রুপে গুণে দিদিকে টেক্কা দেবে নুসরাতের বোন নুজহাত, গুণে গুণে দেবে ১০ গোল

রূপ ও সৌন্দর্যে দিদিকেও ছাপিয়ে গেল নুসরাতের বোন, গুণে গুণে দিদিকে দেবে ১০ গোল

All You Need to Know About Nuzhat Jahan Sister of Tollywood Actress Nusrat Jahan

টলিউড (Tollywood) অভিনেত্রী নুসরাত জাহান (Nusrat Jahan) অভিনয়ের পাশাপাশি রাজনৈতিক মহলেও বেশ জনপ্রিয়। বসিরহাটের তৃণমূল সাংসদ তিনি। অভিনয়, রাজনীতির পাশাপাশি সমানতালে সামলাচ্ছেন নিজের সন্তানকেও। নুসরাতের জীবনের সঙ্গে অনেক বিতর্ক জড়িয়ে আছে। তবে আজকের এই প্রতিবেদন তাকে নিয়ে নয়। আজ এই প্রতিবেদনে কথা বলব নুসরাতের বোন নুজহাত জাহানকে (Nuzhat Jahan) নিয়ে। টলিউড অভিনেত্রীর সুন্দরী বোনকে চেনেন কি?

নুসরাত জাহানের বোন হলেও নুজহাত নিজেকে প্রচারের আড়ালে রাখতে পছন্দ করেন। টলিউড অভিনেত্রীর বোন হলেও তিনি কখনো নিজেকে অভিনেত্রী হিসেবে দেখতে চাননি। সৌন্দর্যে তিনি কিন্তু দিদির তুলনায় কিছু কম নন। দুজনের মুখের মধ্যে অনেকটাই মিল রয়েছে। এমনকি এক নজরে দুজনকে দেখলে যমজ বলেও মনে হতে পারে।

নুসরাতের বোনের সম্পর্কে প্রথমবার জানা গিয়েছিল যখন ইনস্টাগ্রামে নুসরাত নিজে তার বোনকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছিলেন। তখনই জানা গিয়েছিল নুসরাতের এত সুন্দরী এক বোনও আছেন। দুই বোনের এত সুন্দর ছবি থেকে চোখ ফেরাতেই পারেননি। নুসরাতের প্রাক্তন স্বামী নিখিল জৈনের সঙ্গেও নুজহাতের ভাল সম্পর্ক রয়েছে। নিখিলকে একবার তার শ্যালিকা সম্পর্কে প্রশ্ন করা হলে উচ্চ জানিয়েছিলেন উচ্চ শিক্ষার জন্য কানাডাতে পাড়ি দিয়েছেন নুজহাত।

সোশ্যাল মিডিয়াতে নুসরাতের সঙ্গে নুজহাতের ছোটবেলার ছবি থেকে বড় বয়সের একাধিক খুনসুটির ছবিও রয়েছে। গ্ল্যামারের দিক থেকে দিদির থেকে কোনও অংশেই তিনি কম নন। লুকস থেকে শুরু করে ফ্যাশন সেন্স, স্টাইল স্টেটমেন্টের দিক দিয়ে তিনি কোনও টলিউড অভিনেত্রীর তুলনায় কিছু কম নন।

নিখিলের সঙ্গে নুসরাতের বিয়ের সময় তুরস্কের বোদরুমে দিদির সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন নুজহাত। নুসরাতের বিয়েতে বেশ কিছু ছবিতে তাকে দিদির পাশেই দেখা গিয়েছে। কানাডাতে পড়াশোনা করার পর তিনি উচ্চ শিক্ষার জন্য টরেন্টোতে চলে যান। পড়াশোনা শেষ করে এখন তিনি ইউআই এবং ইউএক্স ডিজাইনার হিসেবে কর্মরত রয়েছেন বলে জানা যায়।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Nusrat J Ruhii (@nusratchirps)

নুজহাতের জন্মদিনে আদরের বোনকে উদ্দেশ্য করে তিনি লিখেছিলেন, “কাঁধে কাঁধ রেখে চলার মতো বড় হয়ে গিয়েছ তুমি। কাছাকাছি না থাকলেও সব সময়ে তোমার পাশে আছি। তোমার জন্মদিনে আমি তোমার জন্য একগুচ্ছ সম্ভাবনা ও সুযোগের কামনা করি। আনন্দে বাঁচতে শেখো, ভালবাসতে শেখো। ঠিক যেমন ভাবে তুমি চাও, সে ভাবেই। শুভ জন্মদিন আমার ছোট্ট বোন’’। দুই বোনের মধ্যে সম্পর্কটা যে কতটা গভীরতা তা বেশ বোঝাই যায়।