১০০ কোটি টাকা দিলেও মানুষের ক্ষতি করব না! পানমশলার পর মদের বিজ্ঞাপনও ফেরালেন আল্লু অর্জুন

টাকার লোভে কারও ক্ষতি করা নয়, অল্লু অর্জুনের নীতিবোধ দেখে মুগ্ধ গোটা দেশ

পুষ্পা ছবির পর থেকেই গোটা ভারতবর্ষ জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে অল্লু অর্জুনের সুনাম। দক্ষিণের এই অভিনেতাকে এক ডাকে চিনছেন গোটা ভারতবর্ষের মানুষ। করোনা পরবর্তী পর্যায়ে তার ছবি বক্স অফিসকে চাঙ্গা করে তুলেছে। দেশবাসীর নজরে পুষ্পা এখন হিরো আর অল্লু অর্জুন হলেন বক্স অফিসের ত্রাতা। সেই সঙ্গে বাস্তবেও কিন্তু সাধারণের নজরে সেরা হয়ে উঠলেন অল্লু অর্জুন।

বিগত এক দশক ধরে অল্লু অর্জুন হলেন দক্ষিণী ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির প্রথম সারির নায়ক‌। সাধারণত এমন তারকাদের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর করতে চায় নামীদামী সংস্থাগুলো। বিশেষত পান মশলা, মদের সংস্থাগুলো মুখিয়েই থাকে তারকাদের পাওয়ার জন্য। তার জন্য কোটি কোটি টাকা দিতেও তারা রাজি। তবে অল্লু অর্জুন সেই দলে পড়েন না।

বলিউডের বহু তারকা ইতিমধ্যেই তাদের প্রলোভনে পা দিয়ে স্বাস্থ্যের জন্য হানিকর এই সব সামগ্রীর প্রমোশন করে থাকেন। অক্ষয় কুমার, শাহরুখ খান, অজয় দেবগণ থেকে শুরু করে অমিতাভ বচ্চনের মত তারকারাও মোটা টাকার প্রলোভন কাটাতে না পেরে পান মশলা এবং মদের বিজ্ঞাপন করেন।

সেই জায়গায় ব্যতিক্রম হলেন দক্ষিণের তারকারা। এদেরই একজন অল্লু অর্জুন। এর আগে পান মশলার বিজ্ঞাপনের জন্য প্রস্তাব ফিরিয়েছিলেন তিনি। এবার শোনা যাচ্ছে সদ্য তিনি কোটি কোটি টাকার মদের বিজ্ঞাপনও নাকি হাতছাড়া করেছেন। মদ এবং পান মশলার ব্রান্ডের বিজ্ঞাপন করার জন্য অল্লু অর্জুনের কাছে ১০ কোটি টাকার প্রস্তাব রাখা হয়েছিল। কিন্তু দক্ষিণের এই তারকা প্রস্তাব শোনামাত্র ফিরিয়ে দিয়েছেন।

টাকা দিয়ে তার এথিক্স কিনে নিতে পারেনি এই সংস্থাগুলো। নিজের নীতি থেকে এক চুলও সরে যাননি অল্লু অর্জুন। বর্তমানে ব্রান্ড এনডোর্সমেন্টের জন্য ৭.৫ কোটি টাকা পারিশ্রমিক নেন তিনি। তার থেকে বেশি টাকা দিতে চাইলেও তিনি মদ আর পান মশলার বিজ্ঞাপন করবেন না। তার এই সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানাচ্ছেন দেশবাসী।

স্বয়ং অমিতাভ বচ্চন ও যেখানে বলেন টাকার জন্য তিনি পান মশলার বিজ্ঞাপন করেছেন সেখানে অল্লু অর্জুনদের মত দক্ষিণের তারকারাই ‘না’ বলে মানুষ হিসেবে তাদের জাত চেনাচ্ছেন। অল্লু অর্জুনের প্রতি তাই শ্রদ্ধায় নত হচ্ছে ভক্তদের মাথা। তার থেকে বলিউডের শিক্ষা নেওয়া উচিত বলে দাবি করছে গোটা দেশ।