বাংলা ধারাবাহিকগুলোর সংলাপ ‘যুক্তিহীন’, ‘বোকা বোকা’! বিস্ফোরক সুমন্ত মুখোপাধ্যায়

অনিচ্ছা সত্ত্বেও যুক্তিহীন সংলাপ বলতে বাধ্য করা হয়! বাংলা ধারাবাহিক নিয়ে বিস্ফোরক সুমন্ত

Sumanta Mukherjee shared his working Experience in Bengali Serials

ইদানিং ধারাবাহিকের (Bengali Serial) দৌলতে বহু চেনা তারকার অভিনয় দেখার সুযোগ থাকে দর্শকের কাছে। তবে বর্তমান বাংলা ধারাবাহিকে কাজ করে তারা আদেও সন্তুষ্ট কি? টলিউডের (Tollywood) বর্ষীয়ান অভিনেতা যারা, অভিনয় যাদের রন্ধ্রে, তাদের মধ্যে অনেকেই অভিনয়ের প্রতি আনুগত্য থেকে বাংলা ধারাবাহিকে কাজ করছেন। তবে বাংলা ধারাবাহিকের সেকাল-একাল তাদের ভেতর ভেতর প্রবলভাবে নাড়া দিয়ে যায়। এমনই একজন মানুষ হলেন অভিনেতা সুমন্ত মুখোপাধ্যায় (Sumanta Mukherjee)।

‘মাস্টারমশাই, আপনি কিন্তু কিছু দেখেননি’! ঠান্ডা চোখ, শান্ত গলায় হিমস্রোত বইয়ে দেওয়া সংলাপ, যা ক্যামেরার পর্দার সামনে আওড়ে পর্দার এপারের দর্শকদের বারবার শিহরিত করেছেন সুমন্ত। এরপরেও বহু ছবিতে তার উপস্থিতি দর্শককে বারবার শিউরে উঠতে বাধ্য করেছে। খলনায়কের ভূমিকায় বারবার নিজেকে প্রকাশ করেছেন সুমন্ত। প্রশংসা কুড়িয়েছেন, তবুও না পাওয়ার যন্ত্রণা রয়েই গিয়েছে তার মনে।

টলিউডের এই বর্ষীয়ান অভিনেতা আপাতত একের পর এক বাংলা ধারাবাহিকের চুটিয়ে কাজ করছেন। তবে ধারাবাহিকের কাজ নিয়ে তিনি খুব বেশি সন্তুষ্ট নন। বাংলা ধারাবাহিকের সেকাল-একাল নিয়ে এবিপি আনন্দের  কাছে এক সাক্ষাৎকারে সুমন্ত তুলে ধরলেন তার মনের কথা। অভিনেতার কথায়, “আগে মেগা সিরিয়ালের শ্যুটিংয়েও অনেক ভাবনাচিন্তা করা হত। শিল্পীদের সঙ্গে চিত্রনাট্য নিয়ে পরিচালকের কথা হত। আমরা নিজেদের মতামত জানাতে পারতাম। এখন সেইসব কিছু হয় না, বরং এখন প্রশ্ন করা বিপদ।”

সুমন্ত বলেছেন, “প্রশ্ন করলে কেউ উত্তর দিতে পারে না। বলে, এটা চ্যানেল থেকে সিদ্ধান্ত হয়েছে। কোনও সংলাপ বোকা বোকা বা যুক্তিহীন মনে হলেও আমরা বদলাতে পারি না। আমাদের অবস্থা খুব করুণ”। তবে একটা সময় ছিল যখন কিন্তু বাংলা ধারাবাহিকের এমন করুণ পরিস্থিতি ছিল না। ছোটপর্দাতেই প্রথম দিকে যে ধারাবাহিকগুলি হতো, সেখানে শুটিংসেটের কলাকুশলীদের মধ্যের দৃশ্য ছিল কার্যত আলাদা।

Sumanta Mukherjee

এতদিন টলিউডের কাজ করার পরিপ্রেক্ষিতে ইন্ডাস্ট্রির উপর তার কোনও অভিমান নেই, তবে রয়েছে আফসোস। সাক্ষাতকারে তিনি বলেছেন, “আমি খুব অল্প ছবিতেই অভিনয়ের সুযোগ পেয়েছি। তবে আমি বিশ্বাস করি, আমার নিজের যা প্রতিভা আছে, তাতে এটুকুই সুযোগ পাওয়ার ছিল আমার। তাই কোথাও কোনও অভিমান নেই।” আর আফসোস বলতে এটুকুই যে, “আমায় সবাই একরকম চরিত্র অফার করতেন। নিজেকে তাই বার বার পুনরাবৃত্তি করে যেতে হয়েছে। অভিনেতা হিসেবে এটা আমার খারাপ লেগছে। আমি অন্যধরণের চরিত্র পেলে সেখানে অভিনয় করতে চাইতাম।”