বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল ১০ টি হলিউড সিনেমা

10 Most Expensive Movies Ever

যত দিন যাচ্ছে সিনেমায় অর্থের বিনিয়োগ দিন দিন বাড়ছে। বলিউডে সিনেমার বাজেট লক্ষের গন্ডি পেরিয়ে এখন কোটিতে ঠেকেছে। অন্যদিকে আবার বিনোদনের ইতিহাসে হলিউডের সিনেমাগুলোর আলাদা সুনাম রয়েছে। তাই নির্মাতারা একটা সিনেমা বানাতে সেরা  শিল্পী, গ্রাফিক্স, চিত্রনাট্যের জন্য হাজার হাজার কোটি টাকা খরচ করতে পিছুপা হচ্ছেন না।

কেননা পরিসংখ্যান বলছে ব্যয়বহুল সিনেমা মানেই সেই সিনেমা ব্যবসায় সফল। বড় বাজেটের ছবিগুলোতে যেমন থাকেন দামি তারকা, তেমনি সেগুলো তৈরি সময় ব্যবহার করা হচ্ছে বিশেষ ইফেক্ট, নতুন প্রযুক্তিও। যা ছবিগুলোকে দিচ্ছে অনন্য বৈশিষ্ট্য। সব মিলিয়ে সফল চলচ্চিত্র নির্মাণের ক্ষেত্রে বাজেট বিষয়টি প্রাধান্য দিচ্ছেন চলচ্চিত্র নির্মাতারা।

১. Pirates of the Carribean :On Stranger Tides

বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল সিনেমার তালিকায় প্রথম স্থানে রয়েছে মার্কিন পরিচালক রব মার্শাল পরিচালিত পাইরেটস অব দ্য ক্যারাবিয়ান সিরিজের এই সিনেমাটি যেটি মুক্তি পেয়েছিল ২০১১ সালে। ৩৭৮.৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ব্যয়ে নির্মিত এই সিনেমাটি বক্স অফিসে রেকর্ড গড়ে আয় করে ১০৪৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। যা এখনো পর্যন্ত সর্বাধিক আয় করা সিনেমার তালিকায় প্রথম স্থানে রয়েছে। এখন পর্যন্ত বিশ্বের চলচ্চিত্রের ইতিহাসে সবথেকে ব্যয়বহুল সিনেমার Walt Disney  Pictures এবং Jerry Bruckheimer Films যুগ্ম ভাবে প্রযোজনা করেছিল। মূলত থ্রিডি এফেক্ট এবং ছবিটির ভিসুয়াল ডিসপ্লে এর জন্যই এত অর্থ খরচ হয়।

২. Pirates of the Caribbean: At World’s End

পাইরেটস অব দ্য ক্যারাবিয়ান সিরিজের ‘অন স্ট্রেঞ্জার টাইডস’ মুক্তির আগ পর্যন্ত এই সিনেমাটিই বিশ্বের সবথেকে ব্যয়বহুল সিনেমা হিসেবে পরিচিত ছিল। কারণ ২০০৭ সালে মুক্তির পর থেকে ২০১১ সালের আগে কোন সিনেমা এর ধারের কাছেও আসতে পারেনি। এটি যেটি তৈরিতে মোট ৩০০ মিলিয়ন ডলার অর্থ ব্যয় হয়। ২০০৭ সালে মুক্তি পাওয়া এই ছবিটি বিশ্বের বিভিন্ন দেশ জুড়ে ৯৬৩.৪ মিলিয়ন ডলার অর্থ উপার্জন করে। এই ছবিটিও Walt Disney  Pictures এবং Jerry Bruckheimer Films যুগ্ম ভাবে প্রযোজনা করেছিল। ছবির মুখ্য চরিত্রে ছিলেন জনি ডেপ (Johny Depp)

৩. Avengers: Age of Ultron

এই তালিকায় এটি তৃতীয় ছবি যেটা প্রযোজনা করতে Marvel Studios প্রায় ২৮০ মিলিয়ন ডলার অর্থ ব্যয় করেছিল। তবে বিশ্ব জুড়ে মুক্তি পাওয়ার পর ছবিটি ১ বিলিয়ন ডলারের বেশী উপার্জন করে। ‘মার্ভেল সিনেমাটিক ইউনিভার্স’-এর ১১ তম ছবি এটি।

৪. John Carter

২০১২ সালে মুক্তি পাওয়া এই ছবির প্রযোজনা করেছিল Walt Disney Pictures. এই ছবি তৈরির বাজেট ছিল প্রায় ২৬৪ মিলিয়ন ডলার এবং মুক্তি পাওয়ার পর এই ছবিটি প্রায় ২৮৪ মিলিয়ন ডলার উপার্জন করে। কিন্তু খরচ বেশি হলেও সিনেমাটা খুব একটা ব্যবসা করতে পারেনি। সিনেমাটি ভালো করার এবং সফল হবার অনেক সুযোগ থাকলেও কোনো এক বা একাধিক কারণে তা করতে পারেনি। এটি ডিজনির অন্যতম ফ্লপ মুভি। কোনোরকমে ২৮৪ মিলিয়ন ডলার আয় করে এটি। এই ছবিটি একটি উপন্যাসের ওপর ভিত্তি করে গড়ে ওঠে যার নাম ছিল “A Princess of Mars”। ছবিটির মুখ্য চরিত্রে দেখা গিয়েছিল টেলর কিচ (Taylor Kitsch) এবং লিন কলিন্স ( Lynn Collins) কে।

৫. Tangled

এটি বিশ্বের সবথেকে ব্যয়বহুল সিনেমার তালিকায় পঞ্চম স্থানে আছে। এটি অন্যতম সফল অ্যানিমেশন সিনেমাগুলোর মধ্যে একটি।এটি ডিসনি প্রিন্সেস রপুন্সাল এর ওপর তৈরি হয়। Walt Disney ছয় বছর ধরে এই ছবিটির প্রযোজনা করেছিল যার বাজেট ছিল ২৬০ মিলিয়ন ডলার। বক্স অফিসে ছবিটি ৫৯২ মিলিয়ন ডলার উপার্জন করেছিল।

৬. Spiderman 3

এটি স্পাইডার ম্যান সিরিজের তৃতীয় ছবি।এটি সুপারহিরো স্পাইডার ম্যানের ওপর তৈরি করা হয়েছে।ছবিটি প্রযোজনা করেছিল Marvel Studios এবং ছবিটির বাজেট ছিল ২৫৮ মিলিয়ন ডলার। ছবিটির বক্স অফিস কালেকশনের অর্থও ছিল অনেক।

৭. Harry Potter and the Half-Blood Prince

জে কে রাউলিং (J.K Rowling) এর ফ্যান্টাসি থ্রিলার বইয়ের ওপর ওই একই নামে তৈরি করা Harry Potter সিরিজের ষষ্ঠ সিনেমা ছিল এটি। এই ছবিটির পরিচালক ছিলেন  David Yates এবং এর প্রযোজনার দায়িত্বে ছিল Warner Bros। ছবিটির বাজেট ছিল ২৫০ মিলিয়ন ডলার এবং মুক্তি পাওয়ার পর ছবিটি ৯৩৫ মিলিয়ন ডলারের বেশী উপার্জন করে। ছবিতে Danniel Radcliffe,Rupert Grint,Emma Watson এবং Alan Rickman কে মুখ্য চরিত্রে দেখা যায়।

৮. The Hobbit: The Battle of the Five Armies

২০১৪ সালে মুক্তি পাওয়া এই ছবিটি J.R.R Tolkien রচিত একটি কাল্পনিক উপন্যাস The Hobbit and starred এর ওপর তৈরি করা হয়েছে।New Line Cinema, Wing Nut Films and Metro-Goldwyn-Mayer একসাথে ছবিটির প্রযোজনা করে। ছবিটির বাজেট ছিল ২৫০ মিলিয়ন ডলার।মুক্তি পাওয়ার পর ছবিটি বিশ্ব জুড়ে ৯৫৬ মিলিয়ন ডলার উপার্জন করে।

৯. Batman vs. Superman: Dawn of Justice

ছবিটি দুটি সুপারহিরো চরিত্র ব্যাটম্যান এবং সুপারম্যান কে নিয়ে তৈরি হয়।ছবিটি যুগ্ম ভাবে প্রযোজনা করে Charles Roven এবং Deborah Snyder। ছবিটির বাজেট ছিল ২৫০ মিলিয়ন ডলার এবং ছবিটি মুক্তির পরে উপার্জন করেছিল ৮৭৩ মিলিয়ন ডলার।

১০. Avatar

বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল সিনেমার তালিকায় দশম স্থানে আছে ২০০৯ সালে মুক্তি পাওয়া ছবি Avatar যা ছিল মূলত একটি সাইন্স ফিকশন। ছবিটি একই সাথে পরিচালনা এবং প্রযোজনা করেন James Cameron। ছবিটির বাজেট ছিল ২৭৩ মিলিয়ন ডলার এবং মুক্তি পাওয়ার পর ২ বিলিয়ন ডলার ছাড়াও তিনটি অ্যাকাডেমিক পুরষ্কার পায় ছবিটি।