লকডাউনে কাজ হারিয়েছেন? জেনে নিন বাড়ি বসেই উপার্জন করার ৯টি উপায়

করোনা মহামারীর সময় সবথেকে বেশী প্রভাব পড়েছে কর্মক্ষেত্রে। কাজ হারিয়েছেন বহু মানুষ। পরিসংখ্যানে দেখা গেছে পরিষেবা ক্ষেত্রগুলোতেই প্রায় ১ কোটি নব্বই লক্ষ মানুষ কাজ হারিয়েছেন। তাহলে উপায়?

বর্তমান সময় এমন অনেক বিকল্প কাজ মানুষের হাতের কাছে আছে যাতে বাড়ি বসেই এই পথগুলি ব্যাবহার করে আয় করতে পারে মানুষ।এই ডিজিটাল পেশাগুলী কি কি তা এক নজরে দেখে নেওয়া যাক।

১. ইনস্টাগ্রাম মার্কেটিং :- বর্তমানের ডিজিটাল বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম ইনস্টাগ্রাম। প্রত্যেকদিন কোটি কোটি ছবি শেয়ার করা হয় এই প্ল্যাটফর্মে। সম্প্রতি এই সোশ্যাল নেটওয়ার্কে বিভিন্ন বিপননি সংস্থা নিজেদের ব্যবসা মেলে ধরছে। সুতরাং আপনার যদি ইনস্টাগ্রামে অ্যাকাউন্ট থাকে বা তৈরি করে নেওয়া যায় তাহলে বাড়ি বসেই এই সময় বিজ্ঞাপনের কাজ করাই যায়।

২. সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং :- বর্তমান পরিস্থিতিতে সংস্থাগুলি বিভিন্ন ব্র্যান্ডের পেজ ম্যানেজ করার জন্য সাবলীল ব্যাক্তিদের ওপর অনেকাংশ নির্ভর করছে। ফলে আপনার যদি এই বিষয় উৎসাহ থাকে তবে আপনিও চেষ্টা করে দেখতে পারেন।

৩. গ্রাফিক ডিজাইনার :- যদি আপনি শৈল্পিক মানসিকতার মানুষ হন তাহলে আপনি আপনার সেই শিল্পী সত্তাকে গ্রাফিকস ডিজাইনিং এর কাজে লাগাতেই পারেন। তবে এর জন্য ফটোশপ সহ কিছু সফটওয়্যার সম্পর্কে জানা প্রয়োজন।যদি ঘরে বসে এই কাজ করতে পারেন তবে ভালোই আয় হবে।

৪. ব্লগিং, প্রুফ রিডিং এবং অনুলিখন :- প্রযুক্তির যুগে ব্লগিং এর চাহিদা বেশী। এবার বর্তমানে লক ডাউন ও সোশ্যাল ডিসটেন্স এর যুগে  এর চাহিদা আরও বেড়েছে। তাছাড়াও প্রুফ রিডিং ও অনুলিখন এর মতন কাজও বাড়ি বসেই করা যায়।

৫) অ্যাড ক্লিকিং:- ইন্টারনেটে বেশ কিছু বিদেশী পিটিসি বা পেড টু ক্লিক সাইট রয়েছে যেখানে শুধু বিজ্ঞাপন ক্লিক করলেই টাকা পাওয়া যায়। তবে এখানে পেমেণ্ট পেপ্যাল-এর মাধ্যমে হয়। তাই কাজ শুরু করার আগে একটি পেপ্যাল অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে হবে।

৬) অনলাইন টিচিং :- বাড়িতে বসে অনলাইনেই ক্লাস নিতে পারেন। বহু সাইট রয়েছে যাঁরা এই পরিষেবা দিয়ে থাকেন এবং এখন এই কাজটি ভারতীয়দের মধ্যে খুব জনপ্রিয়।

৭) জিপিটি জব :- জিপিটি বা গেট পেইড টু টাস্ক হল টাকার বিনিময়ে কারো কাজ করে দেওয়া। অনলাইনে খুঁজলে অনেক ওয়েবসাইট পাবেন যারা তাদের মেম্বারদেরকে এই ধরণের কাজ দিয়ে যাচ্ছেন। আপনি সহজেই সে-সব ওয়েবসাইট থেকে কাজ পেতে পারেন। কিন্তু কাজ পেতে হলে আপনাকে অবশ্যই ওয়েবসাইটগুলোতে সাইন আপ করতে হবে।

৮) ইউটিউব চ্যানেল :- ইউটিউব পার্টনার হয়ে, ইউটিউবে প্রতিদিন ভিডিও আপলোড করেও টাকা অর্জন করতে পারেন। এর জন্য একটা ডিজিটাল মুভি ক্যামেরা প্রয়োজন আর প্রয়োজন কিছু দারুণ ভাল আইডিয়ার। কোনও মজার ভিডিও বা রান্নার ভিডিও বা কোনও শিক্ষামূলক (ডিআইওয়াই) ভিডিও আপলোড করতে পারেন।

৯) কনটেন্ট রাইটিং :- আপনার যদি ভাল লেখার দক্ষতা থাকে, তাহলে আপনার জন্য ইন্টারনেটে প্রচুর কাজ আছে। আপনি ৫০০ শব্দের কন্টেন্ট এর জন্য ১০০ থেকে ২০০ টাকা আয় করতে পারেন। ব্লগ এবং ওয়েবসাইট, প্রুফরিডিং, একাডেমিক লিখন, কপিরাইট ইত্যাদি লেখার মতো লেখার বিভিন্ন ধরনের কাজ রয়েছে।