শুভেন্দু অধিকারী বিয়ে করেননি কেন? জানিয়ে দিলেন নিজেই

Subhendu Adhikari Marriage

শুভেন্দু অধিকারী কে নিয়ে সরগরম রাজ্য রাজনীতি। গত কয়েক মাস ধরে চলা দীর্ঘ টানাপোড়েনের পর অবশেষে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপি তে যোগ দিয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী (Shubhendu Adhikari)। শুভেন্দুর রাজনৈতিক জীবন নিয়ে আমরা প্রায় সবাই কম বেশি অনেক কিছুই জানি। কিন্তু শুভেন্দু অধিকারী অবিবাহিত কেন? এই প্রশ্ন নিশ্চই আপনার মনেও একবার এসেছে।

এর উত্তর অবশ্য নিজেই দিয়েছেন সদ্য তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব শুভেন্দু অধিকারী।তার কথায়, বর্তমান দিনের রাজনৈতিক নেতারা নন বরং তার আদর্শ  সতীশ সামন্ত, সুশীল ধাড়াদের মতন নেতারা। তাদের পথ অনুসরণ করতে চেয়েছিলেন তিনি। সেই কারণেই অবিবাহিত তিনি।

তৃণমূল কংগ্রেসে থাকাকালীন রাজ্যের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় (Subrata Mukherjee) মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) জীবনযাপনের উদাহরণ দিয়েছিলেন তিনি। কিভাবে তারা সরল ভাবে জীবন কাটিয়েছেন তাও বলেন শুভেন্দু অধিকারী।

কিছুদিন আগে নন্দীগ্রামের বিজয়া সম্মিলনীর সভা থেকে শুভেন্দু অধিকারী বলেন, কোনও লোককে দেখে নয়, বই পড়ে। অধ্যাপক প্রদ্যোৎ মাইতির বই পড়ে। সতীশবাবু, সুশীলবাবু, অজয়বাবু। তাঁরা বলেই গিয়েছিলেন অকৃতদার ছিলেন মানুষের জন্য। কোনও পিছুটান যেন না থাকে। কখন বেরোন, কখন ঢুকছেন, কেউ যেন না খোঁজ করে। পরিবার যেন ছোটোর মধ্যে সীমাবদ্ধ না থাকে, বড় পরিবার কর। তাই তিনি ঘোষিত অকৃতদার।

তিনি হলদিয়ায় সভা থেকে তার আদর্শ সতীশ সামন্ত, সুশীল ধাড়ার কথা মনে করিয়ে দেন। তারা বলেছিলেন,সমাজের জন্য দিতে হলে নিজের পুরোটা দিয়ে করার কথা বলতেন তারা। তাদের অদর্শে অনুপ্রাণিত হয়েই বিয়ে করেননি তিনি। নন্দীগ্রাম গণ-আন্দোলননের স্মৃতিকে উস্কে দিয়ে বলেন, সেই আন্দোলন কোনও দলের বা ব্যাক্তির ছিলনা, সেই অন্দলন ছিল মানুষের এবং সেই আন্দোলনে জয় পেয়েছেন মানুষ।

শুধু শুভেন্দু অধিকারী নন, রাজনীতির মঞ্চে থাকার জন্য সংসার ধর্ম ত্যাগ করেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। কিছুদিন আগে মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় মুখ্যমন্ত্রী সম্পর্কে বলেন, তার পায়ে কেবল একটা হওয়ায় চপ্পল এবং তিনি আমেরিকা গেলেও তার পায়ে সেই চপ্পল থাকবে।শুধু মানুষের জন্য, মানুষের কথা ভেবে মুখ্যমন্ত্রী বিয়ে করেননি, করেননি সংসার। পুরো জীবন দিয়ে দিয়েছেন তিনি। এতকিছুর পরেও তাকে আক্রমন করতে ব্যস্ত দিল্লি সরকার।

আরও পড়ুন : বাংলার রাজনীতিতে শুভেন্দু অধিকারী কতটা গুরুত্বপূর্ণ?

দীর্ঘদিন তৃণমূল কংগ্রেসের অন্যতম স্তম্ভ হয়ে দাড়িয়ে থাকার পর ভোট পূর্ববর্তী উত্তেজনার সময়ই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন শুভেন্দু অধিকারী।তার এই পদক্ষেপ নিয়ে তুমুল আলোচনা চলছে রাজনৈতিক মহলে। তার এই সিদ্ধান্ত আসন্ন বিধানসভা ভোটের ভোট ব্যাঙ্কে কি প্রভাব ফেলবে তা দেখা কেবলমাত্র সময়ের অপেক্ষা।