খুল্লামখুল্লা সেক্স, যৌনতায় ভরপুর, ভারতে নিষিদ্ধ হয়েছে এই ৬ বলিউড সিনেমা

ভরপুর যৌনদৃশ্য, খুল্লামখুল্লা যৌনতা, ভারতে নিষিদ্ধ হয়েছে এই ৬ বলিউড সিনেমা

6 Bollywood Movies That were Banned in India Because of Controversies

যৌনতা বা চুম্বন দৃশ্য হলিউডের ছবির সংস্কৃতি হলেও ভারতীয় সংস্কৃতির সঙ্গে খাপ খায় না। আর তাই তো প্রথম প্রথম বলিউডে (Bollywood) যখন এমন ছবি মুক্তি পেত তখন দর্শকদের তরফ থেকে এসেছে তীব্র বাধা। সেন্সর বোর্ডের তরফ থেকে তাই এমন ছবির সম্প্রচারের উপর নিষেধাজ্ঞা (Bollywood Banned Movie List) চাপিয়ে দেওয়া হয়। এই তালিকায় রয়েছে কোন কোন ছবি, দেখে নিন তালিকা।

কর্মা (Karma) : ১৯৩৪ সালে নির্মিত এই ছবিতে একটি চুম্বন দৃশ্য ছিল। যেখানে অভিনেতা হিমাংশু রাই এবং অভিনেত্রী দেবিকা রানীর লিপ লক ক্যামেরাবন্দী করা হয়েছিল। এটাই ছিল ভারতের প্রথম চুম্বনের দৃশ্য। তবে দর্শকরা মোটেই দৃশ্যটিকে ভাল চোখে নেননি। ছবিটি প্রশংসার বদলে অনেক তিরস্কার কুড়িয়েছিল। যদিও এই ছবিটিকে ব্যান কিংবা বয়কট করা হয়নি।

First kiss in Indian cinema... Devika Rani and Himanshu Rai starrer Karma in 1934.

ব্যান্ডেড কুইন (Bandit Queen) : ১৯৯৪ সালের সীমা বিশ্বাস অভিনীত এই ছবিতে একটি বোল্ড সিন দেখানো হয়েছিল। অভিনেত্রী সীমা বিশ্বাসকে নগ্ন হয়ে একটি দৃশ্যের শুটিং করতে হয়। ছবিটি মুক্তি পাওয়ার পর দর্শকরা দৃশ্যটিকে অশ্লীল বলেছিলেন এবং কিছুদিন চলার পর ছবিটিকে ব্যান করে দেওয়া হয়। অবশ্য ওটিটি প্ল্যাটফর্ম এবং টিভিতে অবাধ বিচরণ আছে ব্যান্ডেড কুইনের।

ফায়ার (Fire) : ১৯৯৬ সালে মুক্তি পেয়েছিল এই ছবিটি। দীপা মেহতা পরিচালিত এই ছবিতে নন্দিতা দাশ এবং শাবানা আজমি অভিনয় করেন। ছবিতে সমকামিতা দেখানো হয়েছিল। বলিউড ছবিতে দুটি মেয়ের মধ্যে সমকামী সম্পর্ক একদম ভালভাবে নেননি দর্শকরা। মহারাষ্ট্রে শিবসেনা বিক্ষোভ দেখা শুরু করে। এছাড়াও ছবিটিকে কেন্দ্র করে গোটা দেশে কার্যত বিক্ষোভের আগুন জ্বলছিল। সেন্সর বোর্ড শৃঙ্খলা বজায় রাখতে ছবিটিকে নিষিদ্ধ করে তবে ওটিটিতে ছবিটির জন্য অবারিত দ্বার রয়েছে।

কামা সূত্র (Kamasutra) : বলিউডের বিতর্কিত ছবিগুলোর মধ্যে এই ছবিটিও রয়েছে। ১৯৯৬ সালে মুক্তি পেয়েছিল ছবিটি। যার বিষয়বস্তু ছিল ষোড়শ শতকে ভারতে গণিকা হয়ে ওঠার কাহিনী। মীরা নায়ার পরিচালিত ছবিতে অভিনয় করেছিলেন রেখা। ছবিটি সমালোচকদের কাছে প্রশংসা পেলেও অশ্লীলতার কারণে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়।

পারজানিয়া (Parzania) : ২০০৫ সালে নির্মিত এই ছবিটি গুজরাটের দাঙ্গার ঘটনার আশ্রয়ে বানানো হয়েছিল। ২০০২ সালের সেই রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের সময় নিখোঁজ আজহার নামের একটি ছেলেকে কেন্দ্র করে ছবিটি বানানো হয়েছিল। সেই সময় ছবিটি জাতীয় পুরস্কার পেলেও পরে ছবিটিকে ব্যান করে দেওয়া হয়।

ওয়াটার (Water) : শাবানা আজমি অভিনীত আরেক বিতর্কিত ছবির নাম ওয়াটার। এই ছবির জন্য তাকে একটি ফিনফিনে সাদা থান পরে গঙ্গা থেকে উঠে আসতে দেখে সংঘ পরিবারের তরফ থেকে প্রতিবাদ জানানো হয়। শাবানাকে সরিয়ে পরে সীমা বিশ্বাসকে ছবিতে কাস্ট করা হয়। ছবিটি এরপর প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেলে হিন্দুত্বকে বিকৃত করার অভিযোগে সেন্সর বোর্ডের তরফ থেকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করে দেওয়া হয়।