কোন জেলায় কত কিমি বেগে বইবে ঘূর্ণিঝড়, দেখুন তালিকা

সময়ের সাথে সাথে ক্রমশ শক্তি সঞ্চয় করে আরও দ্রুত গতিতে স্থলভাগের দিকে এগিয়ে আসছে আমফান। আবওহাওয়া দপ্তরের  পূর্বাভাস অনুযায়ী ঘূর্নিঝড় আমফান পশ্চিমবঙ্গের সাগরদ্বীপ ও বাংলাদেশের হাতিয়া দ্বীপের মধ্যবর্তী এলাকায় আছড়ে পড়বে। ওই সময় আমফানের গতিবেগ থাকবে ঘন্টায় ১৮০ কিলোমিটার। আমফানের প্রভাবে প্রবল সমুদ্র উত্তোলিত হবে বলে জানাচ্ছেন হাওয়া অফিস তাই ১৮ই মে থেকে ২০শে মে মৎস্যজীবীদের মাছ ধরতে যেতে নিষেধ করা হয়েছে।

আবওহাওয়া দফতর জানাচ্ছেন, ১৯শে মে অর্থাৎ মঙ্গলবার গাঙ্গেয় উপকূলীয় জেলা পশ্চিমবঙ্গের পূর্ব মেদিনীপুর, উত্তর ও দক্ষিন ২৪ পরগণায় ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। ২০ শে মে অর্থাৎ বুধবার পশ্চিমবঙ্গের পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর, উত্তর ২৪ পরগণা ও দক্ষিন ২৪ পরগণা, মালদা ও দিনাজপুর, হাওড়া, হুগলি ও কলকাতায় বিভিন্ন জায়গায় অতিভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা। ২১ শে মে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় ভারী বৃষ্টি পাতের সম্ভাবনা রয়েছে।

পূর্বাভাষ অনুযায়ী, ১৮ই মে অর্থাৎ আজ বিকেলে ওড়িশায় প্রতি ঘন্টায় ৪৪ থেকে ৫৫ কিলোমিটার বেগে ও সর্বাধিক ৬৫ কিলোমিটার বেগে ঝড়ো হাওয়া বইবে।

১৯ তারিখ হাওয়ার গতিবেগ আরও বাড়বে। ১৯ তারিখ সকালে উত্তর ওড়িশা উপকূলে প্রতি ঘন্টায় সর্বনিম্ন ৫৫ থেকে ৬৫ কিলোমিটার বেগে ও ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৭৫ কিলোমিটার বেগে ঝড়ো হাওয়া বইবে। ১৯ শে মে মঙ্গলবার ঝড় আছড়ে পড়বে পশ্চিমবঙ্গে।

২০ শে মে সকালে ঘূর্নিঝড় আরও বেশি শক্তিশালী হয়ে উঠবে। ২০ শে মে সকালে ওড়িশা সহ পশ্চিমবঙ্গের পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর, উত্তর ও দক্ষিন ২৪ পরগণা, হাওড়া হুগলি ও কলকাতায় প্রতি ঘণ্টায় সর্বনিম্ন ৭৫ থেকে ৮৫ কিলোমিটার বেগে ও সর্বাধিক ঘণ্টায় ৯৫ কিলোমিটার বেগে ঝড়ো হাওয়া বইবে।

আরও পড়ুন :- কিছুক্ষণের মধ্যেই ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড়, দেখুন ‘আমফান’-এর Live গতিপথ

এরপর আরও শক্তি সঞ্চয় করতে সক্ষম হবে আমফান। ২০ শে মে দুপুর থেকে রাতে প্রতি ঘন্টায় সর্বনিম্ন ১৫৫ থেকে ১৬৫ কিলোমিটার বেগে ও প্রতি ঘন্টায় সর্বাধিক ১৮৫ কিলোমিটার বেগে ঝড়ো হাওয়া বইবে পূর্ব মেদিনীপুর, উত্তর ও দক্ষিন ২৪ পরগনায়।

প্রতি ঘণ্টায় ১০০-১১০ কিলোমিটার বেগে ও সর্বোচ্চ ১২০ কিলোমিটার বেগে ঝড়ো হাওয়া বইবে হাওড়া, হুগলি, কলকাতা ও পশ্চিম মেদিনীপুরে।

আরও পড়ুন :- কিছুক্ষণের মধ্যেই ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড়, দেখুন ‘আমফান’-এর Live গতিপথ

আমফানের ভয়াবহতা দেখে আগে থেকেই সতর্ক হয়ে রয়েছেন প্রশাসন। পরিস্থিতি মোকাবিলা করার জন্য ইতিমধ্যেই জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর ১৭ টি দলকে বাংলা ও ওড়িশা উপকূলে মোতায়েন করা হয়েছে।

এর মধ্যে ৭ টি দল মোতায়েন করা হয়েছে দুই ২৪ পরগণা, দুই মেদিনীপুর, হাওড়া ও হুগলিতে। এবং ১০ টি দল মোতায়েন করা হয়েছে ওড়িশার পুরী,জাজপুর, জগতসিংহপুর, কেন্দ্রপাড়া, ভদ্রক, বালাসোর ও ময়ুরভঞ্জে।