প্রয়াত জনপ্রিয় টেলি অভিনেতা, শোকস্তব্ধ টলিউড

শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন বর্ষীয়ান অভিনেতা গৌতম দে। দীর্ঘদিন ধরে ক্যানসারে ভুগছিলেন এই অভিনেতা। এমনকি বিগত বেশ কয়েকদিন তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে। অথচ তাই নিয়েই শুটিং করছিলেন তিনি। সোমবার সকাল সাড়ে সাতটা নাগাদ প্রয়াত হন এই বিশিষ্ট অভিনেতা।  মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৫ বছর। দীর্ঘদিন ধরেই ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন তিনি। সোমবার সকাল ৭টা নাগাদ শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে মৃত্যু হয় তাঁর।

 

বাংলা সিরিয়ালেন জনপ্রিয় মুখ গৌতমবাবু তাঁর অভিনয় জীবন শুরু করেন থিয়েটার দিয়ে। ১৯৮০ সালে প্রথম থিয়েটারের মঞ্চে পা রাখেন। তাঁর অভিনীত প্রথম বাংলা নাটক ‘শ্রীমতী ভয়ঙ্করী’ বেশ সাড়া ফেলে থিয়েটারের জগতে। রবি ঘোষ, বাসবী নন্দী, শেখর চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে একই মঞ্চে তাঁর সৃজনশীল অভিনয় নজর কাড়ে দর্শকদের। ‘সাবাস পেটোপাঁচু’, ‘দম্পতি’, ‘বৈশাখী ঝড়’-সহ তাঁর অভিনীত একাধিক নাটক রঙ্গনা, বিশ্বরূপা, রংমহল, বিজন থিয়েটারের মঞ্চ আলো করেছে।

 

জনপ্রিয় সিরিয়াল ‘জন্মভূমি’তে তাঁর অভিনয় মন কাড়ে সকলেরই। থিয়েটারের মঞ্চ থেকে গৌতমবাবুর পরিচিতি ছড়িয়ে পড়ে সন্ধের বৈঠকখানায়। ‘এ কোন সকাল’, ‘তিথির অতিথি’, ‘ধ্যাৎ তেরিকা’, ‘লাবণ্যের সংসার’, ‘খুঁজে বেড়াই কাছের মানুষ’-সহ আরও অনেক সিরিয়ালের চেনা মুখ তিনি।  সম্প্রতি দু’টি জনপ্রিয় টেলি সিরিয়াল— ‘রানি রাসমণি’ এবং ‘কুসুমদোলা’-তেও তাঁকে দেখা গিয়েছে।

তাঁর মৃত্যুতে টেলিজগতে শোকের ছায়া। বহু বিশিষ্ট শিল্পীরা শোকবার্তা জানিয়েছেন। জন্মভূমি ধারাবাহিকে নরনারায়ণের ভূমিকায় জনপ্রিয় হয়েছিলেন গৌতম দে। তাঁর প্রয়াণ নাট্যজগতে অপূরণীয় ক্ষতি, বলছে শিল্পীমহল। শোকস্তব্ধ টলিপাড়া।

অভিনেত্রী সুদীপ্তা চক্রবর্তী সোশাল মিডিয়ায় শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করে লিখেছেন, ”তোমার হাসিমুখটাই মনে থাকবে গৌতম দা…. যীশু দা ‘সুন্দরী গৌতম’ ডাকলে তোমার সলজ্জ প্রশ্রয় দেওয়া হাসিটা… আর আমাকে দেখলেই ‘দিদিমণি’ বলে ডাকা টা…….. Rest in peace…….” সোমবার দুপুরে ১:৩০মিনিটে তাঁর নিথর দেহ টেকনিশিয়ান স্টুডিওতে নিয়ে আসা হবে। সেখানেই শেষশ্রদ্ধা জানাবেন অভিনয় জগতের মানুষেরা।

Loading...