আইপিএলের ৫ জন আনফিট ক্রিকেটার, তালিকায় ২ জন বিখ্যাত ব্যাটসম্যান

করোনা আবহে বদলে গেছে সব কিছুই। তাই ভরা স্টেডিয়ামের বদলে খালি স্টেডিয়ামেই খেলা হচ্ছে আইপিএলের এই সিজনে। তবে বদল কেবল মাঠের নয়, বদল ঘটেছে প্লেয়ারদের মধ্যেও। দীর্ঘ ছয় মাসের লকডাউনের ফলে নিজেদের ফিটনেস রুটিন থেকে বেরিয়ে পড়েছেন ক্রিকেটাররা।

তার প্রভাব দেখা যাচ্ছে খেলাতেও। মিস হচ্ছে ক্যাচ, সঙ্গে মিসফিল্ডস ঘন ঘন চোখে পড়ছে। আজকে আমরা দেখে নেবো এমন ৫ ক্রিকেটারদের যাদের আইপিএল ২০২০ তে নিজের পুরনো ফর্মে যেতে হলে আরো অনেক ওয়ার্কআউট করতে হবে।

১. রোহিত শর্মা :-

মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের অধিনায়ক রোহিত শর্মা কেকেআরের বিরুদ্ধে গত ম্যাচে প্রথম দিকে দুর্দান্ত ব্যাটিং করলেও ৬৫ রান তোলার পর থেকেই হাঁপাতে শুরু করেন তিনি। দেখেই বোঝা যাচ্ছিল প্রতিটি অতিরিক্ত রান নেওয়ার জন্য দৌড়ানোর সময় কষ্ট হচ্ছিল তাঁর। শেষমেষ প্যাট কামিন্সের হাতে ক্যাচ আউট হন তিনি। লকডাউনে থেকে অনেকটাই ওজন বেড়ে গেছে তাঁর।

২. নিখিল নায়েক :-

আইপিএলের এই মরশুমে কলকাতার ওপেনার হিসেবে নিখিল নায়েককে বেছে নেওয়ার কারণটি যদিও এখনো অস্পষ্ট। তবে মাঠে তাঁর ফর্ম একেবারেই নষ্ট হয়ে গেছে। স্লো ফিল্ডিং, দুর্বল ব্যাটিং ও জোড়ে দৌড়ানোর ক্ষমতা কমে গেছে অনেকটাই। চেহারার দিক থেকেও বেশ বদল ঘটেছে তাঁর।

৪. কুলদীপ যাদব :-

লকডাউনে থেকে ওজন না বাড়লেও, মাঠে নিজের ফর্ম হারিয়েছেন কুলদীপ যাদব। মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের বিরুদ্ধে ম্যাচটিতে ক্যাচ ধরতে না পারা, বল ছুড়তে দ্বিধাগ্রস্ত করা, ফিল্ডিংয়ে তাঁর এত বাজে পারফরম্যান্স দেখে আশাভঙ্গ হয়েছে তাঁর ফ্যানরা। যাদবকে আরো ওয়ার্কআউট করতে হবে তাঁর পুরনো ফর্মে ফেরার জন্য।

৪. অ্যান্ড্রে রাসেল :-

সম্প্রতি কেকেআরের ওপেনিং ম্যাচে একটি বল ক্যাচ করতে নাজেহাল অবস্থা হয়ে গিয়েছিল এই জামেরিকান অলরাউন্ডারের। তাঁর ফিল্ডিং এতটাই ভয়াবহ ছিল যে একটু এদিক থেকে ওদিক হলে একটা বড় দুর্ঘটনা ঘটতে পারত তাঁর ক্যাচ ধরতে গিয়ে। কেকেআরের সবথেকে মারমুখো প্লেয়ারের এইরূপ বাজে ফিল্ডিং পারফরম্যান্স দেখে একেবারেই মুগ্ধ নন ফ্যানরা।

৫. মুরলি বিজয় :-

এক সময়ের অন্যতম সেরা ক্রিকেটার মুরালি বিজয়ের বর্তমান ফর্ম একেবারেই তাঁর ক্যারিয়ারের প্রাইমের মতো নয়। তাঁর বাজে ফিল্ডিং এবং রান তুলতে দেরি করা দেখে অনেকেই মনে করছেন আইপিএলের এই সিজনটি তাঁর শেষ আইপিএল হতে চলেছে।