এয়ারস্ট্রাইকের প্রশ্ন তুলে পাকিস্তানের সংবাদ শিরোনামে মমতা

2235

সামনেই লোকসভা নির্বাচন। ভোটে কে জিতবে তাও ভবিষ্যৎ। বিরোধী জোট এক সাথে লড়াই করে যদি আগামী লোকসভা নির্বাচনে জয় হাসিল করে তাহলে কে প্রধানমন্ত্রী হবেন তাও এখনো ঠিক হয়নি। কিন্তু এর আগেই বিরোধী জোটের অন্যতম মুখ বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যমের শিরোনামে উঠে এলেন। পাকিস্তানি সংবাদ মাধ্যমে উঠে আসার মূল কারণ হলো, এয়ার স্ট্রাইকে কত জন জঙ্গি নিহত হয়েছে? এর হিসাব চেয়ে। হিসাব চেয়ে ছিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর মমতা ব্যানার্জির সেই প্রশ্নকে ঢাল করেই নয়াদিল্লির এয়ার স্ট্রাইকে নিহত জঙ্গীদের অভিযোগ খন্ডনের মরিয়া পাক সংবাদ মাধ্যম। বিষয়টি নিয়ে এই দিন ট্যুইটও করেছেন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়।

পুলওয়ামায় সিআরপিএফ জওয়ানদের উপর জঙ্গি হামলার পর গোটা দেশ এক জোট হয়। গোটা দেশ ফুঁসতে থাকে পাক মদদপুষ্ট জঙ্গী সংগঠন জৈস-ই-মহম্মদ এবং পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বদলা নেওয়ার। তারপরই ২৬ শে ফেব্রুয়ারি ভারতীয় বায়ুসেনার অতর্কিতে হানা পরে পাকিস্তানের আকাশে। ভারতীয় বায়ুসেনার সেই এয়ার স্ট্রাইকে ধ্বংস হয়ে যায় পাকিস্তানের মাটিতে থাকা বেশ কয়েকটি জঙ্গি সংগঠনের কন্ট্রোল রুম এবং সদর দপ্তর। সূত্রের খবর নিহত হয় কমপক্ষে ৩০০ জন জঙ্গি। এরপর বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্তব্যকে ব্যবহার করতে থাকি পাকিস্তানি মিডিয়া এবং পাকিস্তান। বিষয়টিকে তুলে ধরে মমতা ব্যানার্জিকে এদিন কটাক্ষ করেছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। বিষয়টি অত্যন্ত লজ্জাজনক বলেও টুইটারে লেখেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রীর মন্তব্য জাতির প্রতি অসম্মান বলে উল্লেখ করেন।

টুইটারে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় লেখেন, “বালাকোটে ভারতীয় বায়ুসেনার এয়ার স্ট্রাইক ধ্বংস নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন মমতা ব্যানার্জি। পাকিস্তানিরা এই মন্তব্যকে তুলে ধরে বলছে, দেশের এক মুখ্যমন্ত্রী জানাচ্ছে কিছুই হয়নি। মমতাজি আমাদের জাতির প্রতি অসম্মান করেছেন।”

যদিও বালাকোটে ভারতীয় বায়ুসেনার এয়ার স্ট্রাইক চালানোর পর ভারতীয় বায়ুসেনাকে অভিনন্দন জানিয়েছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। কিন্তু এরপর বিজেপি শিবির দাবি করতে থাকে, বলিষ্ঠ রাজনৈতিক নেতৃত্বের জন্যই পাকিস্তানের মাটিতে জঙ্গিঘাঁটিতে আক্রমন করা সম্ভব হয়েছে। আর এই আক্রমনে নিহত হয়েছে ৩০০ জন জঙ্গি। এরপরই সোচ্চার হোন মমতা ব্যানার্জি। তিনি বলেন ভারতীয় বায়ুসেনার সাফল্যকে রাজনৈতিক স্বার্থে ব্যবহার করা হচ্ছে। প্রশ্ন তোলেন অভিযানে ধ্বংসের যে দাবি কেন্দ্র করছে তা প্রকাশ্যে কেন আনা হচ্ছে না?

بھارتیوں کا سوال؟ مودی بیوقوف مت بناو

بھارتیوں کا سوال؟ مودی بیوقوف مت بناو

24 News HD यांनी वर पोस्ट केले शुक्रवार, १ मार्च, २०१९

Read More : পাকিস্তানে ৫৮ ঘণ্টা! কীভাবে কাটালেন অভিনন্দন? শুনে নিন ওনার মুখেই

দেশের অভ্যন্তরে মমতা ব্যানার্জির এমন মন্তব্য ঘিরে বিতর্কের ঝড় ওঠে। আর সেই ঝড়কে কাজে লাগিয়ে নিজেদের আখের গোছানোর চেষ্টা করে পাকিস্তানি মিডিয়া। শুধু মমতা ব্যানার্জি নন, ২৭ ফেব্রুয়ারি বিরোধী জোটের বৈঠকেও একই সুর শোনা যায় কংগ্রেস সহ অন্যান্য নেতাদের গলায়। তবে পাকিস্তানি মিডিয়ায় উঠে এসেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্তব্যই। এরপরই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়ায় বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে সরব হন।