বজ্রপাতের ৫মিনিট আগেই আগাম সতর্কতা দিয়ে মৃত্যু থেকে বাঁচাবে এই অ্যাপ

সম্প্রতি বজ্রপাতে একদিনে প্রাণ হরিয়েছেন ১০০র অধিক মানুষ। বিহার নয় ঝাড়খন্ড, পশ্চিমবঙ্গের মতো বিভিন্ন জেলায় প্রতিদিন বজ্রপাতে প্রাণহানি হচ্ছে। ২০০৫ সাল থেকে ভারতে প্রতিবছর প্রায় ২০০০ জন করে মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। আর এই সংখ্যাটা ২০১৮ সালে বেড়ে দাঁড়ায় ২৩০০।

ভারতে এই বিপুলসংখ্যক মানুষের বজ্রপাতে প্রাণ হারানোর ঘটনায় চিন্তিত হয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের পৃথিবী বিজ্ঞান মন্ত্রক এবং ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব ট্রপিকাল মেটেরিয়ালস (IITM) পুনের গবেষকরা যৌথ উদ্যোগে তৈরি করেছে একটি অ্যাপ।

কেন্দ্রীয় সরকারের পৃথিবী বিজ্ঞান মন্ত্রক এবং ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব ট্রপিকাল মেটেরিয়ালস (IITM) পুনের গবেষকরা যৌথ উদ্যোগে তৈরি করা এই অ্যাপের নাম হল Damini। এই অ্যাপটি গুগল প্লে স্টোরে উপলব্ধ রয়েছে। এই অ্যাপটির কাজ হল যার স্মার্টফোনে এই অ্যাপ ইন্সটল থাকবে তার অবস্থান অনুযায়ী আবহাওয়া সম্পর্কিত জরুরি তথ্য দেওয়ার পাশাপাশি বজ্রপাতের আগে সতর্কবার্তা পাঠাবে।

বর্জ্রপাতের পাঁচ মিনিট আগে এই অ্যাপ ব্যবহারকীকে সজাগ করে দেবে। এই অ্যাপে এও জানা যাবে কতদূরে বর্জ্রপাত হবে এবং তা কোন সময়। এমনকী যদি বর্জ্রপাতের সম্ভাবনা নাও থাকে শুধু বৃষ্টি হয়, তবে অ্যাপটি তাও জানান দিয়ে দেবে ব্যবহারকারীদের।

বজ্রপাতে এতসংখ্যক মানুষের প্রাণহানির ঘটনায় দেখা যায় বেশিরভাগ মানুষই কৃষি কাজের সাথে যুক্ত। হয় তারা মাঠে কাজ করা অবস্থায় বজ্রপাতে প্রাণ হারিয়েছেন অথবা আরও বেশ কিছু মানুষকে দেখা যায় প্রাণ হারাতে যারা জরুরী কাজে মাথায় মেঘ নিয়ে বাইরে বেরিয়েছেন। আর এই সকল মানুষকে সতর্ক করার জন্যই এই অ্যাপ।

ফোনে এই অ্যাপটি ইনস্টল করার পর সেটিকে অ্যাক্টিভেট করা হলে আপনার বর্তমান অবস্থান থেকে ২০ কিলোমিটার ব্যাসের মধ্যে আবহাওয়ার আগাম বার্তা ছাড়াও বজ্রপাতের সম্ভাবনা রয়েছে কিনা তা সম্পর্কেও বার্তা দেবে। অ্যাপের মধ্যে সার্কেল করে যে মানচিত্র দেখা যাবে তার নিচে ইংরেজি এবং হিন্দি এই দুই ভাষাতেই তথ্য প্রদান করবে এই অ্যাপ।

Damini নামে এই অ্যাপটি বজ্রপাতের আগাম বার্তা দেওয়ার পাশাপাশি কিভাবে সুরক্ষা পাওয়া সম্ভব এবং প্রাথমিক চিকিৎসা সম্পর্কে নানান তথ্য প্রদান করে থাকে। এই অ্যাপটি মূলত হাওয়া অফিসের ওয়েবসাইটের তথ্য অনুযায়ী পুঙ্খানুপুঙ্খ ভাবে বিবরণ সরবরাহ করে থাকে।

২০১৮ সালের নভেম্বরে মহারাষ্ট্রের পুনেতে ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ ট্রপিক্যাল মেট্রোলজির পক্ষ থেকে এই অ্যাপটি চালু করা হয়। ঠিক কোথায় বাজ পড়বে, অ্যাপ সেটা নির্দিষ্ট করে বলতে পারবে না। কিন্তু অ্যাপের মাধ্যমে আপনার লোকেশনের ২০-৪০ কিলোমিটারের মধ্যে বজ্রগর্ভ মেঘ এবং তার মধ্যে বিদ্যুৎ সঞ্চার হচ্ছে কি না, সেটা বলে দেবে।

কেন্দ্রীয় সরকারের পৃথিবী বিজ্ঞান মন্ত্রক এবং ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব ট্রপিকাল মেটেরিয়ালস (IITM) পুনের গবেষকরা যৌথ উদ্যোগে ১৬ই নভেম্বর ২০১৮ সালে এই অ্যাপটিকে লঞ্চ করা হয়। এরপর অ্যাপটিকে নতুনভাবে আপডেট করা হয়েছে ১লা জুলাই ২০২০ সালে। পাশাপাশি বর্তমানে বজ্রপাতের কারণে যেভাবে দিনের পর দিন প্রাণহানির সংখ্যা বাড়ছে তাতে এই অ্যাপ ইন্সটল করা থাকলে অনেকের প্রাণ বাঁচতে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।