিনি যেন তার মেয়েকে তার পছন্দের ছেলে সঙ্গে বিয়েতে অনুমতি দিয়ে দেন। একইসঙ্গে অমিতাভ বলেন, তিনি যখন কেবিসির মঞ্চে কথা দিলেন তখন তিনি আর সেই কথা ফেরাতে পারবেন না। এদিন হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করে ক্রোড়পতি হতে না পারলেও ১২.৫ লক্ষ টাকা জিতে নেন রশমি কদম।