সংকটের মাঝেই অবশেষে স্বস্তির খবর, করোনা মুক্ত পশ্চিমবঙ্গের দুই জেলা

সংকটের মাঝেই অবশেষে স্বস্তির খবর, করোনামুক্ত পশ্চিমবঙ্গের দুই জেলা

রাজ্যে প্রতিনিয়ত বেড়ে চলা করোনা সংক্রমণের সংখ্যা রাজ্য সরকারকে সংকটময় পরিস্থিতিতে ফেলেছে একথা অনস্বীকার্য। ইতিমধ্যেই আবার খুলতে শুরু করেছে ধর্মীয়স্থান, শপিংমল, দোকানপাট, হাট-বাজার। ফলে সংক্রমণের আশঙ্কা অনেকটাই বেড়ে যাচ্ছে। তবে এই সংকটকালীন পরিস্থিতিতে রাজ্যের দুই জেলা  আশার আলো দেখাচ্ছে। এই দুই জেলা করোনা সংক্রামিত হয়েও আজ করোনা মুক্ত।

রাজ্য স্বাস্থ্য ভবন ও রাজ্যের বাসিন্দাদের আশার আলো দেখানো এই দুই জেলা হল পুরুলিয়া ও ঝাড়গ্রাম। রবিবার পশ্চিমবঙ্গ স্বাস্থ্য ভবনের তরফ থেকে যে রিপোর্ট পেশ করা হয়েছে তাতে দেখা গিয়েছে এই দুই জেলায় বেশ কিছু মানুষ করোনা সংক্রমিত হওয়ার পরেও সবাই সুস্থ হয়ে, করোনামুক্ত হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। দুই জেলার মধ্যে ঝাড়গ্রামে হাতেগোনা সংক্রমণের সংখ্যা হলেও পুরুলিয়ায় সংখ্যাটা ছিল বিপুল পরিমাণে।

ঝাড়গ্রামে এখনো পর্যন্ত ১১ জন করোনা সংক্রামিত হয়েছিলেন যাদের মধ্যে শেষ রিপোর্ট অনুযায়ী সবাই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। জেলায় কোন রকম ক্ষয়ক্ষতি ছাড়াই বর্তমানে অ্যাক্টিভ করোনা রোগীর সংখ্যা হল ০। ঠিক একইভাবে পুরুলিয়ায় মোট সংক্রমণের সংখ্যা ছিল ৮৪। যাদের মধ্যে ৮৩ জন আগেই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছিলেন।

সংকটের মাঝেই অবশেষে স্বস্তির খবর, করোনামুক্ত পশ্চিমবঙ্গের দুই জেলা

রবিবারের রিপোর্ট অনুযায়ী শেষ ব্যক্তিও সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেন। অর্থাৎ এই জেলাতেও কোনরকম ক্ষয়ক্ষতি ছাড়াই সবাই করোনামুক্ত। বর্তমানে জেলায় অ্যাক্টিভ কোন রোগীর সংখ্যা ০। তবে এই ধারাবাহিকতা পশ্চিমবঙ্গের এই দুই জেলা ঝাড়গ্রাম এবং পুরুলিয়া কত দিন বজায় রাখতে পারে তাই এখন দেখার।

প্রসঙ্গত, পশ্চিমবঙ্গ স্বাস্থ্য ভবনের রবিবারের রিপোর্ট অনুযায়ী গত ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৫১৮ জন। রাজ্যে বর্তমানে মোট সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যা দাঁড়ালো ৫০৬০। আর সুস্থ হয়ে ওঠার হার দাঁড়ালো ৪৫.৬৩%। বর্তমানে রাজ্যে মোট অ্যাক্টিভ করোনা রোগীর সংখ্যা হল ৫৫৫২।