শক্তিমান থেকে রামায়ণ, টিভির এই ১০ ধারাবাহিক দর্শকদের বিচারে আজও সেরা

দর্শকের বিচারে সর্বকালের সেরা ১০ ধারাবাহিক

Shaktimaan film trilogy, watch first teaser

৮০-৯০ এর দশকে দূরদর্শন এবং তার পাশাপাশি অন্যান্য চ্যানেলগুলোর যখন ধীরে ধীরে বিস্তার ঘটছিল তখন ছোট থেকে বড় সকলের কথা মাথায় রেখে নানা কনটেন্টের উপর ভিত্তি করে ধারাবাহিক বানানো হতো। এই ধারাবাহিকগুলোর জনপ্রিয়তা শুধু সেই সময়ের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকেনি। বছরের পর বছর পেরিয়ে আসলেও দর্শকদের কাছে পুরনো সেই ধারাবাহিকগুলোই সেরা হয়ে আছে আজও। আজ এই প্রতিবেদনে রইল হিন্দি টেলিভিশনের সেরা দশটি ধারাবাহিকের (Best 10 Hindi Telivision Show) নাম।

শক্তিমান (Shaktiman) : ১৯৯৭ থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত দূরদর্শনে‌ সম্প্রচার হতো এই ধারাবাহিকটি। ছোটদের নিয়ে এই ধারাবাহিক দেখে বড়রাও বেশ মজা পেতেন। শক্তিমান যেন হয়ে উঠেছিল দেশি সুপারহিরো। এই ধারাবাহিকে ছোটদের জন্য থাকতো নানা সৎ উপদেশ। শক্তিমানের জনপ্রিয়তার কথা মাথায় রেখে নতুন ছবিও আনছে বলিউড।

Shaktiman returns on tv again Here's When and Where You Can Watch This

 

লেফট রাইট লেফট (Left Right Left) : তৎকালীন সময়ের সব থেকে বিখ্যাত ধারাবাহিক ছিল এটি। এই ধারাবাহিকের প্রত্যেক সদস্যেরই জনপ্রিয়তা তখন ছিল তুঙ্গে। বিশেষত গল্পের মধ্যে নয়না এবং রাজবীরের যে গোপন সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল তাও ছিল বেশ আকর্ষণীয়।

শরারত (Shararat) : ৮ থেকে ৮০ সকলেরই বেশ পছন্দের ধারাবাহিক ছিল শরারত। এই ধারাবাহিকে ঠাকুমা, মা এবং মেয়ের দুষ্টু-মিষ্টি গল্প জাদুর মতো আচ্ছন্ন করে রেখেছিল দর্শকদের। এই পরিবার জাদু করার ক্ষমতা রাখতো, সুপারন্যাচারালধর্মী ধারাবাহিকটি সেই সময় বেশ প্রশংসা পেয়েছিল।

শান্তি (Shanti) : ১৯৯৪ সালে দূরদর্শনে প্রথমবার সম্প্রচারিত হয়েছিল এই ধারাবাহিকটি। টেলিভিশনের সব থেকে বেশি বার দেখা সিরিজ হলো এই ধারাবাহিক। মন্দিরা বেদী অভিনীত ধারাবাহিকটি ছিল এতটাই জনপ্রিয় যে ২০০৯ সালে স্টার প্লাস চ্যানেলে এটিকে পুনরায় সম্প্রচার করা হয়।

মালগুডি ডেস (Malgudi Days) : আর কে নারায়নের উপন্যাস অবলম্বনে মালগুডি ডেস ছোটরা দারুণ পছন্দ করেছিল। ১৯৮৭ সালে এই সিরিজের সম্প্রচার হয়। বালক স্বামীর চরিত্রে মাস্টার মঞ্জুনাথের অভিনয়ে মুগ্ধ হয়েছিলেন দর্শকরা।

ব্যোমকেশ বক্সী (Byomkesh Bakshi) : মুখ্য চরিত্রে রজত কাপুর এবং অজিতের ভূমিকায় কে কে রায়না কার্যত বাজিমাত করেছিলেন ব্যোমকেশ বক্সী সিরিয়ালে। বাঙালির নস্টালজিয়া ব্যোমকেশকে কার্যত আপন করে নিয়েছিল গোটা দেশ। শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপন্যাস অবলম্বনে এই গোয়েন্দা সিরিজ বারবার সম্প্রচার করা হয়েছে দূরদর্শনে।

সিআইডি (CID) : ক্রাইম থ্রিলারধর্মী সিরিজের প্রতি দর্শকদের আলাদাই আগ্রহ কাজ করে। ১৯৯৭ সালে যখন সিআইডির সম্প্রচার শুরু হয় তখন থেকেই এর জনপ্রিয়তা তুঙ্গে। আজ এত বছর বাদেও সিআইডির কথা বললেই নস্টালজিয়ায় ভেসে যান দর্শকরা। দর্শকরা সিজন টু এর দাবিও করেছিলেন।

ফ্লপ শো (Flop Show) : নামে ফ্লপ হলেও এই সিরিজ কিন্তু দারুণ জনপ্রিয় হয়েছিল। মূলত কমেডি নির্ভর এই সিরিজ দর্শকদের প্রাণ খুলে হাসিয়েছে। দূরদর্শনের পর অন্যান্য বেশ কয়েকটি চ্যানেলেও এর সম্প্রচার হয়।

রামায়ণ (Ramayan): টেলিভিশনের সবথেকে জনপ্রিয় ধারাবাহিকের প্রসঙ্গ উঠবে অথচ রামানন্দ সাগরের রামায়ণের নাম আসবে না, তা কখনও হয় না। দুর্দান্ত কাস্টিং, গল্প বলার দারুণ স্টাইল এবং সকলের সম্মিলিত প্রয়াসে এই ধারাবাহিকটি আজও ভীষণভাবে জনপ্রিয়। করোনার সময় বিধ্বস্ত পরিস্থিতিতে রামায়ণের সম্প্রচার করা হয়েছিল।

মহাভারত (Mahabharat) : লাস্ট বাট নট দ্য লিস্ট, বিআর চোপড়ার মহাভারত। এটি এমন একটি সিরিজ ছিল যে সম্প্রচারের সময়ের ৪৫ মিনিট ভারতের রাস্তাঘাটে কোনও মানুষজন পাওয়া যেত না। দোকানগুলো সব বন্ধ থাকতো। কারণ এই সময় সকলে মিলে পরিবারের সঙ্গে বসে একসঙ্গে দেখতেন মহাভারত।