জাতে মুসলিম! তাই গাজীর প্রেমপ্রস্তাব ফেরালেন এক তরুণী, মোক্ষম জবাব দিলেন অভিনেতা

মুসলিম বলে গাজীর প্রেমপ্রস্তাব প্রত্যাখ্যান! তরুণীকে মোক্ষম জবাব দিলেন অভিনেতা

একখান ইটিশ পিটিশ প্রেম’ করতে মন চেয়েছে ‘করুণাময়ী রানী রাসমনি’র (Karunamoyee Rani Rashmoni) স্বামী ‘রাজচন্দ্র’র! তাই সোশ্যাল মিডিয়া মারফত মনের মানুষ খুঁজতে শুরু করেছিলেন গাজী আব্দুন নূর (Gazi Abdun Noor)। তার এমন আবদারে সাড়া দিয়েছেন বহু তরুণী। অনেকে আবার তার এই ‘ইটিশ পিটিশ’ প্রেম করার মনোবাসনা নিয়ে রঙ্গ-তামাশায় মেতেছেন। মজার মজার কমেন্টে ভরে উঠছিলো গাজীর কমেন্টবক্স। আর ঠিক তখনই জনৈক তরুনীর মন্তব্যে বেশ শোরগোল পড়ে গেল কমেন্ট বক্সে।

ওই তরুণী সরাসরি জাতপাতের প্রসঙ্গ তুলে ধরে কমেন্ট করেন, “মুসলিম না হয়ে হিন্দু হলে রাজি ছিলাম”। সমাজমাধ্যমে এইভাবে সরাসরি জাতপাতের প্রসঙ্গ তুলে ধরাতে স্বভাবতই ওই তরুণীর উপর চটেছেন বহু নেট নাগরিক। তরুণীর এই কমেন্ট খোদ পোস্টদাতার নজর এড়ায়নি। ওই তরুণীর এমন মনোভাবে বেশ বিরক্ত হয়েছেন গাজী। তৎক্ষণাৎ তরুণীকে উপযুক্ত জবাব দিয়েছেন তিনি। সরাসরি জানিয়ে দিয়েছেন, এমন মনোভাবের মানুষ কার্যত তার ফেসবুকের বন্ধু হওয়ারও যোগ্য নন!

ওই তরুণীর কমেন্টের পরিপ্রেক্ষিতে গাজীর পাল্টা জবাব, “প্রেম তো অনেক দূরের কথা!! এমন মানসিকতার লোক আমার প্রোফাইলেও রাখতে চাই না…”। গাজী শুধু একা নন, ওই তরুণীর এমন মন্তব্যে অন্যান্য নেটিজেনরাও বেজায় ক্ষুব্ধ হয়েছেন। একবিংশ শতাব্দীতে দাঁড়িয়ে তরুণীর এমন মন্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েছেন তারা।

প্রসঙ্গত, গাজী আব্দুন নূরের জীবনে এর আগেও বসন্তের হাওয়া এসে লেগেছিল। প্রেমে পড়েছিলেন তিনি। তবে সেই প্রেম বেশিদিন টেঁকেনি। প্রেমে আঘাত পাওয়ার পর সেই পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠতে বেশ বেগ পেতে হয়েছিল তাকে। জনৈক সংবাদমাধ্যমের কাছে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে নিজের জীবনের সেই দুর্বিষহ দিনের অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরেছিলেন তিনি।

গাজী জানিয়েছিলেন, “২০১৫ তে ব্রেক আপের সময় নিজের হাতে মাথা মুড়িয়ে প্রতিজ্ঞা করেছি, সব করব প্রেম করব না। আর ওই পথ মাড়াই? যাচ্ছেতাই গিয়েছে দিনগুলো। কী ভাবে শুট করতাম আর তার পর কী ভাবে ভেঙে পড়তাম, বন্ধুরা জানেন”। তবে এবার মনে হচ্ছে নিজের সিদ্ধান্ত বদলিয়েছেন রানী রাসমণির স্বামী! এতদিনে নিজের জীবনের প্রেম বিপর্যয় কাটিয়ে উঠতে পেরেছেন গাজী। সোশ্যাল মিডিয়ায় তার পোস্ট থেকে তেমনটাই আভাস মিলছে।

করুণাময়ী রানী রাসমণি ধারাবাহিকে জমিদার রাজচন্দ্রের ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন গাজী। সুদর্শন চেহারার এই অভিনেতাকে জমিদার হিসেবে মানিয়েছিল বেশ। মহিলা অনুরাগীদের হার্টথ্রব তিনি। যদিও বেশ বহুদিন আগেই রাজচন্দ্রের জীবনাবসানের সঙ্গে সঙ্গে ধারাবাহিকে গাজী আব্দুন নূরের সফর শেষ হয়ে যায়। সময়ের অগ্রগতির সঙ্গে সঙ্গে ধারাবাহিকের গল্পের প্রেক্ষাপটও বদলে গিয়েছে। আজ রাণীমা অর্থাৎ দিতিপ্রিয়া রায়, রাণীমার আদরের ছোট জামাই মথুরমোহন অর্থাৎ গৌরব চট্টোপাধ্যায়ও ধারাবাহিক থেকে বিদায় নিয়েছেন।