বিশ্বের ১০ বেঁটে ক্রিকেটার, তালিকায় ভারতীয় ৩ জন

বেশিরভাগ মানুষই মনে করেন যে ক্রিকেটার হতে গেলে তার শারীরিক গঠন যেমন উচ্চতা, ওজন ইত্যাদি খুব বড় প্রভাব ফেলে। কিন্তু এমন কিছু ক্রিকেটার আছেন যারা প্রমাণ করেছেন উচ্চতা নয় বরং খেলার ইচ্ছেটাই আসল। জেনে নিন তাদের কথা

১০. শচীন তেণ্ডুলকর ( উচ্চতা – ৫ ফুট ৫ ইঞ্চি) : ভারতবর্ষে ক্রিকেটকে যদি ধর্ম হিসাবে মানা হয় তাহলে সেই ধর্মের ভগবান হলেন শচীন রমেশ টেন্ডুলকার। ক্রিকেটকে এক নতুন উচ্চতায় নিয়ে যাওয়ার জন্য শচীনের অবদান কোনদিন ভোলার নয়। ২৪ বছর ধরে ভারতীয় ক্রিকেটের ভার বয়ে বেড়িয়েছেন তিনি। কত কত জয় কত আনন্দের উপলক্ষ ছিলেন এই লিটিল মাস্টার। ক্রিকেটপ্রেমীরা শচীনকে মনে রাখবেন শোয়েব আক্তারের বলে স্কয়ার কাটে মারা ছয় কে, মনে রাখবেন ব্রেটলিকে মারা স্ট্রেট ড্রাইভ চার এর জন্য, মনে রাখবেন মুরলী কে মারা পারফেক্ট সুইপার জন্য, কিংবা ওয়াকার ইউনিসকে মারা চারের জন্য।

৯॰ সুনীল গাভাস্কার ( উচ্চতা – ৫ ফুট ৫ ইঞ্চি ) : ইনি যে ক্রিকেটের ইতিহাসের অন্যতম সেরা ওপেনার, এ নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। টেস্টে প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ১০ হাজার রান করা গাভাস্কারকে উচ্চতার জন্য কম কথা শুনতে হয়নি। সমালোচনায় ভেঙে পড়েননি। বরং হুক, পুল, ড্রাইভ খেলে সেঞ্চুরি পর সেঞ্চুরি করে জবাব দিয়েছেন সমালোচকদের।

৮॰ টাতেন্দা টাইবু ( উচ্চতা – ৫ ফুট ৫ ইঞ্চি ) :  এই প্রাক্তন জিম্বাবোয়ে অধিনায়ক জিম্বাবোয়ের একজন নির্ভরযোগ্য উইকেট রক্ষক ছিলেন।

৭. আলভিন কলিচরণ (উচ্চতা – ৫ ফুট ৫ ইঞ্চি) : আলভিন কলিচরণ প্রাক্তন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বা হাতি ব্যাটসম্যান ছিলেন যিনি ১৯৮১ সালে ক্রিকেট থেকে অবসর নেন। তিনি তার ক্রিকেট জীবনে ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে ৪৩৯৯ রান নেন এবং জীবনে ৬৬ টি টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন।

৬. পার্থিব প্যাটেল (উচ্চতা – ৫ ফুট ৩ ইঞ্চি ) : পার্থিব তার জীবনের প্রথম আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলেছিলেন মাত্র ১৭ বছর বয়সে। ২০১৮ সালে শেষ বার দেশের হয়ে টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন পার্থিব। ২০০২ সালে অভিষেক হওয়ার পরে পার্থিব ২৫টি টেস্ট ম্যাচ ও ৩৮টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছেন। টেস্টে পার্থিবের ব্যাটিং গড় ৩১.১৩। ওয়ানডে-তে তাঁর ব্যাটিং গড় ২৩.৭৪।

২০০৩-এ প্রায় দলে ঢুকে পড়েছিলেন পার্থিব পটেল। তবে তখনকার টিম ইন্ডিয়া ক্যাপ্টেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় উইকেট রক্ষক হিসাবে রাহুল দ্রাবিড়ের নাম প্রস্তাব করেন। এর পর এমএস ধোনির যুগ শুরু। ফলে বিশ্বকাপ খেলা আর হয়ে ওঠেনি এই মারকাটারি ওপেনার তথা উইকেট রক্ষকের। ৩৮ ওডিআইতে সর্বোচ্চ রান ৯৫-সহ তাঁর সংগ্রহ ৭৩৬। ২০১৮ সালে আইপিএল এর সময় তিনি রয়াল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর এর উইকেট কিপার ছিলেন।

৪. গুন্ডপ্পা বিশ্বনাথ ( উচ্চতা – ৫ ফুট ৩ ইঞ্চি ) : তিনি ছিলেন ভারতের প্রাক্তন ডান হাতি ওপেনিং ব্যাটসম্যান যিনি নিজের ক্রিকেট জীবনে ৯১ টি টেস্ট ম্যাচ খেলে ৬০৮০ রান
করেছেন। তার ব্যাটিং গড় ৪১-এর বেশি, যা তার ধারাবাহিকতা প্রমাণ করে।

৫॰ ডেভিড বুন ( উচ্চতা – ৫ ফুট ৩ ইঞ্চি ) : প্রাক্তন অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক ডেভিড বুন ছিলেন তার দলের টপ অর্ডার ব্যাসম্যান এবং তার নিজের সময়ের অন্যতম সেরা খেলোয়াড়। তিনি নিজের জীবনে ১০৭ টা টেস্ট ম্যাচ খেলে মোট ৭,৪২২ রান করেছিলেন। মোটা গোঁফের জন্য পরিচিত বুন সেই সময়ের এক জনপ্রিয় ক্রিকেটার ছিলেন।

৪॰ মনিমুল হক ( উচ্চতা – ৫ ফুট ৩ ইঞ্চি ) : ২৩ বছর বয়সি এই বাংলাদেশী তরুণ ব্যাটসম্যান এখনও পর্যন্ত ২৭ টি টেস্ট ম্যাচে ২১৫৪ এবং ২৬ টা একদিনের ম্যাচে ৫৪৩ রান করেছেন। বোলিং এর ক্ষেত্রে তিনি বা হাতে ধীর অর্থোডক্স বোলিং করতে পারেন যা তাকে বাংলাদেশের ক্রিকেট টিমে একটি ভালো জায়গায় নিয়ে যায় এবং শাকিব আল হাসান যখন চোট পান তখন তার জায়গায় তিনি খেলেন।

৩. মুশফিকর রহিম ( উচ্চতা – ৫ ফুট ৩ ইঞ্চি ) : মুশফিকর রহিম বাংলাদেশের বাংলাদেশের একজন উইকেট কিপার ব্যাটসম্যান এবং তার দুর্দান্ত পারফরমেন্স আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তার দলকে এগিয়ে নিয়ে যায়। তিনি সম্প্রতি বাংলাদেশের অধিনায়কের ভূমিকা পালন করেছেন।

২. ওয়াল্টার কর্নফর্ড ( উচ্চতা – ৫ ফুট ) : অনেকেই তাকে টিচ কর্নফর্ড নামেও চেনেন। তিনি ইংল্যান্ডের হয়ে ৪ টি টেস্ট ম্যাচ খেলেছিলেন। তিনি ছিলেন ইংল্যান্ডের উইকেট কিপিং ব্যাটসম্যান। মোট ৪৯৬ টি ঘরোয়া ম্যাচ তিনি খেলেছিলেন।

১. ক্রুগার ভান উইক ( উচ্চতা – ৪ ফুট ৯ ইঞ্চি ) : এই ৩৭ বছর বয়সি ক্রিকেটার নিউজিল্যান্ডের একজন ডান হাতি উইকেট কিপিং ব্যাটসম্যান যিনি কিছু সময়ের জন্য কিউই স্কোয়াড এও ছিলেন। ইংল্যান্ডের হয়ে ৯ টি টেস্ট ম্যাচ খেলে ২০১২ সালেই তিনি তার জীবনের শেষ টেস্ট ম্যাচ খেলেছিলেন।