ক্রিকেটের ৫ অধিনায়ক যারা আইসিসি ট্রফি জিততে পারেননি

ক্রিকেটের বিশ্বে অধিনায়কত্ব একটি বড় দায়িত্ব। একজন অধিনায়ক এর দায়িত্ব থাকে যেকোনো পরিস্থিতিতে বা অন্যভাবে বলতে গেলে যেকোনো ম্যাচেই নিজের দলকে জেতানো। বিশ্ব ক্রিকেট একের পর এক অসাধারণ প্রতিভাসম্পন্ন অধিনায়ক দের দেখেছে। বিশ্ব ক্রিকেটে কিছু এমন অধিনায়ক আছেন যারা একদিনের ক্রিকেট নিজের দলকে একাধিকবার জেতালেও তাদের অধিনায়কত্বে তাদের দল কোনো আইসিসি ট্রফি জিততে পারেনি। দেখে নিন এই তালিকায় কারা আছেন।

৫. গ্রিম স্মিথ :- দক্ষিণ আফ্রিকার প্রাক্তন অধিনায়ক গ্রেম স্মিথের নেতৃত্বে দক্ষিণ আফ্রিকার জাতীয় দল ২০০৩ থেকে ২০১১ পর্যন্ত ১৫০টি ওডিআই খেলেছে। সেই সব ম্যাচ গুলোর মধ্যে ৯২ টি ম্যাচই দক্ষিণ আফ্রিকা জিতেছিল এবং মাত্র ৫১ টি ম্যাচ হেরেছিল। বাকি ম্যাচগুলোর ৬ টি তে কোনো ফলাফল পাওয়া যায়নি এবং একটা ম্যাচ টাই হয়েছিল।

কিন্তু এত জয়ের পরেও তার নেতৃত্বে দক্ষিণ আফ্রিকা কোনো আইসিসি ট্রফি জিততে পারেনি। এই সময়ের মধ্যে দক্ষিণ আফ্রিকা অনেকগুলি আইসিসি টুর্নামেন্টে অংশ নিলেও জিততে পারেনি।এই সময়ের মধ্যেই দক্ষিণ আফ্রিকা ২০০৭ এবং ২০১১ তে একদিনের ক্রিকেট বিশ্বকাপে হেরে যায় এবং অন্য দিকে ২০০৭,২০০৯ এবং ২০১১ এর টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দল পরাজিত হয়। ২০০৬ এবং ২০০৯ এর আইসিসি চ্যাম্পিয়ন ট্রফি তেও দক্ষিণ আফ্রিকার দল জিততে পারেনি।

৪. মাহেলা জয়াবর্ধনে :- ২০০৪ সাল থেকে শুরু করে বেশ অনেক বছর শ্রীলঙ্কার জাতীয় দলের অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন মাহেলা জয়াবর্ধনে। তিনি ইতিহাসের অন্যতম সেরা অধিনায়ক দের একজন। তার সময় শ্রীলঙ্কার জাতীয় দল ১৩৯ টি আন্তর্জাতিক একদিনের ক্রিকেটে অংশ নেয় এবং তার মধ্যেই ৭১ টি ম্যাচ জিতেছিল। ৫৯.০৯ উইন পার্সেন্টেজ হওয়া সত্বেও নিজের জীবনে তিনি কোনোদিন কোনো আইসিসি ট্রফি জেতেননি।

আরও পড়ুন :- ক্রিকেটের এই ১০টি রেকর্ড কোনদিন কারোর পক্ষে ভাঙা সম্ভব নয়

তবে আইসিসি ম্যাচ গুলির মধ্যে সবথেকে উল্ল্যেখযোগ্য ২০০৭ সালের আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ যেখানে তার নেতৃত্বে শ্রীলঙ্কার জাতীয় দল ফাইনালে উঠলেও সেখানে অস্ট্রেলিয়ার কাছে পরাজিত হয়। এছাড়াও টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ এবং চ্যাম্পিয়ন লিগেও তার নেতৃত্বে শ্রীলঙ্কা কোনও খেতাব জেতেনি।

৩. ইঞ্জিমাম উল হক :- পাকিস্থানের জাতীয় ক্রিকেটের ইতিহাসে অন্যতম সেরা অধিনায়ক হিসেবে বিবেচিত হন ইঞ্জিমাম উল হক। তার অধিনায়কত্বে খেলা ৯০ টি একদিনের ম্যাচের মধ্যে ৫২ টিতেই যেতে পাকিস্থান। মাত্র ৩৪ টি ম্যাচে তারা হেরে যায় এবং সেই সময় চারটি ম্যাচ পরিণামহীন ছিল। কিন্তু এত ভালো রেকর্ড থাকা সত্বেও তার অধিনায়কত্বে তার দল কোনো আইসিসি ট্রফি জিততে পারেনি। এমনকি তার নেতৃত্বেই ২০০৭ এর আইসিসি বিশ্ব কাপ থেকে পাকিস্থান প্রথম রাউন্ডেই বেরিয়ে যায়।

আরও পড়ুন :- ক্রিকেট খেলার পাসাপাসি এই ৭ ক্রিকেটার উচ্চপদস্ত সরকারি অফিসার

২. এবি ডিভিলিয়ার্স :- বিশ্বের অন্যতম সেরা ক্রিকেটার এবং অন্যতম অধিনায়ক দক্ষিণ আফ্রিকার এবি ডিভিলিয়ার্স। তার নেতৃত্বে দক্ষিণ আফ্রিকা ১০৩ টি একদিনের ম্যাচ খেলেছিল যার মধ্যে ৫৯টি ম্যাচেই দক্ষিণ আফ্রিকা জিতেছিল। মাত্র ৩৯টি ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকা হেরে যায় এবং বাকি ম্যাচ গুলির মধ্যে ৪ টি ম্যাচে কোনো পরিণামহীন ছিল এবং একটি ম্যাচ ড্র হয়েছিল।

দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক হিসেবে তার উইনিং পার্সেন্টেজ ছিল ৬০.১০। কিন্তু এত ভালো রেকর্ড থাকা সত্বেও তার নেতৃত্বে তার দল কোনো আইসিসি ট্রফি জিততে পারেনি। তার নেতৃত্বে ২০১৫ সালে আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকা সেমি ফাইনাল পর্যন্ত পৌঁছে গিয়েছিল কিন্তু সেখানেই দক্ষিণ আফ্রিকা অস্ট্রেলিয়ার কাছে পরাজিত হয়।

আরও পড়ুন :- ভারতীয় ক্রিকেটারদের ১০টি রেকর্ড যেটা এখনো কেউ ভাঙতে পারেনি

১. বিরাট কোহলি :- বর্তমান ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে বর্তমান সময়ের অন্যতম সফল অধিনায়ক এবং সর্বকালের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান হিসেবে গণ্য করা হয়। তার অধিনায়কত্বে ভারত যে ৮৯ টি একদিনের ক্রিকেট ম্যাচ খেলেছে তার মধ্যে ৬২ টি ম্যাচই ভারত জিতেছে। মাত্র ২৪ টি ম্যাচে ভারত পরাজিত হয় এবং বাকি ম্যাচ গুলির মধ্যে দুটি পরিমাণহীন ছিল এবং ১ টি ম্যাচ টাই হয়।

আরও পড়ুন :- ৩ ভারতীয় ক্রিকেটার যাদের নামে গিনিস রেকর্ড আছে

তার উইনিং পার্সেন্টেজ বিশ্বের মধ্যে অধিনায়ক হিসেবে দ্বিতীয় শ্রেষ্ঠ। এই দৌড়ে প্রথমেই নাম আসে রিকি পন্টিং এর যার উইনিং পার্সেন্টেজ ৭৬.১৪ এবং বিরাট কোহলির ৭১.৮২। কিন্তু এত ভালো রেকর্ড থাকা সত্বেও বিরাট কোহলির অধিনায়কত্বে ভারত কোনো আইসিসি ট্রফি জেতেনি। টি টোয়েন্টি এবং চ্যাম্পিয়ন ট্রফি দুটিতেই জিততে পারেনি ভারত। চ্যাম্পিয়ন ট্রফির ফাইনালে পাকিস্থানের কাছে এবং বিশ্বকাপের সেমি ফাইনালে নিউজিল্যান্ড এর কাছে পরাজিত হয় ভারতীয় দল।