এইভাবে বানান লুচি আর আলুর দম, একবার খেলে এক মাস মুখে লেগে থাকবে

পেঁয়াজ রসুন ছাড়া মহাষ্টমী স্পেশ্যাল আলুর দম, জিভে জল না এলে পয়সা ফেরত

Aloo Dum Recipe

মহাষ্টমীতে বাংলার ঘরে ঘরে খাবার পাতে ভাত কম, রুটি, পরোটা কিংবা লুচির চল চলে আসছে বহু বছর ধরে। সাধারণত হিন্দু পরিবারগুলোতে এই দিনে নিরামিষ খাওয়ার চল রয়েছে। রুটি-পরোটা বা লুচির সঙ্গে জুড়িদার হিসেবে কাশ্মীরি আলুর দম (Kashmiri Alur Dom) ছাড়া আর কী বা থাকতে পারে? মহাষ্টমীর মহাভোজেও খিচুড়ি বা ঘিভাতের সঙ্গে নিরামিষ আলুর দম থাকবেই। তাই আর দেরি না করে ঝটপট শিখে নিন কাশ্মীরি আলুর দম তৈরির রেসিপিটা।

কাশ্মীরি আলুর দম তৈরির জন্য প্রয়োজনীয় উপকরণ : আলু, আদা বাটা, পেঁয়াজ বাটা, রসুন বাটা, টমেটো বাটা, পোস্ত বাটা, চারমগজ বাটা, কাজুবাদাম বাটা, হলুদ গুঁড়ো, লঙ্কা গুঁড়ো, গরম মশলা গুঁড়ো, জিরেগুঁড়ো, ধনেগুঁড়ো, জিরে, তেজপাতা, শুকনো লঙ্কা, টক দই, নুন, চিনি স্বাদমতো, সরষের তেল।

কাশ্মীরি আলুর দম রান্নার পদ্ধতি : প্রথমে আলুর খোসা ছাড়িয়ে ভাল করে ধুয়ে নিতে হবে। এবার সেগুলো একটু বড় বড় টুকরো করে কেটে নিতে হবে। আলু ছোট হলে গোটাও ব্যবহার করতে পারেন। এবার আলুগুলোকে প্রথমে সেদ্ধ করে নিন। তারপর কড়াইতে সামান্য তেল দিয়ে হালকা করে ভেজে তুলে নিন।

এরপরের ধাপে কড়াইতে সর্ষের তেল গরম করে একে একে জিরে, তেজপাতা, শুকনো লঙ্কা ফোড়ন দিন। তারপর পেঁয়াজ বাটা, আদা বাটা, রসুন বাটা এবং টমেটো বাটা এর মধ্যে দিয়ে ভাল করে কষিয়ে নিন। কড়াই থেকে তেল ছেড়ে এলে এর মধ্যে দিয়ে দিন পোস্ত বাটা, কাজুবাদাম বাটা, চার মগজ বাটা এবং টক দই। আবারও কষে নিয়ে অল্প একটু জল দিয়ে দিতে পারেন।

এবার আগে থেকে ভেজে তুলে রাখা আলুর টুকরোগুলো এর মধ্যে দিয়ে নিতে হবে। মশলার সঙ্গে খুব ভাল করে আলু কষিয়ে নিতে হবে। এভাবে অন্তত ১০ থেকে ১৫ মিনিট রান্না করুন। মাঝে দু-একবার ঢাকনা খুলে রান্নাটা একটু নেড়ে নিতে হবে যাতে আলুর মধ্যে মশলাটা ঢুকে যেতে পারেন।

এভাবে রান্না করলেই বাড়িতে খুব সহজে তৈরি করে নিতে পারবেন কাশ্মীরি আলুর দম। রান্না শেষ হয়ে এলে নামানোর আগে শুধু উপর থেকে একটু ধনেপাতা কুচি এবং গরম মশলা গুঁড়ো ছড়িয়ে নিন। তাহলে এবার শুধু নামিয়ে নিলেই রেডি কাশ্মীরি আলুর দম। খিচুড়ি, পোলাও কিংবা লুচি-পরোটার সঙ্গে জমে যাবে এই রেসিপি।