করোনা সংক্রমণ রুখতে ব্যাঙ্কিং পরিষেবায় বড়সড় বদল

265

গোটা দেশে করোনাতে সংক্রমিত হয়েছে ১১ লক্ষ ৫৫ হাজার ১৯১ জন মানুষ। মৃত্যুর সংখ্যা  ২৮ হাজারের কাছাকাছি। আমাদের রাজ্যে‌ প্রতিদিন ২০০০ করে মানুষ করোনাতে সংক্রমিত হচ্ছেন। দিন দিন বেড়েই চলেছে করোনা সংক্রমণ। এই পরিস্থিতিতে করোনা নিয়ে মানুষের মনে একটি আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে।

করোনা সংক্রমণ এমনভাবে লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়েই চলেছে যে মানুষ ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে পড়ছেন। এরকম পরিস্থিতিতে মুখ্যমন্ত্রী সহ মুখ্যসচিব প্রত্যেকেই রাজ্যবাসীকে আশ্বস্ত করছেন। রাজ্য সরকার উপসর্গহীন করোনায় সংক্রমিত মানুষদের জন্য টেলিমেডিসিন ব্যবস্থা ও চালু করেছেন। এরপর রাজ্য সরকার ঘোষণা করেছিলেন যে সপ্তাহের মধ্যে দুদিন সম্পূর্ণ লকডাউন হবে।

সপ্তাহের মধ্যে যে দুদিন লকডাউন হবে সেই দুদিন সমস্ত অফিস কাছারি বন্ধ থাকবে এমনকি কোনও পরিবহন ও চলবে না। এই সপ্তাহে লকডাউন এর দিন ঘোষণা করা হয়েছিল বৃহস্পতি ও শনিবার। সেই অনুযায়ী আজ সম্পূর্ণ লকডাউন।

আজ, সারাদিনই থাকবে পুলিশি নজরদারি। এ সপ্তাহে শনিবারও লকডাউন। আগামী সপ্তাহে বুধবার এবং আরও একটি দিন লকডাউন থাকবে রাজ্য জুড়ে। এ দিন যাঁরা গাড়ি নিয়ে বেরচ্ছেন, তাঁরা কোথায় যাচ্ছেন, কী কারণে বেরিয়েছেন তা জানতে চাইছেন পুলিশকর্মীরা। দেখতে চাওয়া হচ্ছে পরিচয়পত্র। লকডাউনে শুধু মাত্র জরুরি পরিষেবার ক্ষেত্রে ছাড় রয়েছে।

আরও পড়ুন :- সপ্তাহে ২দিন লকডাউন; কী কী ছাড় থাকছে? দেখে নিন সম্পুর্ণ তালিকা

তবে প্রতি সপ্তাহেই কিন্তু বৃহস্পতি, শনিবার লকডাউন নয়। এই সপ্তাহের জন্যই এই দুটি দিন ধার্য হয়েছে। প্রতি সপ্তাহে লকডাউনের দিন পরিবর্তন হবে। ঠিক যেমন আগামী সপ্তাহে লকডাউন এর দুটি দিনের মধ্যে একটি দিন হল বুধবার। অপর আরেকটি দিন পরবর্তীকালে ঘোষণা হবে।

সম্প্রতি রাজ্য সরকার ঘোষণা করেছেন যে আজ লকডাউনের আওতায় পড়বে রাজ্যের সকল ব্যাঙ্ক। অর্থাৎ বৃহস্পতিবার রাজ্যের সব ব্যাঙ্কের সবকটি শাখায় বন্ধ থাকবে। নবান্নের পক্ষে জানানো হয়েছে যে, এখন আপাতত মাসের সব শনি ও রবিবার বন্ধ রাখতে হবে সব শাখা। এমনিতে সব রবিবার ব্যাঙ্ক বন্ধ থাকলেও সপ্তাহের প্রথম, তৃতীয় শনিবার ব্যাঙ্কে পরিষেবা মেলে। কোনও মাসে পঞ্চম শনিবার থাকলে সেদিনও ব্যাঙ্ক খোলা থাকে। রাজ্য সরকারের নতুন নির্দেশে বলা হয়েছে, করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতিতে আপাতত সব ব্যাঙ্কের সব শাখা বন্ধ থাকবে সব শনিবারই।

গ্রাহক পরিষেবার সময় কমিয়ে ১০ টা থেকে দুপুর ২ টো অবধি করে দেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ বর্তমান পরিস্থিতিতে সাধারণ মানুষ ব্যাঙ্কের শাখায় গিয়ে পরিষেবা পাবেন সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ২টো পর্যন্ত সপ্তাহে ৩ দিন। পাশাপাশি ব্যাঙ্ক স্যানিটাইজ করার জন্য বন্ধ থাকবে প্রতি সপ্তাহের শনিবার। রবিবার এমনিতেই বন্ধ, আর শনিবার এবং সপ্তাহে দুদিন লকডাউন বন্ধ থাকবে ব্যাঙ্ক বলে জানা যাচ্ছে। আর এর ফলে যে দিনগুলিতে ব্যাঙ্ক খোলা থাকবে সেই দিনগুলিতে ব্যাঙ্ক কর্মীদের চাপ বাড়বে এবং শাখায় ভিড় বাড়বে বলেও মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন :- SBI গ্রাহকরা ATM থেকে বিনামূল্যে পাবেন এই ১০টি গুরুত্বপূর্ণ পরিষেবা

এখন লকডাউনের আওতায় ব্যাঙ্ককেও যুক্ত করায় একটা নতুন প্রশ্ন তৈরি হল। সপ্তাহে দু’দিন লকডাউনের যে ঘোষণা করা হয়েছে তা শনি বা রবিবার না হলে কোন সপ্তাহে ব্যাঙ্ক চার দিন পর্যন্ত বন্ধ থাকতে পারে। রাজ্যের পরামর্শ অনুসারে পশ্চিমবঙ্গের ব্যাঙ্ক অ্যাসোসিয়েশনের তরফ থেকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, এখন থেকে প্রতিটি ব্যাঙ্কের শাখা খোলা থাকবে সকাল দশটা থেকে দুপুর দুটো পর্যন্ত।

আরও পড়ুন :- সপ্তাহে ২ দিনের লকডাউন কতটা কার্যকারী? কি বলছেন চিকিৎসকরা?

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, দেশজুড়ে লকডাউন চলাকালীন বন্ধ হয়নি ব্যাঙ্কিং পরিষেবা। বহু ব্যাঙ্ক কর্মী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় এই নিয়ে ব্যাঙ্ক কর্মীদের মধ্যে ক্ষোভ বাড়ছিল। ব্যাঙ্ক কর্মী সংগঠনের প্রতিনিধিরা সম্প্রতি মুখ্যমন্ত্রীকে সপ্তাহে পাঁচদিন ব্যাঙ্ক খোলা রাখার এবং বাকি দু’দিন ব্যাঙ্ক স্যানিটাইজ করার অনুরোধ জানিয়েছিলেন। সেই দাবিকে মান্যতা দিয়েই ব্যাঙ্ককে এবার লকডাউনের আওতাতেও নিয়ে আসা হল।