কাশ্মীরে বাহিনীর নিরাপত্তায় বড় সিদ্ধান্ত মোদীর! স্যালুট জানবেন আপনিও

কাশ্মীরে বাহিনীর নিরাপত্তায় বড় সিদ্ধান্ত নিল কেন্দ্র। সড়কপথে নয়, এবার থেকে বিমানে জম্মু থেকে শ্রীনগরে যাবেন জওয়ানরা। এ বার থেকে আধা সামরিক বাহিনী জওয়ানরাও কাশ্মীরে বিমান করে যাতায়াত করতে পারবেন। এর আগে কাশ্মীরে আধা সামরিক বাহিনীর বিমান ব্যবহারের অনুমতি ছিল না।

বৃহস্পতিবার এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। সিদ্ধান্ত অনুসারে বিএসএফ, অসম রাইফেলস, সিআরপিএফ, সিআইএসএফ, এসএসবি, এনএসজি ও আইটিবিপি জওয়ানদের এবার থেকে কাশ্মীর উপত্যকায় মোতায়েনের জন্য আকাশপথে জম্মু থেকে শ্রীনগরে নিয়ে যাওয়া হবে।

জওয়ানদের নিরাপত্তার কথা ভেবেই আধাসামরিক বাহিনীকে বিমানে শ্রীনগর নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। এর ফলে এবার থেকে বাহিনীর আধিকারিক ও জওয়ানরা আকাশপথে শ্রীনগর যাবেন ও শ্রীনগর থেকে ফিরবেন। আজ থেকেই লাগু হয়েছে এই সিদ্ধান্ত।

এই সিদ্ধান্তের ফলে অন্তত ৭.৮ লক্ষ আধা সামরিক জওয়ান উপকূত হবেন বলে মনে করা হচ্ছে। কারণ, সড়কপথে সেনা কনভয়ে মাঝে-মধ্যেই হামলা হয় কাশ্মীরে।

এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় জওয়ানদের সরাতেও ব্যবহার করা হবে বিমান। অকাশপথে দিল্লি – শ্রীনগর, শ্রীনগর – দিল্লি, জম্মু – শ্রীনগর, শ্রীনগর – জম্মুর মধ্যে যাতায়াত করবেন জওয়ানরা। ছুটিতে যাওয়ার সময়ে কিংবা ছুটি থেকে কাজে যোগদানের সময়েও জওয়ানরা বিমানে করে যাতায়াত করতে পারবেন।

Read More : ফের সার্জিক্যাল স্ট্রাইক? লঞ্চপ্যাড থেকে জঙ্গি সরাচ্ছে পাকিস্তান

প্রসঙ্গত, পুলওয়ামায় হামলায় নিহত হন ৪০ জনের বেশি সিআরপিএফ জওয়ান। প্রায় আড়াই হাজার বাহিনীর কনভয়ে হামলা চালায় এক আত্মঘাতী জইশ জঙ্গি। এর পরেই কেন্দ্রের উপর বাহিনীর নিরাপত্তা নিয়ে চাপ বাড়তে থাকে। তার জেরেই কেন্দ্র তড়িঘড়ি এমন সিদ্ধান্ত নিল বলে মনে করছেন অনেকে।